ঢাকা, রবিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১২ ফাল্গুন ১৪৩০

বিরাট-রোহিতের ক্যরিয়ার শেষ, নতুন ১৩ সদস্য নিয়ে দল ঘোষণা করলো ভারত

খেলা ডেস্ক . ২৪আপডেট নিউজ
২০২৩ ডিসেম্বর ০১ ১০:২৭:২৯
বিরাট-রোহিতের ক্যরিয়ার শেষ, নতুন ১৩ সদস্য নিয়ে দল ঘোষণা করলো ভারত

হোয়াইট বলের ক্যারিয়ার শেষ! দেশে ওয়ানডে বিশ্বকাপের পর থেকেই বিরাট কোহলি ও রোহিত শর্মার সাদা বলের ক্যারিয়ার নিয়ে জল্পনা শুরু হয়েছে। দুই ক্রিকেটারই কি এখন থেকে শুধু লাল বলের ক্রিকেটই খেলবেন?

বিরাট কোহলি এবং রোহিত শর্মা কি সাদা বলের ক্রিকেটে তাদের ক্যারিয়ার শেষ করেছেন? দেশের মাটিতে ওয়ানডে বিশ্বকাপের পর প্রশ্নটা বেশি করে করা হচ্ছে। দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে ঘোষিত ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি দলে নেই রোহিত, কোহলি। এরপরই জল্পনা বেড়ে যায়।

বিশ্বকাপের পর বিরাট বোর্ডকে লাল বলের ক্রিকেটে মনোযোগ দেওয়ার আহ্বান জানান। তাই দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে সাদা বলের ক্রিকেটে তার থাকা উচিত নয়। বোর্ড সেই আবেদন মঞ্জুর করেছে। রোহিত কি একই রকম অনুরোধ করেছিলেন? স্কোয়াড ঘোষণার পর বোর্ড জানিয়েছে, বিরাটের মতো রোহিতও সাদা বলের ক্রিকেট না খেলতে অনুরোধ করেছেন। কিন্তু দল ঘোষণার আগেই শোনা গিয়েছিল টি-টোয়েন্টিতে রোহিতকে অধিনায়ক করা হবে। হঠাৎ ছবিটা কেমন বদলে গেল? তা হলে রোহিতের অনুরোধ অনুযায়ী তাকে বিশ্রাম দেওয়া হয়েছিল! নাকি ম্যানেজমেন্ট শেষ পর্যন্ত তাকে বের করে দিয়েছে!

তবুও বিরাট এবং রোহিতকে শেষবার 2022 টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে বাইশ ফর্ম্যাটে খেলতে দেখা গিয়েছিল। এরপর থেকে জাতীয় দলের জার্সিতে সংক্ষিপ্ত ফরম্যাটে খেলেননি তিনি। দক্ষিণ আফ্রিকা সফরকারী দলটি অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে খেলছে। এমনকি কম ক্রিকেটার নেওয়া হয়েছে। তবে তাদের বেশিরভাগই তরুণ। বোর্ডের সিদ্ধান্তে এটা স্পষ্ট যে তারা টি-টোয়েন্টিতে তরুণদের ওপর নির্ভর করছে। তরুণ হওয়া সত্ত্বেও রিংকু সিং ও তিলক ভার্মার আইপিএলে খেলার কারণে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটারদের বিপক্ষে খেলতে কোনো সমস্যা নেই। আগামী বছর টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ। তাই ভারত এখন থেকে দল গঠন করতে চায়। বোঝাই যাচ্ছে বিরাট, রোহিতের জায়গা নেই।

তবে দুজনই বিশ্বকাপে ওয়ানডে ক্রিকেটও খেলেছেন। তাছাড়া বিশ্বকাপে সর্বোচ্চ রানের তালিকায় প্রথম দুই অবস্থান ধরে রেখেছে তারা। তা হলে বোর্ড কেন পরিবর্তন করতে চাইবে?

উত্তর হয়তো ভবিষ্যতেই পাওয়া যাবে। এরপর ভারত খেলবে আইসিসি টুর্নামেন্টে চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি। রোহিত ও বিরাটও সেদিন দুই বছরের বড় হবেন। রোহিতের বয়স হবে ৩৮ বছর। বিগ 37 এই বয়সে টেস্ট ক্রিকেটের পাশাপাশি ওয়ানডে ক্রিকেটের চাপ নিতে পারবেন কিনা সন্দেহ। এছাড়া টেস্ট দলে অভিজ্ঞতা প্রয়োজন বলে বিরাট ও রোহিতের হওয়া উচিত। চেতেশ্বর পূজারা এবং অজিঙ্কা রাহানের টেস্ট ক্যারিয়ার ইতিমধ্যেই শেষ হয়ে যাচ্ছে। দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে যেতে পারেননি তিনি। তাই রোহিত, বিরাটকে খেলতে হবে অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যান হিসেবে। এ কারণে দুই ক্রিকেটারের ওপর চাপ কমাতে এক ফরম্যাটে খেলতে চায় ম্যানেজমেন্ট।

বিরাট, রোহিতও তাই চায়? একটি নির্দিষ্ট বয়সের পর ক্রিকেটারদের বেছে নিতে হবে তারা কোন ফরম্যাটে ফোকাস করবেন। সেখানে টেস্ট ক্রিকেটই তার আদর্শ জায়গা। কারণ লাল বলের ক্রিকেটে শুধু শক্তি নয়, মানসিক শক্তি ও অভিজ্ঞতারও প্রয়োজন। নতুন প্রজন্মকে শেখাতে হবে। বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ এখন চলছে, প্রতিটি সিরিজই গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠেছে। সেই কারণেই হয়তো বিরাট, রোহিতও বোঝেন যে এবার তাদের ধীরে ধীরে একটাই ফরম্যাটের দিকে যেতে হবে। কিন্তু বোর্ড সেই সংকেত দিচ্ছে।

দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে ভারত টি-টোয়েন্টি দল: সূর্যকুমার যাদব (অধিনায়ক), রবীন্দ্র জাদেজা (সহ-অধিনায়ক), ইয়াস্বী জয়সওয়াল, শুভমান গিল, রুতুরাজ গায়কওয়াড়, তিলক ভার্মা, রিংকু সিং, শ্রেয়াস আইয়ার, ইশান কিশান, জিতেশ শর্মা, ওয়াশিংটন সুন্দর, রবি বিষ্ণোনি। , কুলদীপ যাদব, আরশদীপ সিং, মোহাম্মদ সিরাজ, মুকেশ কুমার, দীপক শাহার।

দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে ভারতের ওডিআই স্কোয়াড: লোকেশ রাহুল (অধিনায়ক), রুতুরাজ গায়কওয়াড়, সাই সুদর্শন, তিলক ভার্মা, রজত পতিদার, রিংকু সিং, শ্রেয়াস আইয়ার, সঞ্জু স্যামসন, অক্ষর প্যাটেল, ওয়াশিংটন সুন্দর, কুলদীপ যাদব, যুজবেন্দ্র চাহাল, মুকেশ কুমার, অবেশ খান, আরশদীপ সিং, দীপক চর।

আপনার জন্য বাছাই করা কিছু নিউজ



রে