ঢাকা, রবিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১২ ফাল্গুন ১৪৩০

জমে উঠেছে মিরপুর টেস্ট জয়ের সুবাস পাচ্ছে বাংলাদেশ

খেলা ডেস্ক . ২৪আপডেট নিউজ
২০২৩ ডিসেম্বর ০৯ ১৪:২৪:৩৯
জমে উঠেছে মিরপুর টেস্ট জয়ের সুবাস পাচ্ছে বাংলাদেশ

প্রথমবারের মতো নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে টেস্ট সিরিজ জয়ের চ্যালেঞ্জের মুখে বাংলাদেশ। মিরপুরে টাইগার স্পিনারদের তোলপাড় দেখে একেবারেই হতবাক নিউজিল্যান্ডের ব্যাটসম্যানরা। তাইজুল ইসলাম, মেহেদি হাসান মিরাজের সুবাদে মিরপুরের শের-এ বাংলা স্টেডিয়াম এখন উৎসবের কেন্দ্রবিন্দু। কিন্তু নিউজিল্যান্ডও এর ব্যতিক্রম নয়। এই লেখা পর্যন্ত, জিততে তাদের প্রয়োজন ৬৮ পয়েন্ট।

সকাল থেকেই মিরপুরে স্পিনারদের ব্যাপক রান ছিল। বাংলাদেশের ব্যাটিং লাইন আপ ধরে রাখতে দেননি এজাজ প্যাটেল ও মিচেল স্যান্টনার। এজাজের ৬ উইকেটের সুবাদে বাংলাদেশ মাত্র ১৪৪ রানে গুটিয়ে যায়। আর কিউইদের সামনে টার্গেট ১৩৭।

এই প্রতিবেদন টি খেলা পর্যন্ত নিউজিল্যান্ড ৩০ ওভারে ৬ উইকেটে ৯০ রান করেছে। জয়ের জন্য প্রয়োজন এখন ৪৭ রান হাতে আছে ৪ উইকেট। বাংলাদেশকে জিততে হলে ৪ উইকেট নিতে হবে।

সংখ্যার দিক থেকে মামুলি মনে হলেও কন্ডিশন বিবেচনায় এটি খানিক চ্যালেঞ্জিংই বটে। স্পিনিং পিচের পূর্ণ ফায়দাই নিচ্ছেন মিরাজ-তাইজুলরা। এখন পর্যন্ত জোড়া শিকার করেছেন দুজনেই। নিউজিল্যান্ড হারিয়েছে ৫ উইকেট। ১৩৭ রানের লক্ষ্যমাত্রাও এখন কিউইদের জন্য কিছুটা কঠিন। অবশ্য খুব বেশি পিছিয়ে নেই তারাও। রান আসছে নিয়মিত। ক্রিজে থাকা গ্লেন ফিলিপস টিকিয়ে রেখেছেন আশা।

ইনিংসের শুরুতেই বাংলাদেশের দরকার ছিল দারুণ কিছুর। সেটাই এনে দিয়েছেন শরিফুল ইসলাম। প্রথম ওভার থেকেই কনওয়েকে ভুগিয়েছিলেন নিজের দুর্দান্ত ইনসুইং দিয়ে। লাঞ্চের পরপরই সেই ইনসুইং দিয়েই কনওয়ের উইকেট তুলে নেন শরিফুল। নিচু হয়ে আসা বলটায় খেই হারান এই ওপেনার। বাংলাদেশ পেয়ে যায় কাঙ্ক্ষিত উইকেট।

কেইন উইলিয়ামসন এর আগেও বহুবারই বাংলাদেশকে ভুগিয়েছেন। ঢাকা টেস্টের এই ইনিংসেও তাকে নিয়েই ছিল দুশ্চিন্তা। অভিজ্ঞ এই ব্যাটার দেখেশুনে বেশকিছু বাউন্ডারিও তুলে নিয়েছিলেন। অবশ্য তাকে বাড়তে দেননি তাইজুল। এগিয়ে এসে খেলতে চেয়েছিলেন, তবে তাইজুলের বাড়তি সুইং ব্যাট ফাঁকি দিয়ে চলে যায় উইকেটেরক্ষক সোহানের কারছে। স্ট্যাম্পিংয়ে শেষ হয় উইলিয়ামসনের ইনিংস।

আর হেনরি নিকোলস ফিরেছেন মিরাজের স্পিনে। মাপা এক বলে লেগবিফোরের শিকার হন এই ব্যাটার। রিভিউ নিয়েও বাঁচতে পারেননি।

অন্যপাশে তখনও টিকে ছিলেন টম ল্যাথাম। দেখেশুনেই খেলছিলেন তিনি। মিরাজের বলে অবশ্য ব্যাটে বলে ঠিকঠাক হয়নি। দারুণ সুইংয়ের সুবাদে আউটসাইড এজড বল পরিণত হয় নাজমুল হোসান শান্তর জন্য। একইরকম উইকেটের শিকার টম ব্লান্ডেলও। তাইজুলের বলে উইকেটের পেছনে সোহানকে ক্যাচ দিয়ে ফিরেছেন তিনি।

নিউজিল্যান্ড শিবিরে সবচেয়ে বড় ধাক্কাটা দিয়েছেন তাইজুল। ফর্মে থাকা ড্যারিল মিচেলকে শান্তর ক্যাচে পরিণত করেছেন তিনি। শুরুতে আম্পায়ার নাকচ করলেও রিভিউতে ঠিকই কাঙ্ক্ষিত উইকেট পেয়ে যায় টাইগাররা।

আপনার জন্য বাছাই করা কিছু নিউজ



রে