ঢাকা, শুক্রবার, ৯ ডিসেম্বর ২০২২, ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৯

সার্বিয়া বিপক্ষে কঠিন চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি হতে হবে ব্রাজিলের

২০২২ নভেম্বর ২৪ ২০:২৭:০০
সার্বিয়া বিপক্ষে কঠিন চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি হতে হবে ব্রাজিলের

আলমের খান: অন্য সব বিশ্বকাপ থেকেই যেন আলাদা এই কাতার বিশ্বকাপ। খরচের দিক দিয়ে ইতিহাসের সবচেয়ে দামি বিশ্বকাপ এটি। ১৯৯০ থেকে শুরু করে ২০১৮ পর্যন্ত আয়োজিত সবগুলো বিশ্বকাপের মূল অর্থ যোগ করেও কাতার বিশ্বকাপের খরচের কাছাকাছি হবে না। ধারণা করা হচ্ছে কাতার বিশ্বকাপ আয়োজন করতে ২২৯ বিলিয়ন ডলার খরচ করেছে মধ্যপ্রাচ্যের এই দেশটি। এছাড়া কাতারের বিভিন্ন বিধি-নিষেধের উপর সমালোচনাও করছে ইউরোপবাসীরা। অনেক দেশেই বিশ্বকাপ বয়কটের প্রবল ডাকও দেওয়া হচ্ছে।

সবমিলিয়ে এই বিশ্বকাপটা একটু যেন অন্যরকম। মাঠের খেলায়ও ভিন্ন কিছুই দেখা যাচ্ছে কাতার বিশ্বকাপে। বিশ্বকাপ শুরু হওয়ার দিন দুয়েকের মধ্যেই শিরোপার দুই বড় দাবিদার নিজেদের তুলনায় অনেক ছোট দুই দলের বিপক্ষে পরাস্ত হয়েছে। সৌদি আরবের বিপক্ষে ২-১ ব্যবধানে আর্জেন্টিনা এবং তার একদিন পরেই জাপানের বিপক্ষে একই ব্যবধানে জার্মানির পরাজয়।

দুটি ম্যাচের মধ্যেই ছিল অবিশ্বাস্য রকমের মিল। দুটি ম্যাচেই পেনাল্টির মাধ্যমে বড় দলটি এগিয়ে যায়, এবং পরবর্তীতে দ্বিতীয় আর্ধে ছোট দলের প্রত্যাবর্তন ঘটে। আর্জেন্টিনা এবং জার্মানির পরাজয়ের পর অনেকেই বিশ্বকাপকে অঘটনের বিশ্বকাপ বলে দাবি করছে। কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই আরেক বড় দল ব্রাজিল মাঠে নামবে সার্বিয়ার বিপক্ষে। এই ম্যাচ ঘিরেও তাই তৈরি হয়েছে তুমুল উত্তেজনা।

শক্তি-সামর্থে জাপান এবং সৌদি আরবের চেয়ে বেশ ভালো দল সার্বিয়া। যেহেতু জাপান এবং সৌদি আরব অঘটন ঘটাতে পেরেছে তাহলে সার্বিয়া কেন নয়? এছাড়াও সার্বিয়া ইউরোপের দল, অর্থাৎ তুমুল প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেই বিশ্বকাপে জায়গা করে নিতে হয়েছে দেশটির। ইউরোপের দলগুলোর বিপক্ষে লাতিন আমেরিকান দলগুলো সব সময় কিছুটা চাপে থাকে। তাছাড়াও সার্বিয়ার সব ফুটবলারের উচ্চতায় প্রায় ৬ ফুটের বেশি।

তাদের দলে সর্বোচ্চ ছয় ফুট ৭ ইঞ্চির ফুটবলার রয়েছে। অর্থাৎ লং রেঞ্জের বল দখল করার ক্ষেত্রে এবং হেড দেওয়ার ক্ষেত্রে ব্রাজিলিয়ানদের তুলনায় বেশ ভালো সুবিধা পাবে সার্বিয়ানরা। শারীরিকভাবে তুলনামূলক বেশি শক্তিশালী হওয়ায় মুখোমুখি বল দখলের ক্ষেত্রেও কিছু সুবিধা পাবে সার্বিয়া। তবে দিনশেষে ফুটবল দক্ষতায় সার্বিয়ার তুলনায় ঢের এগিয়ে ব্রাজিলিয়ানরা। ফলে সার্বিয়ার যত সুবিধাই থাকুক না কেন ফেভারিট হিসেবেই খেলতে নামবে ব্রাজিল। বিশ্বকাপ জয়ের লক্ষ্যে খেলতে আসা ব্রাজিলের জন্য এই ম্যাচ জেতাটা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।

কোনো কারণবশত ম্যাচটি হেরে গেলে পরবর্তীতে সুপার ১৬ তে উঠা হলেও হয়তো গ্রুপের দ্বিতীয় হয়ে ওঠা হবে। সেক্ষেত্রে অন্য গ্রুপের চ্যাম্পিয়ন এর সাথে খেলা পড়বে ব্রাজিলের। টুর্নামেন্টের একদম শুরুতে নিঃসন্দেহে এত বড় প্রতিপক্ষের বিপক্ষে খেলতে চাইবে না ব্রাজিলিয়ানরা। তাই বিশ্বকাপে ভালো করতে হলে ব্রাজিলের বিপক্ষে এই ম্যাচ জেতার কোনো বিকল্প নেই।

তবে ম্যাচ জেতা নিঃসন্দেহে সহজ হবে না ব্রাজিলের জন্য। সার্বিয়ানরা শেষ পর্যন্ত লড়াই করে অভ্যস্ত, এবং ব্রাজিলের বিপক্ষেও নিশ্চিতভাবেই তাই করবে। বিগত পাঁচ ম্যাচের চারটিতে অপরাজিত থাকা সার্বিয়া, নিশ্চিতভাবেই ছোট করে দেখার মতো দল নয়। ব্রাজিলও নিশ্চয়ই সর্বোচ্চ সতর্কতার সাথেই ম্যাচটি খেলতে নামবে। বাংলাদেশ সময় রাত একটায় শুরু হওয়া ম্যাচে কি হতে চলেছে তা অনুমান করাটা মুশকিল। ব্রাজিলের আরেকটা বিজয় গাঁথা নাকি অঘটনের বিশ্বকাপের সবচেয়ে বড়ঘটন?

পাঠকের মতামত:

খেলা এর সর্বশেষ খবর

খেলা - এর সব খবর



রে