ঢাকা, রবিবার, ২৪ জানুয়ারি ২০২১, ১১ মাঘ ১৪২৭

সৌদি আরবে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা যাওয়া বাংলাদেশী প্রবাসীদের সংখা প্রকাশ

২০২০ ডিসেম্বর ০৪ ২১:২১:২৯
সৌদি আরবে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা যাওয়া বাংলাদেশী প্রবাসীদের সংখা প্রকাশ

এখন পর্যন্ত সৌদি আরবে করোনায় আক্রান্ত সর্বমোট মৃতের সংখ্যা ৫ হাজার ৯৩০ জন। এর মধ্যে ৯৮০ জনই বাংলাদেশী প্রবাসী বলে জানিয়েছে রিয়াদের বাংলাদেশ কনস্যুলেট এবং জেদ্দার বাংলাদেশ কনস্যুলেট। এর মধ্যে রিয়াদ অঞ্চলে ৫২০ জন এবং জেদ্দা অঞ্চলে ৪৬০ জন বাংলাদেশী প্রবাসীর করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু ঘটেছে।

সৌদি আরবের মোট করোনাভাইরাসে মৃত্যুবরন করা ১৬.৫ শতাংশ মানুষই সৌদি আরবে অবস্থিত বাংলাদেশী প্রবাসী।

বিগত ২৩ মে, ২০২০ এ প্রকাশিত তথ্যমতে সৌদি আরবে করোনাভাইরাসে মৃত্যুবরণ করা সকলের মধ্যে বাংলাদেশী প্রবাসীদের সংখ্যা ছিলো ১৪০ জন, যা ছিলো মোট মৃতের ৩৫.২ শতাংশ। মাত্র ৫ দিনের ব্যবধানে ২৮ মে তে করোনায় মৃত প্রবাসীদের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়ায় ১৭১ জনে, যা মোট মৃতের প্রায় ৪০ শতাংশ।

বিগত জুলাই ২৫ পর্যন্ত সৌদি আরবে ২ হাজার ৬০১ জন মানুষ করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা গিয়েছিলেন, যার মধ্যে ৬৭০ জনই ছিলেন বাংলাদেশী প্রবাসী। যা মোট করোনায় মৃতের ২৫.৭ শতাংশ।

আজ ৪ ডিসেম্বর দুপুর পর্যন্ত সৌদি আরবে মোট ৫ হাজার ৯৩০ জন মৃতের মাঝে ৯৮০ জন অর্থাৎ ১৬.৫ শতাংশই প্রবাসী বাংলাদেশী। এছাড়াও প্রবাসী বাংলাদেশীরা ধারনা করছেন অনেক প্রবাসী বাংলাদেশী করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে নাম পরিচয় ছাড়াই মৃত্যুবরণ করেছেন, ফলে বাস্তবে সৌদি আরবে প্রবাসী বাংলাদেশীদের মৃত্যুর সংখ্যা আরো বেশি।

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ও মৃত্যু ছাড়াও করোনাভাইরাসের কারনে বিপুল পরিমানে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন সৌদি প্রবাসীরা। বিপুল সংখ্যক প্রবাসী কর্মচারী এই করোনাকালীন সময়ে নিজেদের চাকরী হারিয়েছেন, এবং ফ্লাইট বন্ধ থাকার কারনে সৌদি আরবেই অবস্থান করার কারনে জমানো টাকাও চলে গিয়েছে অনেকের।

সৌদি আরব সহ মধ্যপ্রাচ্যের অন্যান্য দেশ থেকে বাংলাদেশ এর ফ্লাইট চালু করে দেবার পরে শুধুমাত্র অক্টোবর মাসেই দেশে ফিরে আসেন ৮০ হাজার প্রবাসী কর্মী, যা একমাসে সর্বোচ্চ সংখ্যক প্রবাসী ফেরত আসার রেকর্ড। এর মাঝে ৬৮ হাজার ৬৪৭ জনই সৌদি আরব থেকে বাংলাদেশে ফিরে আসেন।

সম্প্রতি সৌদি আরবে প্রবাসী কর্মীদের জন্য কাফালা প্রথা বাতিল করা হয়েছে। এর ফলে গৃহকর্মী ও ড্রাইভার ব্যতিত অন্যান্য সকল প্রবাসী কর্মী সরাসরি মন্ত্রণালয় এর অধীনেই সৌদি আরবে প্রবেশ করতে পারবেন। সকলে ধারনা করছেন দেশে ফিরে আসা বিপুল সংখ্যক প্রবাসী কর্মীরা পুনরায় সৌদি আরবে ফেরত যাবার সময় এই কাফালা প্রথা না থাকা বেশ উপকারী একটি ভূমিকা পালন করবে।

পাঠকের মতামত:

বিশ্ব এর সর্বশেষ খবর

বিশ্ব - এর সব খবর



রে