ঢাকা, সোমবার, ১৭ মে ২০২১, ২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৮

শুরুটা ভালো হলো না মুস্তাফিজের

২০২১ এপ্রিল ১২ ২২:৫৯:৪৮
শুরুটা ভালো হলো না মুস্তাফিজের

আইপিএলের চতুর্দশ আসরে মুস্তাফিজুর রহমানের শুরুটা হল আক্ষেপ আর হতাশার। দুই আসর বিরতির পর রাজস্থান রয়্যালসের হয়ে ফিরে আম্পায়ারের ভুল আর ক্যাচ হাতছাড়ায় উইকেটশূন্য থেকেছেন বাংলাদেশি পেসার। টস হেরে ব্যাট করতে নেমে রাজস্থান রয়্যালসের বিপক্ষে ২২১ রানের পাহাড় দাঁড় করেছে পাঞ্জাব কিংস।

আম্পায়ার আবেদন নাকচ করে দেওয়ায় দ্বিতীয় বলেই উইকেটবঞ্চিত হন মুস্তাফিজ।

মুস্তাফিজের হাতে দল বল তুলে দেয় দ্বিতীয় ওভারে। প্রথম বলে ফিল্ডারের ব্যর্থতায় মায়াঙ্ক আগারওয়াল বের করে নেন ২ রান। পরের বল আঘাত করে মায়াঙ্কের প্যাডে। মুস্তাফিজ আবেদনও করেন। কিন্তু আম্পায়ার অনিল চৌধুরী সাড়া দেননি। রিভিউ নেননি উইকেটরক্ষক ও অধিনায়ক সাঞ্জু স্যামসনও। হয়ত মুস্তাফিজের আবেদন আরেকটু জোরালো হয়নি বলেই!

টিভি রিপ্লেতে দেখা যায়, বল দুই উইকেটের লাইনের মাঝেই পড়েছিল আর স্ট্যাম্পেও আঘাত করত। অর্থাৎ, রাজস্থান রিভিউ নিলে নিজের দ্বিতীয় বলেই উইকেটের দেখা পেয়ে যেতেন মুস্তাফিজ।

সেই ওভারের শেষ বলে চার হজম করেন মুস্তাফিজ। দিয়েছেন একটি ওয়াইডও। নিশ্চিত উইকেট হাতছাড়ার গ্লানিতে দল যেন একটু ছন্নছাড়া হয়ে পড়ে। সেই ওভারে পাঞ্জাব পায় ১১ রান।

মুস্তাফিজ আবারও বোলিংয়ে আসেন পঞ্চম ওভারে। ক্রিস গেইলকে প্রথম বলেই ডট। পরের দুই বলে এক রান করে নেন লোকেশ রাহুল ও গেইল। তিনটি ত্রুটিহীন ডেলিভারির পর ওয়াইড পেতেই যেন গেইলের খোলস ছেড়ে বেরিয়ে আসার ইচ্ছা হল। মুস্তাফিজের মাথার ওপর মারেন চার। পরের দুই বলে এক রান দেওয়া মুস্তাফিজ নিজের দ্বিতীয় ওভারে বিলি করেন ৮ রান।

১৫তম ওভারে মুস্তাফিজকে তার তৃতীয় ওভারের দায়িত্ব তুলে দেওয়া হয়। প্রথম বলেই মুস্তাফিজের ডেলিভারিকে আকাশে তুলে দেন দীপক হুদা। লং অফ থেকে দৌড়ে এসে ক্যাচটি ধরতে পারতেন বেন স্টোকসই। কিন্তু স্বদেশী জস বাটলার এক্সট্রা কভার থেকে দৌড়ে এসে বল তালুবন্দীর চেষ্টা করে ব্যর্থ হন। এ সময় মুস্তাফিজকে কিছুটা মেজাজ হারাতেও দেখা যায়।

সেই ওভারে মুস্তাফিজকে একটি ছক্কাও হাঁকান রাহুল। মোট ১১ রান বিলি করেন।

১৯তম ওভারে নিজের শেষ ওভার করতে আসেন মুস্তাফিজ। প্রথম দুই বলে এক রান করে বিলি করার পর ডট বল করলেও তা নো বল হিসেবে চিহ্নিত করেন আম্পায়ার। নার্ভাস মুস্তাফিজ পরের বলে ওয়াইড করেন। ফ্রি হিট কাজে লাগিয়ে চার হাঁকান রাহুল। চতুর্থ ও পঞ্চম বলে আরও ৩ রান হজম করার পর শেষ বলে মুস্তাফিজকে দেখতে হয় চার, যা আসে আলোচিত তরুণ শাহরুখ খানের ব্যাট থেকে। এই ওভারে মুস্তাফিজ খরচ করেন ১৫ রান।

সব মিলিয়ে ৪ ওভার বল করে ৪৫ রান বিলি করেন উইকেটশূন্য মুস্তাফিজ। মুস্তাফিজ ছাড়া বাকি বোলাররাও এদিন খরুচে ছিলেন। ৮ বোলারের হাতে বল তুলে দিয়েও রান ফোয়ারা বন্ধ করতে পারেননি অধিনায়ক হিসেবে অভিষেক ম্যাচ খেলতে নামা সাঞ্জু। বলার মত ভালো করেছেন কেবল চেতন সাকারিয়া। ৩১ রানের খরচায় তিনি শিকার করেন ৩ উইকেট, যার ২টিই শেষ ওভারে। এছাড়া ‘কোটিপতি’ ক্রিস মরিস ৪১ রানের খরচায় ২ উইকেট শিকার করেন।

পাঞ্জাব অধিনায়ক রাহুল অল্পের জন্য শতকের দেখা পাননি। ৪ বল বাকি থাকতে ৯১ রানে থামে তার ইনিংস, ৫০ বলের মোকাবেলায় যে ইনিংসে ছিল ৭টি চার ও ৫টি ছক্কা। এছাড়া দীপক হুদা ২৮ বলে ৬৪ ও ক্রিস গেইল ২৮ বলে ৪০ রান করেন।

সংক্ষিপ্ত স্কোর

টস : রাজস্থান রয়্যালস

পাঞ্জাব কিংস : ২২১/৬ (২০ ওভার)রাহুল ৯১, দীপক ৬৪, গেইল ৪০সাকারিয়া ৩১/৩, মরিস ৪১/২, মুস্তাফিজ ৪৫/০

পাঠকের মতামত:

খেলা এর সর্বশেষ খবর

খেলা - এর সব খবর



রে