ঢাকা, রবিবার, ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ১৫ ফাল্গুন ১৪২৭

বাইক প্রেমিদের জন্য দারুন সুখবর বাংলাদেশে পাওয়া যাবে কেটিএম বাইক

২০২১ জানুয়ারি ১৯ ২০:২১:৫৮
বাইক প্রেমিদের জন্য দারুন সুখবর বাংলাদেশে পাওয়া যাবে কেটিএম বাইক

‘কেটিএম বাইক’ KTM (Kronreif & Trunkenpolz Mattighofen) নামটি শুনলেই চোখের সামনে কমলা রংয়ের সাথে কালো ও সাদার সংমিশ্রনের একটি মোটরসাইকেল ভেসে উঠে। হ্যাঁ, এটাই কেটিএম। আর এই বিখ্যাত অস্ট্রিয়ান কোম্পানির বাইক বাংলাদেশে দ্রুত অফিশিয়ালি আনতে যাচ্ছে রানার অটোমোবাইলস।

অনেকেই গুঞ্জন শুনেছেন যে কেটিএম আসতে যাচ্ছে। এবার এটি সত্যি হতে যাচ্ছে। কেটিএম অফিশিয়ালি বাংলাদেশে আসতে যাচ্ছে। রানার অটোমোবাইলস অফিশিয়ালি কেটিএম বাংলাদেশেদের বাজারে কেটিএম আনতে যাচ্ছে। দ্রুত তারা একটি লঞ্চিং ইভেন্টও আয়োজন করতে যাচ্ছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

বাংলাদেশের বাজারে জন্য তারা নিয়ে আসতে আচ্ছে তিনটি মডেল। এদের মধ্যে হচ্ছে কেটিএম ডুকে ১২৫ ইন্ডিয়ান (KTM Duke 125 Indian), কেটিএম ডুকে ১২৫ ইউরুপ (KTM Duke 125 European) এবং কেটিএম আরসি ১২৫ ইন্ডিয়ান (KTM RC 125 Indian) এই তিনটি ভার্সন আসার সম্ভাবনা খুবই প্রবল। কারণ প্রতিটি বাইকই লুকস এবং ডিজাইনের ক্ষেত্রে কিছু পার্থক্য রয়েছে।

কেটিএম তাদের ইউনিক ডিজাইন এবং লুকস এর জন্য সবার কাছে পরিচিত। বিশেষ ভাবে বাইকটির কমলা রং অনেক বেশি আকর্ষণ করে থাকে। কেটিএম ডুকে ১২৫ ইন্ডিয়ান এবং কেটিএম ডুকে ১২৫ ইউরুপ দু’টি বাইকই হচ্ছে নেকডে স্পোর্টস বাইক। উভয় ভার্সন লুকস ইঞ্জিন সবক্ষেত্রেই বাইকটি ইউরোপিয়ান ভার্সনের মত। শুধু মাত্র এর হেডলাইট এবং এক্সহস্ট এ পরিবর্তন করা হয়েছে।

দুটি বাইকের ইঞ্জিন হচ্ছে ১২৫সিসি, সিঙ্গেল সিলিন্ডার, ফোর স্ট্রোক, ৪টি ভাল্ব যুক্ত ইঞ্জিন। ইঞ্জিন থেকে 15BHP @ 9250 rpm এবং 12Nm @ 8000 rpm পর্যন্ত শক্তি উৎপন্ন করতে পারে।

ইন্ডিয়ান ভার্সনটির হেডলাইট হ্যালোজেন টাইপ এবং এর এক্সহস্ট হচ্ছে আন্ডারবেলি এক্সহস্ট। অপরদিকে ইউরোপিয়ান ভার্সনটির এক্সহস্ট সাইডে এবং এর হেডলাইট হচ্ছে এলইডি। তাই অনেকি ইউরোপিয়ান ভার্সনটি কিছুটা বেশি পছন্দ করে থাকেন।

অপরদিকে স্পোর্টস সেগমেন্টে আসতে পারে কেটিএম আরসি ১২৫ ইন্ডিয়ান ভার্সনের বাইকটি। এই বাইকটি স্পোর্টস বাইক হিসেবে বেশ পরিচিত এর ইউনিক ডিজাইন এর কারণে। এর ইউনিক ডিজাইন একে সবার থেকে আলাদা করেছে। ডিজাইন এমন ইউনিক যে রাস্তায় চলার সময় যেকেউ একবার হলেও তাকাবে।

রানার অফিশিয়ালি কেটিএম এর বাইক গুলো বাংলাদেশে আমদানী করবে। আশা করা যাচ্ছে বাই গুলো দ্রুত লঞ্চ হবে বাংলাদেশে। অনেকেই অপেক্ষায় আছেন বাইক গুলো কবে লঞ্চ হবে।

অপর দিকে একটা গুঞ্জন শোনা যাচ্ছে যে ৩৫০সিসি পারমিট পাওয়া যাবে। যদি এই গুঞ্জন সত্যি হয় তবে কেটিএম তাদের উচ্চসিসি বাইক গুলো বাংলাদেশে আনতে পারবে, যা অনেক বাংলাদেশী বাইকারদের স্বপ্ন। উচ্চসিসির বাইক গুলোর মধ্যে যে বাইক গুলো আসতে পারে সেগুলো হচ্ছে KTM RC 200, KTM Duke 200 এবং KTM Duke 250।

কেটিএম আরসি ২০০ বাইকটি স্পোর্টস সেগমেন্টের বাইক। এর ইঞ্জিন হচ্ছে ১৯৯.৫সিসি, সিঙ্গেল সিলিন্ডার, ফোর স্ট্রোক এবং এর পাওয়ার হচ্ছে 24.6 Bhp @ 10000 rpm এবং 19.2 Nm @ 8000 rpm পর্যন্ত শক্তি উৎপন্ন করতে পারে। বাইকটি কেটিএম আরসি ১২৫ এর বড় ভার্সন।

এরপর রয়েছে কেটিএম ডিউক ২০০ এটি নেকেড স্পোর্টস বাইক। আবার বলা যায়, ডিউক ১২৫ এর বড় ভাই। এই বাইকটিতে দেয়া হয়েছে ১৯৯.৫সিসি, সিঙ্গেল সিলিন্ডার, ফোর স্ট্রোক, লিকুইড কুল, FI, DOHC ইঞ্জিন। যা থেকে 25.83 PS @ 10,000 rpm এবং 19.5 Nm @ 8000 rpm পর্যন্ত শক্তি উৎপন্ন করতে পারে। অপর দিকে বলা যায় এটি কেটিএম আরসি ২০০ এর নেকেড ভার্সন।

সবশেষে রয়েছে কেটিএম ডিউক ২৫০সিসি। বাইকটির ইঞ্জিন অপর দুটি বাইক থেকে কিছুটা শক্তিশালী। এর ইঞ্জিন পাওয়ারের ক্ষেত্রে 29.6 Bhp @ 9000 rpm এবং 24 Nm @ 7500 rpm পর্যন্ত ক্ষমতা উৎপন্ন করতে পারে। উচ্চসিসির বাইকের ডিজাইনের ক্ষেত্রেও পায় একই ধরনের রাখা হয়েছে, তবে কিছুটা ছোটখাটো পরিবর্তন আনা হয়েছে। এতে বাইক গুলো আরও আকর্ষনীয় হয়ে উঠেছে।

পাঠকের মতামত:

তথ্য ও প্রযুক্তি এর সর্বশেষ খবর

তথ্য ও প্রযুক্তি - এর সব খবর



রে