ঢাকা, রবিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১২ ফাল্গুন ১৪৩০

রিলিজ তালিকায় যে তিনটি বড় ভুল কলকাতার

খেলা ডেস্ক . ২৪আপডেট নিউজ
২০২৩ ডিসেম্বর ০৯ ১৩:৫৮:৫৯
রিলিজ তালিকায় যে তিনটি বড় ভুল কলকাতার

বিশ্বকাপ শেষ। ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগ অনুষ্ঠিত হয়েছে ক্রিকেটপ্রেমীদের প্রশিক্ষণ কেন্দ্রে। বিশ্বের সবচেয়ে জনপ্রিয় ফ্র্যাঞ্চাইজি ক্রিকেট প্রতিযোগিতার সপ্তদশ আসর শুরু হতে এখনও কয়েক মাস বাকি। বোর্ড অফ কন্ট্রোল ফর ক্রিকেট ইন ইন্ডিয়ার কাছে পাওয়া তথ্য অনুসারে, আইপিএল মার্চের শেষের দিকে বা এপ্রিলের শুরুতে শুরু হতে পারে। কিন্তু এখন 'মিনি' নিলাম ঘনিয়ে আসায় উত্তেজনার পারদ চড়ছে। গত বছর কেরালার কোচিতে মিনি নিলাম অনুষ্ঠিত হয়েছিল। তা এখন দেশ ছাড়িয়ে বিদেশেও চলে গেছে। মধ্যপ্রাচ্যের দুবাইতে ১৯ ডিসেম্বর নিলাম টেবিলে দশটি ফ্র্যাঞ্চাইজি মুখোমুখি হবে।

২০১২ ও ২০১৪ সালের চ্যাম্পিয়ন কলকাতা নাইট রাইডার্স দীর্ঘ সময় খেতাবের মুখ দেখে নি। ২০২১ সালে ফাইনালে পা রেখেও হারতে হয়েছে চেন্নাই সুপার কিংসের কাছে। ব্যর্থতার ধারাবাহিক ছবিতে খানিক বদল আনতে মরিয়া নাইট শিবির। গত মরসুমে প্রশ্ন ছিলো দলগঠন নিয়ে। মাঠের পারফর্ম্যান্সেও তার প্রতিফলন দেখা গিয়েছিলো। এবার আর কোনোরকম ফাঁক রাখতে রাজী নন শাহরুখ খান, জুহি চাওলা’রা। আটঘাট বেঁধেই নিলামের আসরে নামতে চাইছেন তাঁরা। গত ২৬ নভেম্বর রিলিজ-রিটেনশন তালিকা প্রকাশ করা হয়েছে। নাইট বাহিনী ধরে রেখেছে ১৩ জন’কে। ছেড়েছে ১২ জনকে। এই ১২ জনের মধ্যে অন্তত তিনজনের দ্বিতীয় সুযোগ প্রাপ্য ছিলো বলে মত বিশেষজ্ঞদের।

গত মরসুমে দিল্লী ক্যাপিটালস থেকে ট্রেডিং পদ্ধতিতে পেস বোলিং অলরাউন্ডার শার্দুল ঠাকুরকে দলে নিয়েছিলো কলকাতা নাইট রাইডার্স । ১০ কোটি ৭৫ লাখ টাকা খরচ করতে হয়েছিলো শাহরুখ খান জুহি চাওলা’র ফ্র্যাঞ্চাইজিকে। বেগুনি-সোনালী জার্সিতে সেরা ছন্দে দেখা যায় নি তাঁকে। ১১ ম্যাচ খেলে মাত্র ১১৩ রান করেছেন তিনি। বল হাতে ৩১.৪৩ গড়ে নিয়েছেন মাত্র ৭টি উইকেট। রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরুর। বিরুদ্ধে ইডেন গার্ডেন্সে একটি ধুন্ধুমার ৬৩ রানের ইনিংস ছাড়া কোনো উল্লেখযোগ্য পারফর্ম্যান্স দেখা যায় নি তাঁর থেকে। ১০.৭৫ কোটির শার্দুলকে তাই ধরে রাখার কথা ভাবে নি কলকাতা। কুলবন্ত খেজরোলিয়া, টিম সাউদী, লকি ফার্গুসনদের সাথে শার্দুলকেও রাখা হয়েছে রিলিজ তালিকায়।

২০২৩ আইপিএলে সাফল্য না পেলেও এর আগের বেশ কয়েকটি মরসুমে বল হাতে বেশ ভালো পারফর্ম্যান্স ছিলো শার্দুলের। লোয়ার অর্ডারে ব্যাট হাতেও বেশ কিছু কার্যকরী ইনিংস খেলেছিলেন তিনি। ২০২২ সালে ১৫ উইকেট নিয়েছিলেন, ২০২১ সালে নেন ২১ উইকেট। তাঁর পূর্বের মরসুমগুলোর পারফর্ম্যান্সের কথা মাথায় রাখা উচিৎ ছিলো কোচ চন্দ্রকান্ত পণ্ডিত, মেন্টর গৌতম গম্ভীরদের। এবারের নিলামের আগে কেকেআর (KKR) নিজেদের সম্পূর্ণ পেস বিভাগকেই প্রায় ছেঁটে ফেলেছে। নিলামে অন্তত তিনজন পেসারকে ঝুলিতে তুলতে না পারলে সমস্যায় পড়তে হতে পারে তাদের। সেই কথা মাথায় রেখে অভিজ্ঞ শার্দুলকে ধরে রাখাই হতে পারত সঠিক সিদ্ধান্ত।

