ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ৯ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ২৬ মাঘ ১৪২৯

বিশ্বকাপের আগে চাপের মুহুর্তে সেই ভয়ংকর মুস্তাফিজেরই প্রত্যাবর্তন

২০২২ ডিসেম্বর ০৮ ২১:৩০:৩৭
বিশ্বকাপের আগে চাপের মুহুর্তে সেই ভয়ংকর মুস্তাফিজেরই প্রত্যাবর্তন

আলমের খান: ঘরের মাঠে ভারত সিরিজ, আর মুস্তাফিজকে নিয়ে আলোচনা হবে না তা কি করে হয়? ২০১৫ সালে এই ভারতের বিপক্ষেই নিজের অভিষেক সিরিজে সব মিলিয়ে ১৩ উইকেট শিকার করেছিলেন। প্রথম ওয়ানডেতে পাঁচ উইকেট এবং দ্বিতীয় ওয়ানডেতে ছয় উইকেট। মুস্তাফিজের এই অতিমানবীয় পারফরমেন্সের ফলেই প্রথমবারের মতো ভারতের বিপক্ষে সিরিজ জয়ের স্বাদ পেয়েছিল টাইগাররা।

সাত বছর পর ঘরের মাটিতে সিরিজ, প্রতিপক্ষ আবারও সেই ভারত। মুস্তাফিজের দিকে একটু বাড়তি নজর থাকাটাই তো স্বাভাবিক। ভক্তদের হতাশ করেননি কাটার মাস্টার, প্রথম ম্যাচে ৭ ওভার বল করে ১৯ রান খরচায় উইকেট শূন্য ছিলেন ফিজ। এক প্রান্ত থেকে ফিজের অনবরত ডট বল দেওয়ায় চাপে পড়ে অন্য প্রান্তের বোলারকে আক্রমণ করতে হয় কোহলি-রোহিতদের। ফলস্রুতিতে উইকেট হারায় টিম ইন্ডিয়া।

দ্বিতীয় ম্যাচে আরো ভয়ংকর মুস্তাফিজের দেখা মিলে। ম্যাচের গুরুত্বপূর্ণ ৪৮তম ওভার মেডেন দেন মুস্তাফিজ। ফলে সমীকরণ বেশ কঠিন হয়ে যায় ভারতের জন্য। শেষ ওভারও মুস্তাফিজই করেন, জয়ের জন্য শেষ বলে ছক্কা দরকার ছিল ভারতের। দারুন ইয়র্কার মেরে ভারতের সেই স্বপ্ন চূর্ণ-বিচূর্ণ করে দেন এই ক্রিকেটার। ম্যাচটি বাংলাদেশ জিতে পাঁচ রানে, অর্থাৎ মুস্তাফিজের ৪৮তম ওভারটি মেডেন না হলেই হয়তো বদলে যেত ম্যাচের সমীকরণ। দশ ওভারের কোটা শেষে ৪৩ রান খরচায় এক উইকেট শিকার করেন মুস্তাফিজ। নিয়মিত উইকেট শিকার করতে না পারলেও টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের পর থেকেই নিজেকে ফিরে পাওয়া শুরু করেছেন মুস্তাফিজ।

বলাই বাহুল্য মুস্তাফিজ দেশের ম্যাচ উইনিং বোলার তার অফ ফর্ম মানে গোটা বাংলাদেশের অফ ফর্ম। টেস্ট এবং টি-টোয়েন্টিতে মাঝারি মানের বাংলাদেশ ওয়ানডেতে এক দুর্দান্ত দল। ভারতের বিপক্ষে সিরিজ জিতে তা আবারও প্রমাণ করলো টাইগাররা।

২০২৩ ওয়ানডে বিশ্বকাপ ভারতে, মুস্তাফিজের জন্য আদর্শ কন্ডিশন। ২০২৩ বিশ্বকাপে বাংলাদেশের দারুন কিছু করতে হলে মুস্তাফিজের জ্বলে ওঠার কোনো বিকল্প নেই। তবে শুধু টাইট বোলিং করেই প্রতিপক্ষকে চাপে রাখলে হবে না। বিশ্বকাপে যথা সময়ে উইকেট শিকারও করতে হবে কাটার মাস্টারকে। পরবর্তী বিশ্বকাপে শুধু অংশগ্রহণ করতে নয় সেটি জিততে যাচ্ছে টিম বাংলাদেশ এমন মন্তব্য করেছিলেন ওয়ানডে অধিনায়ক তামিম ইকবাল। অর্থাৎ কম করে হলেও টাইগাররা সেমিফাইনাল খেলবে এমনটি আশা করাই যায়।

তবে টাইগারদের সেই দুর্দান্ত পারফরমেন্সের জন্য সবারই একসাথে জ্বলে উঠতে হবে। মুস্তাফিজ তাদের মধ্যে অন্যতম। বিশ্বকাপের পর থেকে ধারাবাহিকভাবে উন্নতি করছে মুস্তাফিজ। রাতারাতি হয়তো সেই আগের ধারটি ফেরানো যাবে না। তবে এভাবে উন্নতির গ্রাফ উপরে উঠতে থাকলে বিশ্বকাপের সময় দুর্দান্ত এক মুস্তাফিজেরই দেখা মিলবে।

পাঠকের মতামত:

খেলা এর সর্বশেষ খবর

খেলা - এর সব খবর



রে