ঢাকা, বুধবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১৩ আশ্বিন ১৪২৯

ভিসার মেয়াদ অটো বৃদ্ধির দাবি জানালেন সৌদি প্রবাসীরা

২০২০ সেপ্টেম্বর ২৯ ১২:২১:৪৯
ভিসার মেয়াদ অটো বৃদ্ধির দাবি জানালেন সৌদি প্রবাসীরা

দিনের পর দিন যেন সৌদি প্রবাসীদের দুর্ভোগ যেন কাটছে না।দিন দিন জেব বাড়ছে বহুমাত্রিক সমস্যা। আগামী ৩০ সেপ্টেম্বরের মধ্যে সৌদি আরবে প্রবেশ করতে হবে এমন ঘোষণার পর থেকে এ সংকটের সূত্রপাত। শুরুতে ছিল ফ্লাইট ও টিকিট নিয়ে ভোগান্তি। এরপর কিছুটা হলেও সে সংকট দূর হয়। কিন্তু ফ্লাইট ও টিকিট সীমিত হওয়ায় সমস্যার পুরো সমাধান হচ্ছে না।

ফলে প্রতিদিন শত শত প্রবাসী টিকিটের জন্য সৌদি এয়ারলাইন্স ও বাংলাদেশ বিমান অফিসের সামনে জড়ো হয়ে বিক্ষোভ করছেন। যারা টিকিট পাচ্ছেন তাদের আবার কোভিড-১৯ টেস্টের নামে নতুন ভোগান্তিতে পড়তে হচ্ছে। যাদের ভিসার মেয়াদ শেষ বা শেষ হতে চলেছে তারা বিপাকে পড়েছেন সৌদি আরবের দেয়া শর্তের কারণে। এ অবস্থায় টিকিট, ফ্লাইট, করোনা টেস্ট এবং ভিসার মেয়াদ বৃদ্ধি নিয়ে চরম ভোগান্তিতে পড়ছেন সৌদি প্রবাসীরা।

এমন পরিস্থিতিতে অটো ভিসার মেয়াদ মেয়াদ বৃদ্ধি এবং টিকিটের দাবিতে বিক্ষোভ করেছেন সৌদি প্রবাসীরা। সোমবার সৌদি এয়ারলাইন্সের অফিসের সামনে বিক্ষোভ করেন তারা। একপর্যায়ে কারওয়ান বাজার ও হোটেল সোনারগাঁওর সামনে প্রধান সড়কে অবস্থান নেয় সৌদি প্রবাসীরা। এ সময় তারা অবিলম্বে ভিসার মেয়াদ স্বয়ংক্রিয়ভাবে আরও ৩ মাস বৃদ্ধির উদ্যোগ নিতে সরকারের প্রতি আহ্বান জানান।

এদিকে প্রধান সড়ক অবরোধের কারণে কারওয়ান বাজারসহ আশপাশের এলাকায় সৃষ্টি হয় তীব্র যানজট। পরে পুলিশ এসে প্রবাসীদের বুঝিয়ে রাস্তা থেকে সরিয়ে দেয়। এদিকে মতিঝিলে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের কার্যালয়ের সামনেও সৌদি প্রবাসীদের ভিড় লক্ষ্য করা যায়। কোন তারিখের টিকিট কবে ইস্যু করা হবে তার সুনির্দিষ্ট তথ্য না জানার কারণেই প্রতিদিন প্রবাসীরা এমন ভিড় করছেন বলে জানা গেছে।

টিকিটের পাশাপাশি ভিসার মেয়াদ বাড়াতে ভিড় করেন সৌদি অ্যাম্বেসিতে। কিন্তু সেখান থেকে ভিসার মেয়াদ বাড়ানো হচ্ছে না। এ ব্যাপারে সৌদি সরকারের নির্দিষ্ট করে দেয়া ৩২টি ট্রাভেল এজেন্সিতে যোগাযোগ করতে বলা হয়। কিন্তু অনেকে এসব ট্রাভেল এজেন্সিতে গিয়েও ভিসা নবায়ন করতে পারছেন না। তাদের সৌদি সরকারের দেয়া কঠিন শর্তের মুখোমুখি হতে হচ্ছে।

