ঢাকা, রবিবার, ১৮ এপ্রিল ২০২১, ৫ বৈশাখ ১৪২৮

টানা ৪ সেঞ্চুরীসহ এক ম্যাচে ৫৯৬ রান দেখলো ক্রিকেট বিশ্ব

২০২১ মার্চ ০৮ ২১:১৩:২৮
টানা ৪ সেঞ্চুরীসহ এক ম্যাচে ৫৯৬ রান দেখলো ক্রিকেট বিশ্ব

বছরের প্রথম মাসেই পেতে পারতেন সেঞ্চুরির দেখা। ত্রিপুরার বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্ট সৈয়দ মুশতাক আলি ট্রফির ম্যাচে থেমেছিলেন ৯৯ রানে অপরাজিত থেকে। সেই ম্যাচের এক রানের আক্ষেপ তিনি ঘুচিয়েছেন প্রায় এক মাস দশ দিন পর এসে। আর সেই আক্ষেপ মেটানোর পর যেন এখন সেঞ্চুরির সঙ্গে বসত বেঁধেছেন ভারতের তরুণ ওপেনার দেবদূত পাড্ডিকাল।

সৈয়দ মুশতাক আলি ট্রফিতে ৯৯ রানে অপরাজিত থাকা দেবদূত ওয়ানডে টুর্নামেন্ট বিজয় হাজারে ট্রফিতে টানা চার ম্যাচে পেয়েছেন সেঞ্চুরির আনন্দ, গড়েছেন ইতিহাস। লিস্ট 'এ' ক্রিকেটে টানা চার ম্যাচে সেঞ্চুরি করা ইতিহাসের তৃতীয় ব্যাটসম্যান ২০ বছর বয়সী দেবদূত।

রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালুরুর হয়ে সবশেষ আইপিএলে নিজের জাত চিনিয়েছিলেন বাঁহাতি ড্যাশিং ওপেনার দেবদূত। ধারাবাহিকতা বজায় রেখেছেন অন্যান্য টুর্নামেন্টেও। বিজয় হাজারে ট্রফিতে যেন একটু বেশিই ফর্মে তিনি। ব্যাট হাতে নামা ছয় ইনিংসেই অন্তত পঞ্চাশ পেরিয়েছেন কর্ণাটকার এ বাঁহাতি ওপেনার।

গত ২০ ফেব্রুয়ারি প্রথম ম্যাচে খেলেন ৫২ রানের ইনিংস। পরের ম্যাচে মাত্র ৩ রানের জন্য বঞ্চিত হন সেঞ্চুরি থেকে, বিহারের বিপক্ষে আউট হন ৯৭ রান করে। এর পরের ম্যাচে তার ইনিংসগুলো যথাক্রমে ১৫২, ১২৬*, ১৪৫*, ১০১। সবশেষ ১০১ রানের ইনিংসটি খেলেছেন আজ, কেরালার বিপক্ষে।

এই ইনিংসের মাধ্যমে লিস্ট 'এ' ক্রিকেটে টানা চার ম্যাচে সেঞ্চুরি করা ব্যাটসম্যানদের সংক্ষিপ্ত তালিকায় ঢুকে গেছেন দেবদূত। তার আগে এ কীর্তি করে দেখিয়েছেন শ্রীলঙ্কার কুমার সাঙ্গাকারা (২০১৫ সালের ওয়ানডে বিশ্বকাপ) ও দক্ষিণ আফ্রিকার আলভিরো পিটারসেন (২০১৫-১৬ মৌসুমের মোমেন্টাম কাপে)।

বিশ্বের তৃতীয় ব্যাটসম্যান হিসেবে টানা চারটি লিস্ট 'এ' ম্যাচে সেঞ্চুরি করলেন দেবদূত। বিহারের বিপক্ষে টুর্নামেন্টের দ্বিতীয় ম্যাচটিতে আর মাত্র ৩ রান করতে পারলে টানা পাঁচ ম্যাচে সেঞ্চুরির বিশ্বরেকর্ড হয়ে যেত তার। তবে সুযোগ এখনও আছে। পরের ম্যাচে সেঞ্চুরি করতে পারলেই হয়ে যাবে এ রেকর্ড।

দেবদূতের ইতিহাস গড়ার দিনে সহজ জয় পেয়েছে তার দল কর্ণাটকা। কেরালার বিপক্ষে কোয়ার্টার ফাইনাল ম্যাচটিতে আগে ব্যাট করে ৩৩৮ রানের বড় সংগ্রহ দাঁড় করায় কর্ণাটকা। জবাবে কেরালা অলআউট হয়েছে ২৫৮ রানে। ফলে ৮০ রানের বড় জয়ে সেরা চারের টিকিট পেয়ে গেছে কর্ণাটকা।

দলকে সেমিফাইনালে তোলার পেছনে দেবদূতের ১০১ রানের চেয়ে বড় অবদান রেখেছেন অধিনায়ক রবিকুমার সমর্থ। উদ্বোধনী জুটিতে দেবদূত ও সমর্থ মিলে যোগ করেন ২৪৯ রান। দেবদূত ফিরে যাওয়ার পর ৪৯তম ওভার পর্যন্ত খেলেন সমর্থ। আউট হওয়ার আগে করেন ১৯২ রান। এ ইনিংসের সুবাদেই জয়ের রান পেয়ে যায় কর্ণাটকা।

পাঠকের মতামত:

খেলা এর সর্বশেষ খবর

খেলা - এর সব খবর



রে