ঢাকা, শনিবার, ২৮ মে ২০২২, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯

রিভার্স সুইপ খেলতে মুশফিককে যে পরামর্শ দিলেন ডমিঙ্গো

২০২২ মে ১৩ ২০:১১:১০
রিভার্স সুইপ খেলতে মুশফিককে যে পরামর্শ দিলেন ডমিঙ্গো

ওয়ানডে কিংবা টি-টোয়েন্টিতে অনেক সময়ই রিভার্স সুইপ শট খেলে দলকে বিপদে ফেলেছেন মুশফিকুর রহিম। দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে দ্বিতীয় টেস্টেও একই কাণ্ড করেছেন ডানহাতি এই ব্যাটার। যদিও মুশফিক বরাবরই বলছেন, এটা তার প্রিয় শট। সম্প্রতি ব্যাপকহারে সমালোচনা হলেও এই শটে সমস্যা দেখছেন না রাসেল ডমিঙ্গো। বরং মুশফিককে উপযুক্ত সময় বেছে রিভার্স সুইপ শট খেলতে বলছেন বাংলাদেশের প্রধান কোচ।

গত মাসে দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে পোর্ট এলিজাবেথ টেস্টের তৃতীয় দিন লাঞ্চের ঠিক একটু আগে রিভার্স সুইপ করতে গিয়ে বোল্ড হয়েছিলেন মুশফিক। ডানহাতি এই ব্যাটারের সঙ্গে দারুণ জুটি গড়া ইয়াসির আলী রাব্বি ফিরেছিলেন লাঞ্চের একটু আগে। তখন দলের স্বীকৃত ব্যাটার বলতে কেবলই মুশফিক।

এমন সময় সাইমন হার্মারের ওভারের প্রথম বলে চার মেরে হাফ সেঞ্চুরি পূর্ণ করেন ডানহাতি এই ব্যাটার। প্রথম বলে চার মারলেও পরের বলেই আউট হতে পারতেন মুশফিক। লেগ বিফোর উইকেট নিয়ে জোরালো আবেদন করলেও তাতে আউট দেননি আম্পায়ার। যদিও পরবর্তীতে রিপ্লেতে দেখা যায় আউট ছিলেন মুশফিক।

আউট থেকে বেঁচে যাওয়ার পরের বলেই রিভার্স সুইপ খেলেন তিনি। ব্যাটের কানায় লেগে বল আঘাত করে স্ট্যাম্পে। তাতে বাংলাদেশের শেষ ভরসা হিসেবে সাজঘরে ফেরেন মুশফিক। বাংলাদেশও অল আউট হয়েছে ২১৭ রানে। সেসময় মুমিনুল হক সমর্থন দিলেও ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া জানিয়েছিলেন খালেদ মাহমুদ সুজন।

দক্ষিণ আফ্রিকায় বাংলাদেশকে বিপদে ফেললেও মুশফিককে রিভার্স সুইপ শট খেলতে বারণ করছেন না ডমিঙ্গো। এ প্রসঙ্গে বাংলাদেশের প্রধান কোচ বলেন, ‘ধরুন, ওপেনিং ব্যাটসম্যান কাভার ড্রাইভ করতে গিয়ে আউট হলো বা মিড উইকেটের দিকে খেলতে গিয়ে এলবিডব্লিউ হলো, এটা খেলা বন্ধ করতে বলবেন? কোনো শট নিয়ে যদি কারও আত্মবিশ্বাস থাকে, আস্থা থাকে এবং যদি সে মনে করে এটা ভালো বিকল্প, সেই শট খেলায় সমস্যা থাকতে পারে না। আমার মতে, শট খেলার সময়টা গুরুত্বপূর্ণ, কখন শটটি খেলা উচিত এবং কেন ওই শট খেলা প্রয়োজন।’

‘রিভার্স সুইপে মুশফিক দুর্দান্ত, অতীতে এই শটে অনেক রানও করেছে। এই শট নিয়ে অনেক আত্মবিশ্বাসীও সে। স্রেফ সময়টা গুরুত্বপূর্ণ, কখন এই শট খেলবে। কাভার ড্রাইভও যেমন, খুব সুন্দর শট। কিন্তু বাঁহাতি ব্যাটসম্যান হলে প্রথম ২০-৩০ বলের মধ্যে কাভার ড্রাইভ খেলতে গেলে ঝুঁকি থাকবে। ৫০-৬০ বল খেলার পর কাভার ড্রাইভে সমস্যা নেই। ব্যাপারটি তাই হলো, কখন শটটি খেলছে।’

পাঠকের মতামত:

খেলা এর সর্বশেষ খবর

খেলা - এর সব খবর



রে