ঢাকার সৌদি দূতাবাস থেকে ভিসা নবায়নে যেসব শর্ত পূরণের কথা বলা হয়েছে, তার মধ্যে নিয়োগকর্তা বা কফিলের আবেদনসংবলিত চিঠি, যা সৌদি পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় কর্তৃক সত্যায়িত হতে হবে। ইকামার মেয়াদ লেখা থাকতে হবে সৌদি পাসপোর্ট অধিদফতরের (জাওয়াজাত) আবেদনের প্রিন্ট কপিতে। পাসপোর্ট ও রি-এন্ট্রি ভিসার মূলকপি রাখতে হবে সঙ্গে। থাকতে হবে মেয়াদসহ ইকামার মূলকপি। এ ছাড়া সৌদি আরব থেকে বের হওয়ার মূল কপি থাকার বাধ্যবাধকতাও রাখা হয়েছে ভিসা নবায়ন শর্তে।

ভিসার মেয়াদ বৃদ্ধি, টোকেন ও টিকিটের দাবিতে সোমবার সকাল থেকে হোটেল সোনারগাঁওয়ের সৌদি এয়ারলাইন্সের কার্যালয়ের বাইরে অবস্থান নেন প্রবাসীরা। সৌদি এয়ারলাইন্স কর্তৃপক্ষ নির্ধারিত সংখ্যক প্রবাসী যাদের আগে থেকে টোকেন দেয়া হয়েছিল তাদের ভেতরে প্রবেশ করতে দেয় এবং টিকিট ইস্যু করে। সিডিউল অনুযায়ী এদিন ১৯০০ থেকে ২৩০০ টোকেন নম্বরধারীদের টিকিট দেয়ার কথা ছিল। কিন্তু যাদের ভিসার মেয়াদ ২ দিন পর শেষ হচ্ছে তাদের ব্যাপারে কোনো তথ্যই দিচ্ছিল না।

এছাড়া ইতোমধ্যে যাদের ভিসা ও ইকামার মেয়াদ শেষ হয়ে গেছে তাদের কোনো টিকিট ইস্যু করছে না। নির্ধারিত টোকেনধারী ছাড়াও ৩ হাজারের পরের সিরিয়ালের টোকেন নম্বর যাদের, তারাও টিকিটের জন্য সকাল থেকে ভিড় করেন। এছাড়া যারা এখনও টোকেন পাননি তারাও ভিড় করেন। কখন কিভাবে টোকেন পাবেন তা নিয়ে এক ধরনের অনিশ্চয়তায় সময় কাটছে এসব প্রবাসীর। অনেকে টোকেনের আশায় এয়ারলাইন্সের সামনেই রাত-দিন অপেক্ষা করছেন। কিন্তু এয়ারলাইন্সের পক্ষ থেকে তাদের সুনির্দিষ্টভাবে কিছু বলা হচ্ছে না।

৪ অক্টোবর থেকে নতুন টোকেন দেয়া হবে বলে জানানো হয়েছে। কিন্তু ৩০ সেপ্টেম্বর যাদের ভিসার মেয়াদ শেষ হবে তারা ৪ অক্টোবর টোকেন পেয়ে কি করবেন এমন প্রশ্ন তাদের। এমন পরিস্থিতিতে দুপুর ১টার পর থেকেই প্রবাসীকর্মীরা রাস্তা অবরোধ শুরু করেন। প্রধান সড়কে নেমে আসেন শত শত কর্মী। ৩ মাস ভিসার মেয়াদ অটো বাড়ানোর দাবি জানান তারা। রাস্তা অবরোধের ফলে অনেকেই হেঁটে গন্তব্যে রওনা হন।

