ঢাকা, বুধবার, ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১৬ ফাল্গুন ১৪৩০

আন্তর্জাতিক আঙিনায় এখনও পড়ে নি পা, তবুও আইপিএল নিলামে বাজিমাত করতে পারেন এই তিন তারকা

খেলা ডেস্ক . ২৪আপডেট নিউজ
২০২৩ ডিসেম্বর ১০ ১৫:৫৯:৩৪
আন্তর্জাতিক আঙিনায় এখনও পড়ে নি পা, তবুও আইপিএল নিলামে বাজিমাত করতে পারেন এই তিন তারকা

বিশ্বকাপ শেষ হতে না হতেই ক্রিকেটপ্রেমীদের মধ্যে আলোচনার কেন্দ্রবিন্দু হয়ে উঠেছে ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগ। বিসিসিআই আয়োজিত টি-টোয়েন্টি ফ্র্যাঞ্চাইজি প্রতিযোগিতার এখনও এক মাস বাকি। উপলব্ধ তথ্যের ভিত্তিতে, আইপিএলের ১৭ তম মরসুম মার্চের শেষের দিকে বা এপ্রিলের শুরুতে শুরু হবে বলে জানা গেছে। তবে আপাতত সকলের চোখ “মিনি” নিলামের দিকে। ১৯ ডিসেম্বর দুবাইতে নিলাম টেবিলে দশটি ফ্র্যাঞ্চাইজি মুখোমুখি হবে। দ্রুত স্কোয়াডের শূন্যস্থান পূরণে দৃঢ়প্রতিজ্ঞ সবাই। এরই মধ্যে আনুষ্ঠানিকভাবে রিলিজ-হোল্ড তালিকা প্রকাশ করা হয়েছে। আগামী মৌসুমে কে নিশ্চিত হবেন এবং কে অনিশ্চয়তার নিলাম টেবিলে হাঁটবেন তা জানা গেছে।

আইপিএলের ট্রফির গায়ে খোদাই করে যে সংস্কৃত শ্লোকটি লেখা রয়েছে তাঁর বাংলা তর্জমা করলে দাঁড়ায় ‘প্রতিভা যেখানে আত্মপ্রকাশের মঞ্চ খুঁজে পায়।’ আক্ষরিক অর্থেই আইপিএলকে এর থেকে ভালো ভাবে বর্ণনা করা হয়ত সম্ভব নয়। গত দেড় দশকের বেশী সময় ধরে তরুণ ক্রিকেটারদের বিশ্বমঞ্চে নিজের প্রতিভাকে মেলে ধরার মঞ্চ গড়ে দিয়ে চলেছে আইপিএল। রবীন্দ্র জাদেজা ইউসুফ পাঠান, জসপ্রীত বুমরাহ হার্দিক পান্ডিয়া থেকে হালের রিঙ্কু সিং-আইপিএলের সুবাদে গলি থেকে রাজপথে উঠে আসার কাহিনী অন্তহীন। ভারতীয় ক্রিকেটকে গত দেড় দশক ধরে বহু দুর্দান্ত ক্রিকেটার উপহার দিয়েছে এই ফ্র্যাঞ্চাইজি লীগ। সপ্তদশ মরসুম’ও ব্যতিক্রম হবে না বলের ধারণা বিশেষজ্ঞদের। ঘরোয়া ক্রিকেটের এই তিন তারকা’র জন্য মরিয়া হতে পারে ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলো।

রবি তেজা-

২০২২ সালের আইপিএল নিলামে নাম দিয়েছিলেন হায়দ্রাবাদের ক্রিকেটার তেলুকাপল্লী রবি তেজা। কিন্তু দল পাওয়া তো দূরের কথা, প্রাথমিক স্ক্রুটিনিতেই বাদ পড়তে হয় তাঁকে। ২০২৩ সালের মিনি নিলামেও তাঁকে নেওয়ার ব্যাপারে কোনো ফ্র্যাঞ্চাইজি আগ্রহ দেখায় নি। বঞ্চনার জবাব ক্রিকেট মাঠেই দিয়েছেন বছর ২৯-এর ক্রিকেটার। ২০২৩-এর সৈয়দ মুস্তাক আলি ট্রফির আসরে বল হাতে বাজিমাত করেছেন তিনি। ৭ ম্যাচে ২৭ ওভার হাত ঘুরিয়েছেন তিনি। তুলে নিয়েছেন ১৯টি উইকেট।

