ঢাকা, শনিবার, ১৩ আগস্ট ২০২২, ২৯ শ্রাবণ ১৪২৯

ম্যাচ হেরে আফসোস নিয়ে সরাসরি যাদেরকে দায়ি করলেন অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ

২০২২ জুলাই ০৪ ১১:৪৯:৩৬
ম্যাচ হেরে আফসোস নিয়ে সরাসরি যাদেরকে দায়ি করলেন অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ

ডমিনিকার আদর্শ বাইশগজের ফায়দা কাজে লাগিয়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজ তুলে ফেলে ১৯৩ রান। রান তাড়ায় শুরুতে উইকেট হারানোর পর বাংলাদেশ জেতার কোন তাড়নাই দেখাল না। সাকিব আল হাসান ফিফটি করলেন বটে তবে তার ইনিংস ছিল সম্মানজনক হারের লক্ষ্যে। তবু ব্যাটিং নয় বোলিংকেই মূলত দায় দিচ্ছেন অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ।

ডমিনিকায় রোববার অনেকটা একপেশে ম্যাচে বাংলাদেশকে ৩৫ রানের বড় ব্যবধানে হারায় ওয়েস্ট ইন্ডিজ। ওয়েস্ট ইন্ডিজের ১৯৩ রানের জবাবে শেষ তিন ওভারে ৪১ রান আনার পরও বাংলাদেশ করতে পারে ১৫৮ রান। এটাই বলে দেয় কতটা চেষ্টাহীন ছিল রান তাড়ার এই মিশন।

শুরুটা বাংলাদেশের ছিল বিপর্যয়ে। মেরে খেলার চেষ্টায় দুই ওপেনার ফেরেন দ্রুত, অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহও থামেন এক ছয়, এক চার মেরে। ২৩ রানে ৩ উইকেট পড়ার পর আফিফ হোসেনের সঙ্গে ৫৫ রানের জুটি গড়েন সাকিব। কিন্তু জুটিতে ৫৫ রান আনতে তারা লাগিয়ে ফেলেন ৪৪ বল। আফিফ তবু থিতু হয়ে চেষ্টার চালাচ্ছিলেন, সাকিবের মাঝে ছিল না তেমন কিছু, ২৭ বলে ৩৪ করে আফিফ থামার পর প্রান্ত আগলে রেখেই খেলে গেছেন সাকিব।

মাঝের ওভারে ৪৫ বলেও কোন বাউন্ডারি আসেনি বাংলাদেশের ইনিংসে। এক পর্যায়ে সাকিবের রান ছিল ৩৭ বলে ৩৫! ৪৫ বলে তিনি ফিফটি করার পর হাতখুলে মেরেছেন। ততক্ষণে ম্যাচ উইন্ডিজের পকেটে।

তবে ম্যাচ শেষে এমন ব্যাটিংকেও বাহবা দিলেন মাহমুদউল্লাহ, ‘সাকিব মাশাল্লাহ খুবই ভাল ব্যাট করেছে, কিন্তু বোলিংয়ে আমরা সম্ভবত কয়েকটা ওভারে খুব বেশি রান দিয়ে দিয়েছি। ওইটাতে কোন সমস্যা নাই, টি-টোয়েন্টিতে হতেই পারে। কিন্তু জায়গায় বল করতে চেয়েছি, ওইখানে আমরা বল করতে পারিনি।’

‘আফিফ আর সাকিবের জুটি গুরুত্বপূর্ণ ছিল, মোমেন্টাম পেয়েছিল। শেষে সাকিব কয়েকটা ওভার বাউন্ডারি মারল, মোসাদ্দেক আসল। কিছুটা তো হয়তবা। উইকেট খুব ভাল ছিল। বোলিং ভাগে আরেকটু রান কম রাখলে, লক্ষ্য ছোট হলে ভাল হত।’

বাংলাদেশে পেস বোলাররা ছিলেন বেশ খরুচে। শরিফুল ইসলাম স্লগ ওভারে ভাল করলেও বাকি দুজন ছিলেন মলিন। সাকিবও শেষ দিকে এসে ২৩ রান দেন এক ওভারে। তবে টি-টোয়েন্টি ম্যাচে এরকমটা হয়ে যায়, যখন রভম্যান পাওয়েলের মতো কেউ ক্রিজে থাকেন (২৮ বলে ৬১)।

ক্যারিবিয়ানরা দুশোর কাছে যাওয়ার পরই কি তবে আশা ছেড়ে দিয়েছিল বাংলাদেশ? মাহমুদউল্লাহ বোঝালেন শুরুতে ৩ উইকেট পড়ার পর তাদের হিসাব-নিকাশ আসলেই বদলে গিয়েছিল, ‘ছিটকে যাইনি। ১৯০ রান যখন তাড়া করবেন তখন শুরু থেকে। ভালো একটা শুরু খুবই গুরুত্বপূর্ণ। আমরা শুরুতে ৩ উইকেট হারিয়ে ফেলি।’

পাঠকের মতামত:

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

খেলা এর সর্বশেষ খবর

খেলা - এর সব খবর



রে