ঢাকা, সোমবার, ৫ ডিসেম্বর ২০২২, ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৯

নাঈমের ব্যাটে রানের ফোয়ারা

২০২২ নভেম্বর ২৫ ১৪:৫৮:২৪
নাঈমের ব্যাটে রানের ফোয়ারা

নাঈম শেখকে নিয়ে একটা সময় কত সমালোচনাই না হয়েছে। ব্যাট হাতে টি-টোয়েন্টি দলের টপ অর্ডার আস্থার প্রতিদান দিতে পারছে না অনেকদিন ধরে। তবুও বারবার তোপ দাগা হয়েছে নাঈমের দিকেই। একপর্যায়ে তো তাকে দলের বোঝা ভাবা শুরু হয়েছিল। শেষপর্যন্ত বিশ্বকাপ দলে জায়গা হারান নাঈম। তবে এই বাদ পড়া যে জিদ তৈরি করেছে তার ভেতরে, তা যেন স্ফুলিঙ্গ হয়ে ধরা দিচ্ছে বিসিএলে, যেখানে অবিশ্বাস্য ছন্দে টানা তিনটি অর্ধশতক হাঁকিয়েছেন এই ওপেনার। জাতীয় দল থেকে বাদ পড়াই কি বের করে আনলো নাঈমের এমন পারফরম্যান্স?

টি-টোয়েন্টি দল থেকে বাদ পড়ার পর বাংলাদেশ 'এ' দলের হয়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজের মাটিতে দারুণ এক শতক হাঁকান নাঈম, ওয়ানডে ম্যাচে। এরপর সুযোগ মেলে এশিয়া কাপে। তবে আফগানিস্তানের বিপক্ষে আবারও ব্যর্থ হলে ওপেনিং জুটি নিয়ে পুরো পরিকল্পনাই বদলে ফেলে টিম ম্যানেজমেন্ট। ফলাফল- বিশ্বকাপ দলেও জায়গা হারাতে হয় নাঈমকে।

এরপর খেলেছেন জাতীয় ক্রিকেট লিগের পুরোটাই। সেখানে একটি শতক ছাড়া বলার মতো কিছু ছিল না। তবে নাঈম যেন বদলে গেলেন আবারও ওয়ানডে ফরম্যাট পেয়ে। বিসিএলে টানা তিনটি অর্ধশতক হাঁকানো ২৩ বছর বয়সী এই ক্রিকেটারের জন্য সবচেয়ে 'পারফেক্ট' ফরম্যাট টি-টোয়েন্টি নাকি ওয়ানডে, নাকি তাকে টেস্ট খেলানো উচিৎ- সেই প্রশ্ন এখন উঠতেই পারে। এমন রান করা ব্যাটার যে জাতীয় দলে খেলার দাবীদার!

দ্বিতীয় রাউন্ডে উত্তরাঞ্চলের প্রতিপক্ষ ছিল মধ্যাঞ্চল। সেই ম্যাচে ৮১ বলের মোকাবেলায় ৬৩ রান করেন পাঁচটি চার ও চারটি ছক্কা হাঁকিয়ে। 'আরেক নাঈম' নাঈম ইসলাম শতকের কারণে পেয়ে যান ম্যাচসেরার পুরস্কার, তবে দলের এই জয়েও নাঈম শেখের অবদান যে বড় ভূমিকা পালন করেছে, তা আলাদাভাবে না বললেও চলে।

নাঈমের ঝলক আবারও দেখা যায় পরের ম্যাচে, বিসিএলের তৃতীয় রাউন্ডে। ইসলামি ব্যাংক পূর্বাঞ্চলের ছুঁড়ে দেওয়া ১৭১ রানের সহজ লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে একটা সময় বেকায়দায় পড়ে গিয়েছিল দক্ষিণাঞ্চল। তবে চাপের মুখে ব্যাট করা তো নাঈমের অভ্যাসে পরিণত হয়েছে! ৯৩ বলে দশটি চার ও দুটি ছক্কার সহায়তায় এবার করেন ৮২ রান। অল্পের জন্য শতক না পেলেও হ্যাটট্রিক ফিফটিতে ফাইনালে তোলার পাশাপাশি দলকে এনে দেন হ্যাটট্রিক জয়, এবার পান ম্যাচ সেরার পুরস্কারটাও।

অবস্থা এমন দাঁড়িয়েছে যে, এই টুর্নামেন্টে নাঈম যত ম্যাচ খেলবেন তত ম্যাচেই যেন পঞ্চাশোর্ধ্ব ইনিংস খেলবেন। অবশ্য নাঈমের হাতে আর মাত্র একটি ম্যাচ আছে। ২৭ নভেম্বরের সেই ফাইনালে আবারও তাদের প্রতিপক্ষ উত্তরাঞ্চল।

টুর্নামেন্টের সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক নাঈম শেখ জাতীয় দলের জার্সিতে ৩৫টি টি-টোয়েন্টি ছাড়াও খেলেছেন একটি টেস্ট ও দুটি ওয়ানডে। যদিও টেস্ট ও ওয়ানডেতে খুব একটা সুবিধা করতে না পারায় দলেও থিতু হতে পারেননি। ভারতের মাটিতে ৮১ রানের ইনিংস খেলে যেভাবে ক্যারিয়ার শুরু করেছিলেন, নাঈম সেই ছন্দ টি-টোয়েন্টিতেও ধরে রাখতে পারেননি। তার ব্যাটিং এপ্রোচ দেখে কেউ কেউ টেস্টে দেখার আবেদন জানালেও শেষপর্যন্ত টেস্ট ক্যারিয়ারও দীর্ঘায়িত হয়নি। কিন্তু বিসিএলে যেভাবে রান করছেন, তাতে তাকে জাতীয় দলে অদূর ভবিষ্যতে ফেরানোর কথা নিশ্চয়ই এতক্ষণে ভাবা শুরু করে দিয়েছেন নির্বাচকরা।

তবে বড় প্রশ্ন হল- কোন ফরম্যাটে খেলানো যেতে পারে নাঈমকে!

পাঠকের মতামত:

খেলা এর সর্বশেষ খবর

খেলা - এর সব খবর



রে