ঢাকা, সোমবার, ২৭ মে ২০২৪, ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

ম্যাচ শুরুর আগে চেন্নাই শিবিরে অবসরের গুঞ্জন, অবসরের পথে এই তারকা ক্রিকেটার

খেলা ডেস্ক . ২৪আপডেট নিউজ
২০২৩ মে ২৮ ২০:২২:০২
ম্যাচ শুরুর আগে চেন্নাই শিবিরে অবসরের গুঞ্জন, অবসরের পথে এই তারকা ক্রিকেটার

আইপিএলের ১৬ তম আসরের ফাইনাল ম্যাচে মুখোমুখি হতে যাচ্ছে ডিফেন্স চ্যাম্পিয়ন গুজরাট টাইটেন্স এবং আসরের শক্তিশালী দল চেন্নাই সুপার কিং। ফাইনাল এই ম্যাচে গুজরাট টাইটেন্স দ্বিতীয়বারের মতো চ্যাম্পিয়ন হওয়ার সুযোগ হাতছাড়া করতে চাইবে না। অন্যদিকে চেন্নাই সুপার কিংস জয় নিয়ে মাঠ ছাড়তে চায়। সুতরাং আজকের এই ম্যাচটি হতে যাচ্ছে বাঘে বাঘের লড়াই।

ভারতের আহমেদাবাদের নরেন্দ্র মোদী স্টেডিয়ামে আর কিছুক্ষণের মধ্যেই দশমবারের জন্য আইপিএল ফাইনালে মাঠে নামতে চলেছে চেন্নাই সুপার কিংস। খেতাবী যুদ্ধে তাদের প্রতিপক্ষ গুজরাত টাইটান্স। আজকে জিতলে পঞ্চমবারের জন্য ট্রফি জিতবে চেন্নাই। টুর্নামেন্টের সফলতম দল হিসেবে মুম্বই ইন্ডিয়ান্সের একাধিপত্বের অবসান ঘটিয়ে রোহিত শর্মাদের সাথে এক আসনে বসবে তারা। এবারের আইপিএলের শেষেই ক্রিকেটকে বিদায় জানাতে পারেন চেন্নাই অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনি।

মরসুমের শুরু থেকেই ক্রিকেটমহলের অলিন্দে কান পাতলে শোনা যাচ্ছে এমনই ফিসাফাস। প্রিয় তারকাকে শেষবার ব্যাট হাতে দেখতে প্রতি ম্যাচেই উপচে পড়ছে ভীড়। আজ খেলা শেষে তাঁর হাতে ট্রফি দেখতে চাইছেন ক্রিকেট দর্শকদের একটা বড় অংশ।

গতবছর পারফর্ম্যান্স একদমই ভালো ছিলো না চেন্নাইয়ের। দশ দলের লীগে তারা শেষ করেছিলো নবম স্থানে। সেই ব্যর্থতা ভুলে এবার নতুন উদ্যম সাথে নিয়ে ঝাঁপিয়েছিলো তারা। প্রথম ম্যাচে হারলেও তারপর আস্তে আস্তে ঘুরে দাঁড়িয়েছিলো সুপার কিংসরা। কোনো একজন তারকার উপর নির্ভর করে নয়, বরং টিম গেমকে সম্পদ করেই দেখতে দেখতে শেষ চারের যোগ্যতা অর্জন করে তারা।

প্রথম কোয়ালিফায়ার ম্যাচে টুর্নামেন্টের সবচেয়ে ধারবাহিক দল গুজরাত টাইটান্সকে ১৫ রানে হারিয়ে সরাসরি পা রাখে ফাইনালে। আজ অর্থাৎ রবিবার সেই গুজরাতের বিরুদ্ধেই খেতাবী লড়াইয়ের প্রস্তুতিতে ব্যস্ত সুপার কিংসরা। খেলা শুরুর ঘন্টাখানেক আগে বিষাদের সুর শোনা গেলো মহেন্দ্র সিং ধোনিদের শিবির থেকে। ধোনি নিজে এখনও নিজের ক্রিকেট ভবিষ্যত সম্পর্কে কিছু না জানালেও বিদায়ের ঘোষণা করলেন অম্বাতি রায়ড়ু।

২০১০ থেকে ২০২৩, দীর্ঘ চোদ্দ বছরের পথচলা অবশেষে থামতে চলেছে। আজকের ফাইনালের পরেই আইপিএলের দুনিয়াকে চিরতরে বিদায় জানাতে চলেছেন অম্বাতি রায়ডু। মুম্বই ইন্ডিয়ান্সের হয়ে পথচলা শুরু করেছিলেন তিনি। প্রথম মরসুমেই ১৪ ম্যাচে করেছিলেন ৩৫৬ রান।

স্ট্রাইক রেট ছিলো ১৪৪.৭১। এরপর যত সময় এগিয়েছে ততই মিডল অর্ডারে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করে তুলেছিলেন তিনি। ২০১৩ সালে মুম্বই যখন প্রথম আইপিএল জেতে তখন সেই খেতাবজয়ী দলের সদস্য ছিলেন তিনি। এরপর মুম্বইয়ের জার্সিতে ২০১৫ এবং ২০১৭ সালেও আইপিএল ট্রফি জেতেন রায়ডু। ২০১০ থেকে ২০১৭ সালের মধ্যে মুম্বই জার্সিতে মোট ২৪১৬ রান করেন তিনি।

২০১৮ সালের নিলামে তাঁকে দলে সামিল করে চেন্নাই সুপার কিংস। হলুদ জার্সিতেও নিজেকে মেলে ধরেন তিনি। চেন্নাইয়ের হয়ে প্রথম মরসুমেই নিজের আইপিএল কেরিয়ারের সেরা ব্যাটিং করতে দেখা যায় তাঁকে। করেন ১৬ ম্যাচে ৬০২ রান। আইপিএলে তাঁর একমাত্র শতরানটিও আসে এই বছরেই। এরপরে আর পিছন ফিরে তাকাতে হয় নি তাঁকে। ২০২৩ অবধি অধিনায়ক ধোনির অতি বিস্বস্ত সেনানী থেকেছেন তিনি।

এই বছর ইম্প্যাক্ট প্লেয়ার হিসেবে প্রধানত ব্যাটিং করছেন রায়ডু। ১৫ ম্যাচে করেছেন ১৩৯ রান। ব্যাটিং গড় ১৫.৪৪। ফর্ম যে সাথে দিচ্ছে না তা বিলক্ষণ বুঝেছেন তিনি। ফলে সরে যাওয়ার এটাই সঠিক সময় বলে মনে করেছেন তিনি। সোশ্যাল মিডিয়ায় ফাইনালের কিছুক্ষণ আগে পোস্ট করে আইপিএল থেকে অবসর নেওয়ার কথা ঘোষণা করেছেন তিনি। আবেগঘণ পোস্টে ধন্যবাদ জানিয়েছেন চেন্নাই এবং মুম্বই দলকে।

ধন্যবাদ জানিয়েছেন সমর্থকদেরও। কেরিয়ারে ২০৩ ম্যাচে ৪৩২৯ রান সঙ্গে নিয়ে আইপিএলকে বিদায় জানাচ্ছেন তিনি। করেছেন ১টি শতরান এবং ২২টি অর্ধশতক। এর আগে পাঁচবার আইপিএল ট্রফি জিতেছেন রায়ডু, ষষ্ঠ খেতাব জিতে বিদায়টাও স্মরণীয় করে রাখতে চাইবেন তিনি।

আপনার জন্য বাছাই করা কিছু নিউজ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



রে