শাকিব আল হাসান-

গত মরসুমের মিনি নিলামে বাংলাদেশের কিংবদন্তি ক্রিকেটার শাকিব আল হাসান’কে বেস প্রাইস ১.৫০ কোটি টাকা দিয়ে দলে সামিল করেছিলো কলকাতা। যদিও মাঠে নামা হয় নি বাংলাদেশী তারকার। মরসুম শুরুর আগেই রিলিজ চেয়ে নেন তিনি। গত ২৬ নভেম্বর যে রিলিজ-রিটেনশন তালিকা প্রকাশ করেছে কলকাতা নাইট রাইডার্স তাতে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে শাকিব’কে। নাইট শিবিরের এই সিদ্ধান্ত নিয়েও বিশেষজ্ঞ মহলে দেখা দিয়েছে প্রশ্ন। গত মরসুমে শাকিব না থাকায় মিডল অর্ডারে অভিজ্ঞতার অভাবে ভুগতে হয়েছে কলকাতা’কে। বল হাতে শাকিবের নিয়ন্ত্রিত ওভারগুলির অভাব’ও অনুভব করেছে কলকাতা। তা সত্ত্বেও কি করে এই সিদ্ধান্ত নিলো থিঙ্কট্যাঙ্ক? প্রশ্ন অনেকের।

নিজের টি-২০ কেরিয়ারে ৪১৫ ম্যাচে ৬৯৫৪ রান করেছেন শাকিব। অর্ধশতকের সংখ্যা ২৯। বল হাতে তিনি নিয়েছেন ৪৬৫ উইকেট। আন্তর্জাতিক আঙিনাতেও আইসিসি র‍্যাঙ্কিং-এ সেরা অলরাউন্ডারের তকমা পেয়েছেন বহুবার। বাংলাদেশের হয়ে ১১৭ ম্যাচে করেছেন ২৩৮২ রান, নিয়েছেন ১৪০ উইকেট। আন্তর্জাতিক টি-২০তে শাকিবের চেয়ে বেশী উইকেট নেই কারও। আইপিএলেও দীর্ঘদিন খেলছেন তিনি। কলকাতার হয়ে ট্রফিও জিতেছেন। খেলেছেন সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদের হয়েও। ৩৬ বর্ষীয় তারকাকে আরও এক মরসুমের জন্য ধরে রাখতেই পারত কলকাতা।

লকি ফার্গুসন-

গুজরাত টাইটান্স থেকে ট্রেডিং পদ্ধতিতে কলকাতা নাইট রাইডার্স গত মরসুমে দলে ফিরিয়েছিলো লকি ফার্গুসনকে। এক মরসুমেই মোহভঙ্গ হয়েছে নাইটদের। নিলামের রিলিজ তালিকায় তাই ঠাঁই হয়েছে লকি’র। নিউজিল্যান্ডের পেসারের অন্যতম সেরা অস্ত্র তাঁর গতি। ২০২২ মরসুমের দ্রুততম ডেলিভারিটি তিনি করেছিলেন। নাইট শিবিরে ফিরে গত মরসুমে অবশ্য সফল হন নি তিনি। ৩ ম্যাচ খেলে নিয়েছিলেন মাত্র ১টি উইকেট। একাদশ নিয়ে ব্যাপক পরীক্ষানিরীক্ষা চলতে থাকায় যথেষ্ট সুযোগও পান নি তিনি।

গত মরসুমের ব্যর্থতা কাটিয়ে এই মরসুমে ভালোই ছন্দে রয়েছেন লকি ফার্গুসন। ভারতের মাটিতে সদ্যসমাপ্ত বিশ্বকাপে অনবদ্য বোলিং করেছেন। ১০টি উইকেট নিয়েছেন। বিশেষ করে বাংলাদেশের বিরুদ্ধে তাঁর স্পেলটি নজর কেড়েছে। যে ইডেনে কলকাতা নাইট রাইডার্স নিজেদের হোম ম্যাচগুলি খেলবে তা এই মুহূর্তে দেশের অন্যতম দ্রুত গতির পিচ। এই গতিশীল পিচে নিয়মিত সুযোগ দিলে লকি ফার্গুসন হয়ে উঠতে পারতেন তুরুপের তাস। সেখানে তাঁকে ছেঁটে ফেলে ভুল সিদ্ধান্ত নিয়েছে শাহরুখ খান, জুহি চাওলাদের ফ্র্যাঞ্চাইজি।

আপনার জন্য বাছাই করা কিছু নিউজ



রে