ঢাকা, বুধবার, ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১৬ ফাল্গুন ১৪৩০

দীর্ঘ ৫৯ বছরের ইতিহাস বদলানোর অপেক্ষায় পাকিস্তান

খেলা ডেস্ক . ২৪আপডেট নিউজ
২০২৩ নভেম্বর ৩০ ১০:২৪:১৫
দীর্ঘ ৫৯ বছরের ইতিহাস বদলানোর অপেক্ষায় পাকিস্তান

পাকিস্তান অস্ট্রেলিয়ায় শেষ কবে টেস্ট জিতেছিল? এমন প্রশ্ন করা হলে দেশের ক্রিকেট ভক্তরা অবশ্যই একটু বিব্রত হবেন। ১৯৬৪ থেকে ২০২৩ এই ৫৯ বছরে, পাকিস্তান টেস্ট খেলতে ১৪ বার অস্ট্রেলিয়ায় গেছে। সেখানে ১১ জন অধিনায়ক ছিলেন। এবং শেষ জয়টি ছিল সিডনি টেস্টে যা শুরু হয়েছিল ৩০ নভেম্বর ১৯৯৫ সালে।

সেই পাকিস্তান দলের অধিনায়ক ছিলেন ওয়াসিম আকরাম। এরপর দলে জায়গা পান আমির সোহেল, ইজাজ আহমেদ, সেলিম মালিক, ওয়াসিম-ওয়াকাররা। ৬টি টেস্ট ও ১৬টি টেস্ট খেলার পর কোনো ম্যাচেই জিততে পারেনি পাকিস্তান। আরও বড় কথা, গত ৫৯ বছরে অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে কখনোই সিরিজ জিততে পারেনি পাকিস্তান। তিনবার ড্র হয়েছে। সেটাও ১৯৭৮-৭৯ মৌসুমে। অধিনায়ক ছিলেন মোশতাক মোহাম্মদ। আর গ্রেট ইমরান খান এখনও একজন পরিণত খেলোয়াড় হওয়ার অপেক্ষায় ছিলেন।

পরিসংখ্যানের পাতা থেকে পাওয়া এসব তথ্যই বলে দিতে পারে অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে পাকিস্তানের নাজুক ইতিহাস। ক্রিকেটে ধনী দেশ হয়েও অজিদের মাটিতে বরাবরই হেরেছে পাকিস্তান। আর ভাগ্য এমন যে বিশ্বকাপে ব্যর্থতার পর অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে টেস্ট দিয়েই ক্রিকেটে কামব্যাক করতে হচ্ছে পাকিস্তানকে।

কিন্তু দেশ ছাড়ার আগে পাকিস্তানের নতুন টেস্ট অধিনায়ক শান মাসুদ জানালেন, ৬ দশকের এই ইতিহাসটাই তিনি এখন মুছতে চান, ‘যখন আপনি ইতিহাসে কোনো কিছুই অর্জন করতে পারেননি, তখন আপনার সামনে সুযোগ আছে সেটি বদলানোর। আমরা পাকিস্তানের জন্য ওয়ার্ল্ড টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপে ইতিবাচক ফল আনার চেষ্টা করব।’

অস্ট্রেলিয়ার টেস্ট নিয়ে স্বাভাবিকভাবেই হতাশা আছে পাকিস্তান ভক্তদের। এবারের সিরিজটায় ভক্তদের মনটাই যেন জয় করতে চান শান, ‘আমরা এমন ক্রিকেট খেলতে চাই, যেটি আমাদের সমর্থকেরা উপভোগ করতে পারে। আমাদের সমর্থকেরা প্রচেষ্টা ও লড়াই চায় আমাদের কাছ থেকে এবং প্রতিদিনের ফলের চেয়ে সেটিই বেশি গ্রহণযোগ্য তাদের কাছে। আমাদের সমর্থকদের চাহিদার সঙ্গে যায় এমন ব্র্যান্ড ও স্টাইলের ক্রিকেট খেলতে চাই। তেমন করতে পারলে ফল আসবে।’

উপমহাদেশের চেয়ে পিচ ভিন্ন, কন্ডিশন ভিন্ন। অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে বল খুব দ্রুত আসে, বাউন্সও থাকবে প্রচুর। পাকিস্তানের জন্য বড় সমস্যা সেখানেই। যদিও অধিনায়ক জানিয়েছেন এমন কিছুর জন্যেও তারা প্রস্তুত, ‘আমরা রাওয়ালপিন্ডিতে আমাদের অনুশীলন ক্যাম্পে অস্ট্রেলিয়ান কন্ডিশন অনুকরণ করতে চেয়েছি, যাতে বাউন্সি পিচ ছিল। আমরা ঘাস রেখে দিয়েছিলাম, গতি ও বাউন্স আনতে সে অনুযায়ী রোল করেছি। ম্যাচ পরিস্থিতিতে খেলেছি, ঘরোয়া ক্রিকেটে ভালো করা বোলারদের ডেকেছি।’

বিশ্বকাপের ভরাডুবির পর রীতিমতো পাল্টে ফেলা হয়েছে পাকিস্তানের ক্রিকেটকে। এসেছে নতুন অধিনায়ক। সঙ্গে আছে নতুন কোচ। সব বদলে ফেলা পাকিস্তান এবার অস্ট্রেলিয়ায় ইতিহাস বদলাতে পারে কিনা সেটাই দেখার বিষয়।

আপনার জন্য বাছাই করা কিছু নিউজ



রে