ঢাকা, বুধবার, ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১৫ ফাল্গুন ১৪৩০

মেয়েদের মুখে হাসি ফুটিয়েই ছাড়লেন জুনিয়র মেসি

খেলা ডেস্ক . ২৪আপডেট নিউজ
২০২৩ ডিসেম্বর ০৬ ১৬:২০:৫৭
মেয়েদের মুখে হাসি ফুটিয়েই ছাড়লেন জুনিয়র মেসি

থিয়াগোর জন্মের সময় মেসি বার্সেলোনার হয়ে খেলছিলেন। এরপর তিনি সপরিবারে প্যারিসে যান। কিন্তু থিয়াগো প্যারিস ছেড়ে মিয়ামিতে যেতে চাননি। তাকে বুঝিয়ে দিলেন মেসি। কারণ জুনিয়র মেসি তার শৈশবের বেশিরভাগ সময় সেখানেই কাটিয়েছেন। ফলস্বরূপ, ছোট্ট থিয়াগোর জন্য হঠাৎ একটি পরিচিত জায়গা ছেড়ে যাওয়া কঠিন ছিল। ১১ বছর বয়সী থিয়াগো তার বাবার মতো ফুটবলার হতে চায়। তাই এখন থেকে ফুটবল খেলা শুরু করেন। মাঝে মাঝে মেসি এবং তার স্ত্রী আন্তোনেল্লা রোকুজ্জো তাদের ছেলের খেলা দেখতে গ্যালারিতে আসতেন।

নাম লিওনেল মেসি। তার পায়ের জাদুতে মুগ্ধ ফুটবল বিশ্ব। কারও কাছে তিনি ঈশ্বর, কারও কাছে অনুপ্রেরণা এবং পুরুষদের কাছে মেসি মানেই ভালোবাসা। মহিলারা তাকে নিয়ে পাগল। নারী ভক্তরাও মেসির জাদুতে পাগল। লিওনেল মেসি বাবা হলে ছেলে চমক দেখাবে নাকি? এবার মেয়েদের নজর জুনিয়র মেসির দিকে। সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল একটি ভিডিও। যেটিতে দেখা যায় মেসির ছেলে থিয়াগো (থিয়াগো মেসি) কর্নার কিক দিয়ে মেয়েদের পাগল করে দিচ্ছে। এই ভিডিওতে আর কি আছে?

১১ বছর বয়সী থিয়াগো তার বাবার দেখানো পথ অনুসরণ করছে। মিয়ামির হেরন ফুটবল একাডেমিতে প্রশিক্ষণ নিচ্ছেন জুনিয়র মেসি। তিনি ইন্টার মিয়ামির যুব একাডেমিতেও খেলেন। অল্প বয়স হলেও বর্তমানে থিয়াগো ফুটবলে আগ্রহী। সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল একটি ভিডিও। মনে হচ্ছে তিনি কর্নার কিক নিচ্ছেন। তার পাশে কয়েকটা মেয়ে বসে ছিল। থিয়াগোর শটে হেসেছিল তারা। এই ভিডিও দেখার পর নেটিজেনরা বলছেন, থিয়াগো তার বাবার দিকে এগোচ্ছেন। এই বয়সে যদি মেয়েদের মস্তিষ্ক নষ্ট হয়ে যায়, তাহলে ভবিষ্যতে কী হবে?

আপনার জন্য বাছাই করা কিছু নিউজ



রে