ঢাকা, শুক্রবার, ২১ জুন ২০২৪, ৭ আষাঢ় ১৪৩১

অবিবাহিত ছেলে-মেয়েকে বিয়ে করলেই লাখ টাকা

লাইফস্টাইল ডেস্ক . ২৪আপডেট নিউজ
২০২৩ নভেম্বর ৩০ ১৯:১২:৩৬
অবিবাহিত ছেলে-মেয়েকে বিয়ে করলেই লাখ টাকা

বিয়ের এক অদ্ভুত প্রথা বহু শতাব্দী ধরে চলে আসছে। যা পিল শকের ঘটনাকেও হার মানায়। এ ধরনের বিয়েতেও টাকার বিনিময় হয়। এই অদ্ভুত বিয়ে এশিয়ার দেশ চীনে প্রচলিত।

বিয়ের এই অদ্ভুত প্রথা মূলত মৃত ছেলে-মেয়েদের। এই বিয়েতে একজন মৃত ব্যক্তির সাথে অন্য মৃত ব্যক্তির বিয়ে হয়। কখনও কখনও মৃতদের বিয়ে হয় জীবিতদের সাথে। এমন বিয়ের প্রথার কথা শুনে সারা বিশ্বের মানুষ অবাক।

এই প্রথাটিকে বলা যেতে পারে বিশ্বের অন্যতম অদ্ভুত প্রথা। শতাব্দীর পর শতাব্দী ধরে, এই অদ্ভুত প্রথাটি ভূতের বিয়ে নামে বিশ্বে পরিচিত। কিভাবে এই অনন্য বিবাহের শুরু? ইতিহাস থেকে জানা যায় যে এই বিয়ের প্রথা প্রথম শুরু হয়েছিল চীনের সং রাজবংশে। ১৬০০-১০৪৬ খ্রিস্টপূর্ব এই বিয়েটি আগে মিয়াং খুন বা 'মৃতদের বিয়ে' নামে পরিচিত ছিল।

সম্রাট চাও চাও-এর ১২ বছর বয়সী ছেলে হঠাৎ মারা গেলে, সম্রাট তার মৃত ছেলেকে একটি জীবিত মেয়ের সাথে বিয়ে দেন। তারপর থেকে চীনা সমাজে এই বিয়ের প্রথা চালু রয়েছে। মৃত ছেলে বা মেয়ের বিয়ের প্যাটার্ন এখন পর্যন্ত এই বিয়েকে চীনে তিনভাবে দেখা গেছে।

উদাহরণ স্বরূপ- ১. সাধারণত পরিবার অবিবাহিত মৃত পুত্র বা মৃত কন্যার পরিবারের সাথে একটি সমঝোতামূলক বিবাহের ব্যবস্থা করে। মৃত বর-কনের বিয়েতে খুশি পরিবারের সদস্য ও আমন্ত্রিত অতিথিরাও।

২. মৃত ছেলে বা মেয়ের জন্য কোন মৃত মেয়ে বা মৃত ছেলের পরিবার পাওয়া না গেলে, কবরস্থান থেকে লাশ চুরি করে বিয়ে করা হয়। এ কারণে চীনে প্রায়ই কবর থেকে মৃতদেহ চুরি হয়।

৩. কখনও কখনও একটি জীবিত মেয়ে বা ছেলে একটি মৃত ছেলে বা মেয়েকে বিয়ে করা হয়। এ বিয়ের ফাঁদ পাড়ে নিহতের পরিবার। একটি বিশেষ ফাঁদে লাল খামে মোটা অঙ্কের টাকা ভরে সেই খামটি রাস্তায় ফেলে দেওয়া হয়। এরপর পেছনে দাঁড়ায় নিহতের বর-কনের পরিবার। যদি কোন অবিবাহিত মেয়ে বা ছেলে এই খামটি তুলে নেয় তবে মৃত বরকে জোর করে তার সাথে বিয়ে দেওয়া হয়। কেন এই বিয়ে?

মৃত অবিবাহিত ছেলে বা মেয়ের পরিবারের সদস্যরা মনে করেন তাদের সন্তানের অবশ্যই কোনো না কোনো সঙ্গী থাকবে। অন্যদিকে তারা একা নয়। বিবাহিত লোকটি নববধূর সাথে সুখে থাকে। এই বিয়ের তথ্য দিলে টাকা! ভূতের বিয়ে প্রায় তিন হাজার বছরের পুরনো ঐতিহ্য। সময়ের সাথে সাথে এই বিয়েতে যোগ হয় কোটি কোটি টাকা।

মৃত মেয়ের পরিবার যদি মৃত ছেলের পরিবারকে জানায় বা মৃত ছেলের পরিবার মৃত মেয়ের পরিবারকে জানায়, তাহলে ওই ব্যক্তি মোটা অঙ্কের নগদ পাবেন। লাশ পেয়েও লাখ লাখ টাকা আয় করা যায়। মৃতদেহ সম্পর্কে চীনের সাংক্সি হাসপাতালের এক কর্মকর্তা নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন, 'যখনই হাসপাতালে কোনো অবিবাহিত মেয়ে মারা যায়, তখনই ভূতের বিয়ের জন্য তার লাশ নিলাম করা হয়। মেয়েকে পাওয়ার জন্য মৃত ছেলের পরিবারগুলো লড়াই চালিয়ে যাচ্ছে।

বিয়ের জন্য মৃতদেহের দাম সম্পর্কে সাংহাই বিশ্ববিদ্যালয়ের চীনা বিভাগের প্রধান হুয়াং জিংচুন বলেন, অবিবাহিত মৃত মেয়েদের হাড়ের দাম ছেলেদের তুলনায় অনেক বেশি। মৃত মেয়েটি অল্পবয়সী এবং সুন্দরী হলে, ভাল বংশের সাথে, লাশের দাম বাড়ে।

সমীক্ষা অনুসারে, ছেলের পরিবার মৃত মেয়ের হাড়গুলি ৩০,০০০ থেকে ৫০,০০০ ইউয়ান দিয়ে কিনে। অনেক ক্ষেত্রে এই পরিমাণ ১ লাখ ইউয়ান পর্যন্ত যেতে পারে। এটা কি ধরনের বিয়ে? বিয়ের জন্য পাত্র-পাত্রী পাওয়া গেলে পরিবারগুলো পুরোহিতের সাথে পরামর্শ করে বিয়ের ব্যবস্থা করে। কি হবে এই বিয়েতে?

অবিবাহিত মৃত ছেলে-মেয়েদের বিয়ে অন্যান্য সাধারণ বিয়ের মতোই করা হয়। বিয়ের অনুষ্ঠানে পরিবারের সকল সদস্য ও বন্ধুদের আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে। সকল ধর্মীয় আচার-অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে মৃতের বিয়ে সম্পন্ন হয়। এই বিয়ের প্রথা শুধু চীনেই নয়, আফ্রিকাতেও এই অদ্ভুত বিয়ের অস্তিত্ব পাওয়া যায়।

আপনার জন্য বাছাই করা কিছু নিউজ



রে