ঢাকা, রবিবার, ১৬ মে ২০২১, ১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৮

বাটলার মুস্তাফিজের দূর্দান্ত খেলার পরেও ম্যাচ হেরে দুষলেন অধিনায়ক সাঞ্জু স্যামসন

২০২১ এপ্রিল ২০ ১০:৪১:২২
বাটলার মুস্তাফিজের দূর্দান্ত খেলার পরেও ম্যাচ হেরে দুষলেন অধিনায়ক সাঞ্জু স্যামসন

মঈন আলি ও স্যাম কারানের অল রাউন্ডার নৈপুণ্যে চেন্নাই সুপার কিংস জয় পায় রাজস্থান রয়্যালসের বিরুদ্ধে ৪৫ রানে।টসে জিতে বোলিং করার সিদ্ধান্ত নেয় ব্যাঙ্গালোর অধিনায়ক সাঞ্জু স্যামসন। সাবধানী খেলতে থাকা রুতুরাজ গাইকওয়াদ কে ১০ রানে ফিরিয়ে প্রথম উইকেট এনে দেয় মুস্তাফিজ। প্রথম ওভারে মাত্র রান দেয় ৪। এরপর ডু প্লেসিস ও মঈন আলি প্রতিরোধের চেষ্টা চালান। ডু প্লেসিসের ১৭ বলে ৩৩ রানের সুন্দর ইনিংস থামে ক্রিস মরিস কে উইকেট দিয়ে।

মঈন আলি বিদায় নেয় রাহুল তেওয়াতিয়ার বলে। ১৮ করে সুরেশ রায়না ফেরত যায় সাকারিয়ার বলে। ১৭ বলে ২৭ রান আসে রায়ুডুর ব্যাট হতে। এরপর চেতান সাকারিয়া মাহেন্দ্র সিং ধোনি কে ফেরায় ১৮ রানে। শেষ দিকে স্যাম কারান করে ৬ বলে ১৩ ও ডি জে ব্রাভো ৮ বলে ২০ রান।

কারও ব্যাট হতেই বড় স্কোর আসেনি তবে ছোট ছোট স্কোরে শেষ পর্যন্ত তারা সংগ্রহ করে ৯ উইকেটে ১৮৮ রান। মুস্তাফিজ ৪ ওভারে ৩৭ রান দিয়ে ১ উইকেট পায় এবং তার ওভারে ২ টি রান আউট হয়। এছাড়াও সর্বোচ্চ ৩ উইকেট নেয় চেতান সাকারিয়া।

১৮৯ রানের লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে শুরু টা খুব ভালো হয়নি রাজস্থান রয়্যালসের। স্যাম কারান কে ছয় মারার পরের বলেই নিজেকে বিলিয়ে দেন তিনি। এরপর সাঞ্জু স্যামসন ১ রানে বিদায় নেয় কারানের বলে। ব্যাকফুটে যাওয়া রাজস্থান কে এগিয়ে নেয় জস বাটলার।

২০ বলে ১৭ রান করে দল কে চাপে ফেলে সিবাম দুবে। ৫ চার ও ২ ছয় থেকে বাটলার ৪৯ করে জাদেজার বলে বিদায় নেয়। মূলত বাটলারের বিদায়েই ম্যাচ শেষ হয়ে যায়। শেষ দিকে তেওয়াতিয়া ও উনাদকাট শুধু ব্যবধানই কমায় তাতে শেষ পর্যন্ত রাজস্থান রয়্যালস হেরে বসে ৪৫ রানে।

এই ম্যাচ হারের পর এর কারন ব্যাখ্যা করেছেন দলটির অধিনায়ক সাঞ্জু স্যামসন। তার মতে মিডল অর্ডার ভেঙে পড়া এবং বোলারদের অন্তত ১০-১৫ রান বেশি দেয়ার কারনেই ম্যাচ হেরেছে তার দল।

স্যামসন বলেন, ‘’আমার মনে হয় তাড়া করার জন্য এটি ভালো একটি স্কোর ছিল। তবে আমরা মিডল অর্ডারে বেশ কিছু উইকেট হারিয়েছি। আমাদের বোলাররা ভালো বল করেছিল, কিন্তু তাদের ব্যাটসম্যানরাও ভালো ব্যাটিং করেছে এই ম্যাচে।‘’

রাজস্থান বোলাররা অন্তত ১০ থেকে ১৫ রান বেশি দিয়েছেন বলে মনে করেন তিনি। স্যামসনের ভাষ্য, ‘’শেষের দিকে আমাদের বোলাররা ১০-১৫ রান বেশি দিয়েছে। শিশির ছিল না, বলের টার্ন দেখে আমরা কিছুটা অবাকই হয়ে গিয়েছিলাম। আমি মনে করি টুর্নামেন্ট জুড়ে আমাদের ইতিবাচক থাকতে হবে সব ম্যাচেই, এটি আমাদের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ন। এই ফরম্যাটের ক্রিকেট খেলতে হলে কিছুটা ঝুঁকি নিয়েই রান করতে হয়। আমাদের দলের সাকারিয়া অনেক ভালো করেছে আজকে। আমরা হারলেও এই ম্যাচ থেকে ইতিবাচক অনেক কিছুই নেয়ার আছে আমাদের।

পাঠকের মতামত:

খেলা এর সর্বশেষ খবর

খেলা - এর সব খবর



রে