ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৬ নভেম্বর ২০২০, ১১ অগ্রহায়ণ ১৪২৭

প্রেসিডেন্ট কাপ টুর্নামেন্ট শেষে কে কত টাকা পেল

২০২০ অক্টোবর ২৬ ১০:১৮:৩৯
প্রেসিডেন্ট কাপ টুর্নামেন্ট শেষে কে কত টাকা পেল

করোনার কারণে দীর্ঘ বিরতির পর সম্প্রতি শেষ হলো বিসিবি প্রেসিডেন্টস কাপ ২০২০ টুর্নামেন্ট। ৩ দলে বিভক্ত ছিল এই টুর্নামেন্টের খেলাটি। গতকাল মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের একাদশ ও নাজমুল হোসেন শান্তর একাদশে মধ্যে ফাইনাল খেলা টি অনুষ্টিত হয় । ফাইনাল ম্যাচে নাজমুল হোসেন শান্তর দলকে রিয়াদরা হারিয়েছে ৭ উইকেটে।

টস হেরে ব্যাট করতে নামা নাজমুল একাদশ শুরুতেই ধাক্কা খায়। দলীয় মাত্র ৪৫ রানেই চার উইকেট হারিয়ে বিপর্যয়ে পড়ে নাজমুল একাদশ। ব্যাট হাতে এদিন বরাবরের মতই ব্যর্থ ছিলেন ওপেনার সৌম্য সরকার। ১১ বলে মাত্র ৫ রান করেই সুমন খানের বলে ক্যাচ দিয়ে সাজঘরে ফিরেন তিনি। সুবিধা করতে পারেন নি আরেক ওপেনার সাইফ হাসানও।

দলের অধিনায়ক নাজমুল হোসেন শান্ত অবশ্য লড়াই চালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেন। দলীয় ৬৪ রানে মেহেদি হাসান মিরাজের বলে ব্যক্তিগত ৩২ রানে শান্ত ফিরে গেলে দলের ত্রাতা হয়ে আবির্ভূত হন ঘরোয়া ক্রিকেটের নিয়মিত মুখ ইরফান শুক্কুর। ৭৭ বল মোকাবেলায় ৭৫ রান আসে ইরফান শুক্কুরের ব্যাট থেকে। এছাড়া ২৬ রান আসে তৌহিদ হৃদয়ের ব্যাট থেকে। ৪৭.১ ওভারে শেষ পর্যন্ত শান্তরা অলআউট হয় ১৭৩ রানে।

বল হাতে এদিন দুর্দান্ত ছিলেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ একাদশের তরুণ বোলার সুমন খান। নাজমুল একদশকে একাই গুঁড়িয়ে দিয়ে ৩৮ রান খরচায় ৫ উইকেট ঝুলিতে নেন তিনি।

ছোট লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে মাহমুদউল্লাহ একাদশের ওপেনার মুমিনুল হক ফিরে যান দলীয় ১৮ এবং ব্যক্তিগত ৪ রানে। তবে ব্যাট হাতে অপ্রতিরুদ্ধ ছিলেন আরেক ওপেনার লিটন কুমার দাস। মাহমুদুল হাসান এবং ইমরুল কায়েসকে সাথে নিয়ে জয়ের ভীত গড়েন এই ওপেনার।

মাহমুদুল ব্যক্তিগত ১৮ রানে ফেরত গেলেও দলীয় ১২৯ রানের মাথায় ফিরে যান লিটন। ততক্ষণে অবশ্য জয়ের পথে বেশ খানিকটা এগিয়ে গিয়েছিল দল। লিটনের ব্যাট থেকে এদিন ৬৯ বলের বিনিময়ে আসে ৬৮ রানের বিধ্বংসী ইনিংস। এছাড়া শেষ পর্যন্ত ব্যাট হাতে ৫৩ রান করে অপরাজিত ছিলেন ইমরুল কায়েস এবং ২৩ রানে অপরাজিত ছিলেন অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। মাত্র ২৯.৪ ওভারে ৩ উইকেট হারিয়েই শিরোপা জয়ের আনন্দে মেতে ওঠে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের দল।

এক নজরে বিসিবি প্রেসিডেন্টস কাপেড় পুরস্কার বিজয়ীরা-

সেরা ব্যাটসম্যান : ইরফান শুক্কুর (নাজমুল একাদশ)(২৫ হাজার)

সেরা বোলার : সুমন খান (মাহমুদউল্লাহ একাদশ)(২৫ হাজার)

সেরা ফিল্ডার: নুরুল হাসান (মাহমুদউল্লাহ একাদশ)

ম্যাচসেরা : সুমন খান (মাহমুদউল্লাহ একাদশ)( ১ লাখ)

টুর্নামেন্ট সেরা ক্রিকেটার: মুশফিকুর রহিম (নাজমুল একাদশ) (২ লাখ)

টুর্নামেন্ট সেরা ব্যাটসম্যান : ইরফান শুক্কুর (নাজমুল একাদশ)

টুর্নামেন্ট সেরা বোলার : রুবেল হোসেন (মাহমুদউল্লাহ একাদশ)( ১ লাখ)

টুর্নামেন্ট সেরা ফিল্ডার : নুরুল হাসান সোহান (মাহমুদউল্লাহ একাদশ)

কামব্যাক প্লেয়ার অব দ্য টুর্নামেন্ট : তাসকিন আহমেদ (তামিম একাদশ)

প্রমিজিং প্লেয়ার অব দ্য টুর্নামেন্ট : রিশাদ আহমেদ ( নাজমুল একাদশ)।

পাঠকের মতামত:

খেলা এর সর্বশেষ খবর

খেলা - এর সব খবর



রে