ভারতের ঘরোয়া টি-২০ প্রতিযোগিতাতে সকলকে পিছনে ফেলে সর্বোচ্চ উইকেট শিকারী হয়েছেন রবি তেজা’ই । তাঁর বোলিং গড় মাত্র ১০.১০। ওভারপ্রতি রান খরচের ক্ষেত্রেও বেশ কৃপণ তিনি। ইকোনমি রেট ৭.১১। টি-২০ কেরিয়ারে ৩৫ ম্যাচে তাঁর উইকেট সংখ্যা ৫১। ঘরোয়া ক্রিকেটের আঙিনায় ব্যাট হাতেও প্রয়োজনে কার্যকরী ইনিংস খেলেছেন তিনি। এই পারফর্ম্যান্সের পর আসন্ন মিনি নিলামে তাঁকে উপেক্ষা করার মত ভুল সম্ভবত করবে ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলো। রবি তেজার জন্য নিলামের টেবিলে লড়াই হতে পারে ভালোই।

হার্ভিক দেশাই-

সৌরাষ্ট্রের উইকেটরক্ষক-ব্যাটার হার্ভিক দেশাই থাকতে পারেন আসন্ন ‘মিনি নিলামে’র মোস্ট ওয়ান্টেড তালিকায়। কলকাতা নাইট রাইডার্স চেন্নাই সুপার কিংসের মত ফ্র্যাঞ্চাইজির প্রয়োজন উইকেটরক্ষক-ব্যাটারের। তারাই হাত বাড়াতে পারেন হার্ভিকের দিকে। গত কয়েক মরসুম জুড়ে লাগাতার ভালো পারফর্ম করছেন হার্ভিক। ঘরোয়া ক্রিকেটে সৌরাষ্ট্রের হয়ে প্রথম শ্রেণির খেলায় ২২৬২ রান করেছেন তিনি। লিস্ট-এ ফর্ম্যাটে করেছেন ১৩৪১ রান।

কুড়ি-বিশের ক্রিকেটেও বেশ সাবলীল তিনি। কেরিয়ারে ২৭ ম্যাচে ৩০.০৪ গড়ে করেছেন ৬৯১ রান। ৪টি অর্ধশতক, ১টি শতরান’ও রয়েছে তাঁর। এবারের সৈয়দ মুস্তাক আলি ট্রফিতে ব্যাট হাতে অনবদ্য পারফর্ম করেছেন হার্ভিক। ৭ ইনিংসে করেছেন ৩৩৬ রান। ব্যাটিং গড় ছিলো প্রায় ৬৮। ১৭৫ স্ট্রাইক রেটে ব্যাটিং করতে দেখা গিয়েছে তাঁকে। সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহকদের তালিকায় ছিলেন ষষ্ঠ স্থানে। হার্ভিকের পারফর্ম্যান্স আইপিএলের আঙিনায় তাঁকে সুযোগ এনে দিতে পারে।

সমীর রিজভি-

গত বছরের আইপিএলে ধুন্ধুমার ব্যাটিং করে ক্রিকেটজনতার মন জিতে নিয়েছেন উত্তরপ্রদেশের রিঙ্কু সিং। আগামী আইপিএলে আরও এক ‘পাওয়ারহাউজ’ ক্রিকেটার উঠে আসতে পারেন উত্তরপ্রদেশ থেকে। মীরাটের বছর ২০’র ব্যাটার সমীর রিজভি হতে পারে ভারতীয় ক্রিকেটের নতুন তারকা। স্বল্পদিনের কেরিয়ারে এখনও অবধি নিজের রাজ্যের হয়ে ২টি প্রথম শ্রেণির ম্যাচ, ১১ টি লিস্ট-এ ম্যাচ ও ১১টি টি-২০ ম্যাচ খেলেছেন তিনি। লাল বলের ফর্ম্যাটে এখনও নিজেকে মেলে ধরতে পারেন নি তিনি। কিন্তু সাদা বলের ফর্ম্যাটে নিজের দক্ষতার প্রমাণ ইতিমধ্যেই দিয়ে দিয়েছেন ডান হাতি ব্যাটার।

১১ লিস্ট-এ ম্যাচে ৩০ গড়ে সমীরের সংগ্রহ ২০৫ রান। সমীরের পরিসংখ্যান বলছে কুড়ি-বিশের ফর্ম্যাটে ইতিমধ্যেই একজন স্পেশ্যালিস্ট হিসেবে খেলতে পারেন তিনি। ৯ ইনিংসে ৪৯.১৬ গড়-সহ তাঁর ব্যাট থেকে এসেছে ২৯৫ রান। করেছেন ২টি অর্ধশতক। এবারের সৈয়দ মুস্তাক আলি ট্রফিতে ঝড় তুলতে দেখা গিয়েছে সমীর রিজভিকে। তিনি ৭ ম্যাচে ৬৯.২৫ গড়ে করেছেন ২৭৭ রান। সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহকদের তালিকায় জায়গা করে নিয়েছেন ১৩তম স্থানে। তার আগে ইউপি টি-২০তেও দুর্ধর্ষ খেলেছেন তিনি। করেছেন শতরান। তরুণ সমীরের ফর্ম, আইপিএল ফ্র্যাঞ্চাইজিদের রেডারে জায়গা করে দেবে তাঁকে।

আপনার জন্য বাছাই করা কিছু নিউজ



রে