ঢাকা, সোমবার, ১৫ এপ্রিল ২০২৪, ২ বৈশাখ ১৪৩১

সোহান, রাব্বি, মোসাদ্দেকদের জায়গায় যেভাবে সুযোগ মিলতে পারে নাসিরের

খেলা ডেস্ক . ২৪আপডেট নিউজ
২০২৩ জানুয়ারি ৩০ ২২:০৪:৫১
সোহান, রাব্বি, মোসাদ্দেকদের জায়গায় যেভাবে সুযোগ মিলতে পারে নাসিরের

সময়ের পালা বদলে এই কথাগুলো এখন শুধুই স্মৃতি, খানিকটা মধুর খানিকটা হতাশার। ২০১৮ সালে জাতীয় দল থেকে নাসিরের বাদ পড়ার পর অনেকেই মন্তব্য করে বসেছিলেন আর কখনোই লাল সবুজ জার্সিতে মাঠে নামা হবে না নাসিরের। আপাতদৃষ্টিতে নিন্দুকদের এসব কথা ঠিক বলেই মনে হচ্ছে। তবে একটি কথা ভুলে গেলে চলবে না ক্রিকেট ইজ আ ফানি গেম, এখানে যেকোনো সময় যেকোনো কিছুই ঘটতে পারে।

নাসির হয়তো এই তত্ত্বেই বিশ্বাস করতেন তাই এত শত সমালোচনায় বৃদ্ধ হয়েও নিজেকে শক্ত রেখেছেন। বারবার ফিরে আসার চেষ্টাটুকু চালিয়ে গিয়েছেন। বিগত বছরের জাতীয় লীগ থেকেই দুর্দান্ত ফর্মে দেখা যাচ্ছিল নাসিরকে। ব্যাট এবং বল হাতে প্রায় প্রতি ম্যাচেই অবদান রাখছিলেন এই ক্রিকেটার।

তবে ঘরোয়ালীগ হওয়ায় নির্বাচক,গণমাধ্যম কর্মী কিংবা সমর্থক কারো কাছ থেকেই তেমন কোনো প্রশংসা পাননি এই অলরাউন্ডার। তবে নিজের এই পারফরম্যান্স গুলোকেই আত্মবিশ্বাসের খোরাগ হিসেবে জুগিয়ে আরও বড় মঞ্চ বিপিএল মাতানোর প্রস্তুতি নেন তিনি। বিপিএলে এখন পর্যন্ত খেলা নিজের আট ম্যাচে ২৯১ রান করেন নাসির।

গড় অবিশ্বাস্য ৫৮.২০, স্টাইক রেট ১২৫ যা বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটে যথেষ্ট সন্তোষজনক। এখন পর্যন্ত দুটি পঞ্চাঊর্ধ্ব ইনিংস খেলেছেন ডানহাতি এই ব্যাটার। শুধু রান করেই থেমে থাকেননি নাসির, প্রতিটি ম্যাচেই বল হাতেও রেখেছেন গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা। নিজের খেলা ৮ ম্যাচে নাসিরের উইকেট সংখ্যা ১১। ইকোনমি ৭.২৪ এবং বোলিং গড় ১৩.৮২।

বিপিএলে এখন পর্যন্ত তৃতীয় সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহের পাশাপাশি তৃতীয় সর্বোচ্চ উইকেট শিকারিও নাসির হোসেন। পূর্ণাঙ্গ অলরাউন্ড পারফরমেন্সের যথার্থ উদাহরণ নাসিরের এই পারফরম্যান্স। যে ফর্মে রয়েছেন এই ক্রিকেটার তাতে একসাথে সর্বোচ্চ উইকেট শিকারী এবং সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক হলেও অবাক হওয়ার কিছু নেই।

অবশ্য এখন পর্যন্ত বিশ্বের কোনো ফ্র্যাঞ্চাইজি লিগেই এমন বিরল ঘটনা ঘটেনি। নাসিরের এই পারফরম্যান্সের পর নির্বাচকদের হাতে এই ক্রিকেটারকে এড়িয়ে যাওয়ার কোনো সুযোগ বোধ হয় আর রইল না। জাতীয় দলের হয়ে ধুকতে থাকা মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যান রাব্বি, সোহান এবং মোসাদ্দেকের জায়গার ভালো বিকল্প হতে পারেন নাসির।

জাতীয় দলের এসব মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যানরা কেউই বিপিএলে তেমন কোনো পারফরম্যান্স দেখাতে পারছেন না। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটেও তাদের পারফরম্যান্স যথেষ্ট অধারাবাহিক। ২০২৩ বিশ্বকাপকে সামনে রেখে এখন থেকেই নির্বাচনকৃত ক্রিকেটারদের যথার্থ তৈরীর উদ্যোগ নিতে হবে টিম ম্যানেজমেন্টের। সেক্ষেত্রে রাব্বি,সোহান এবং মোসাদ্দেকের পাশাপাশি মিডল অর্ডারের জন্য নিশ্চিতভাবেই বিবেচনায় থাকার দাবীদার নাসির।

বাংলা টাইগার্স কিংবা এ দলের হয়েও নাসিরের পারফরমেন্স আরেকবার পরখ করে নিতে পারেন নির্বাচকেরা। সেখানে নাসিরকে নিজের সেরা ছন্দে দেখা গেলে পরবর্তীতে জাতীয় দলে না নিয়ে আসার আর কোনো কারণই থাকবে না। নিজের এই ফর্ম নাসির দীর্ঘ সময় ধরে রাখতে পারেন কিনা এটাই এখন দেখার পালা। যদি ধরে রাখতে পারেন তাহলে হয়তো দৃশ্যপটের বাইরে থাকা নাসির হঠাৎই বনে যেতে পারেন ২০২৩ বিশ্বকাপে বাংলাদেশের ট্রাম্প কার্ড।

আপনার জন্য বাছাই করা কিছু নিউজ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



রে