অবরোধকালে প্রবাসী কর্মীরা জানান, ৩০ সেপ্টেম্বর তাদের অনেকের ভিসার মেয়াদ শেষ হচ্ছে। প্রতিদিন ধরনা দিয়েও টিকিট পাচ্ছেন না। আবার অনেকের ভিসার মেয়াদ ইতোমধ্যে শেষ হয়েছে। এমন পরিস্থিতে ভিসার মেয়াদ বাড়াতে সৌদি দূতাবাসের নির্ধারিত এজেন্সির সঙ্গে যোগাযোগ করলে তারা সৌদি কফিলের (মালিক) কাছ থেকে ছুটি ও ভিসা বাড়ানোর অনুমতিসহ নানা ডকুমেন্ট নিয়ে আসার কথা বলছে।

আমরা শ্রমিক, এখান থেকে কোম্পানির মালিকের সঙ্গে যোগাযোগ করে কাগজপত্র আনা আমাদের পক্ষে সম্ভব নয়। তাই আমাদের দাবি একটাই, আগের মতো স্বয়ংক্রিয়ভাবে সবার ভিসার মেয়াদ ৩ মাস বাড়ানো হোক। সরকারের কাছে এমন বার্তা পৌঁছানোর জন্যই নিরুপায় হয়ে আমরা রাস্তা অবরোধ করতে বাধ্য হয়েছি।

শাহজাহান মিয়া নামের এক প্রবাসী বলেন, গত বছরের ২৭ সেপ্টেম্বর ৬ মাসের ছুটিতে দেশে ফেরেন। মার্চে তার ফিরে যাওয়ার কথা ছিল। কিন্তু করোনাভাইরাসের কারণে বিশ্বব্যাপী ফ্লাইট চলাচল বন্ধ থাকায় ফিরে যেতে পারেননি। কয়েক দিন ধরে সৌদি এয়ারলাইন্সের টিকিট কনফার্ম করার জন্য ছুটে আসছি। কিন্তু টিকিট পাচ্ছি না। ৩০ সেপ্টেম্বর আমার ভিসার মেয়াদ শেষ হচ্ছে।

সরকার ২৪ দিন ভিসার মেয়াদ বাড়ানোর ঘোষণা দিলেও অনলাইনে গিয়ে চেক করে তার কোনো আলামত পাই না। তাই সহজে সমস্যা সমাধানের জন্য ৩ মাস ভিসা বাড়ানো হোক। তবেই সবায় ফিরে যেতে পারবেন। তাছাড়া ভিসা নবায়নের জন্য এমন কিছু শর্ত রাখা হয়েছে, যেটি পূরণ করে একজন বাংলাদেশির সৌদি ফেরা এক প্রকার অসম্ভব হয়ে দাঁড়িয়েছে।

এদিকে মতিঝিলে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের অফিসের সামনেও সকাল থেকে প্রবাসীদের ভিড় লক্ষ্যে করা যায়। সকাল ১০টার কিছু পরে শুরু হয় এয়ারলাইন্সের কার্যক্রম। গেট খোলার পর হুড়মুড় করে বিমান অফিসে কয়েক হাজার প্রবাসী প্রবেশ করেন। এরপর গেট বন্ধ করে দেয়া হয়। এদিন ২১ ও ২৪ মার্চে যাদের ফিরতি টিকিট ছিল তাদের কনফার্ম করা হয়। কিন্তু কোন তারিখের রিটার্ন টিকিট কবে ইস্যু করা হবে, তার সুনির্দিষ্ট তথ্য অনেকে জানেন না। যাদের ভিসার মেয়াদ ৩০ সেপ্টেম্বর শেষ হবে তাদের টিকিট দেয়া হয়নি।

আক্তার হোসেন নামের এক প্রবাসী জানান, তিনি ৫ দিন ধরে ঘুরছেন টিকিটের জন্য। কিন্তু কোন দিনের টিকিট কবে দেয়া হবে তা তিনি জানেন না। সেটা জানতেই চাঁদপুর থেকে ঢাকায় এসেছেন। তার মতো অনেকেই আছেন যারা সঠিক তথ্য জানেন না।

পাঠকের মতামত:

প্রবাসী এর সর্বশেষ খবর

প্রবাসী - এর সব খবর



রে