ঢাকা, বুধবার, ১৬ জুন ২০২১, ২ আষাঢ় ১৪২৮

এইমাত্র শেষ হলো দোলেশ্বর ও তামিমের প্রাইম ব্যাংকের খেলা, শেষ বলে নাঠকীয় জয়

২০২১ জুন ১০ ১৪:০৫:৪৬
এইমাত্র শেষ হলো দোলেশ্বর ও তামিমের প্রাইম ব্যাংকের খেলা, শেষ বলে নাঠকীয় জয়

আজ শুরু হয়েছে ঢাকা প্রিমিয়ার লীগ(ডিপিএল) ষষ্ঠ রাউন্ডের খেলা। আজ মুখোমুখি হয় টেবিলের শীর্ষে থাকা প্রাইম দোলেশ্বর স্পোর্টিং ক্লাব ও তামিমের প্রাইম ব্যাংক।অবিশ্বাস্য কীর্তির জন্ম দিতে গিয়েও শেষ মুহূর্তে ব্যর্থ হলেন কামরুল ইসলাম রাব্বি। ম্যাচ জিততে ৩১ রান প্রয়োজন ছিল প্রাইম দোলেশ্বর স্পোর্টিং ক্লাবের।

প্রাইম ব্যাংকের পেসার রুবেল হোসেনের করা প্রথম পাঁচ বলে ৪টি বিশাল ছয়ের মারে ২৬ রান নিয়ে নেন রাব্বি। কিন্তু শেষ বলে পাঁচ রানের চাহিদায় ১ রানের বেশি করতে পারেননি।

যার ফলে শেষ ওভারে ২৭ রান নিয়েও ম্যাচটি জিততে পারেনি প্রাইম দোলেশ্বর। টর্নেডো ব্যাটিংয়ে মাত্র ১২ বলে ৩৮ রান করেও পরাজিত দলেই থাকতে হলো কামরুল রাব্বিকে।

চলতি ঢাকা প্রিমিয়ার লিগ ক্রিকেটে প্রাইম দোলেশ্বরের এটিই প্রথম পরাজয়। অন্যদিকে পঞ্চম জয়ে টেবিলের শীর্ষে উঠে গেছে প্রাইম ব্যাংক। ম্যাচটিতে আগে ব্যাট করে প্রাইম ব্যাংক করেছিল ১৫১ রান। জবাবে ৯ উইকেট হারিয়ে ১৪৮ রানে থেমেছে দোলেশ্বরের ইনিংস।

বল হাতে দোলেশ্বরের সেরা পারফরমার ছিলেন কামরুল রাব্বি। নিজের ৪ ওভারে এক মেইডেনসহ মাত্র ২২ রান খরচায় নিয়েছিলেন ২ উইকেট। মূল দায়িত্ব বোলিং হওয়ায় এটুকুতেই তার কাজ শেষ হওয়ার কথা ছিল।

কিন্তু ব্যাটসম্যানদের ব্যর্থতায় ব্যাট হাতেও জাগিয়েছিলেন জয়ের সম্ভাবনা। প্রাইম ব্যাংকের করা ১৫১ রানের জবাবে স্বীকৃত ব্যাটসম্যানদের কেউই তেমন ভালো ব্যাটিং করতে পারেননি।

মার্শাল আইয়্যুব ২২, ফজলে মাহমুদ ২১, শরিফুল্লাহ ১৯, ফরহাদ রেজা ১৩ ও সাইফ হাসান ১৩ রান করে আউট হলে দলীয় ৯৮ রানেই ৭ উইকেট হারিয়ে ফেলে দোলেশ্বর। ইনিংসের ১৮তম ওভারে তাইবুর পারভেজও ফিরে যান সাজঘরে।

তখন জয়ের জন্য বাকি ছিল ১৫ বলে ৪৮ রান, উইকেটে আসেন রাব্বি। শরিফুল ইসলামের করা সেই ওভারের শেষ দুই বলে জোড়া চার মারেন তিনি, সমীকরণ দাঁড়ায় ১২ বলে ৪০ রানে। মোস্তাফিজের করা ১৯তম ওভারে এক ছক্কা মেরে আউট হন রেজাউর রহমান রাজা। ওভার থেকে আসে ৯ রান, বাকি থাকে আরও ৩১ রান।

ম্যাচে তখনও পর্যন্ত ৩ ওভারে ১৯ রান খরচায় ২ উইকেট নেয়া রুবেল হোসেনকে শেষ ওভারের জন্য ডাকেন অধিনায়ক এনামুল হক বিজয়। কিন্তু অধিনায়কের আস্থার প্রতিদান ঠিকভাবে দিতে পারেননি রুবেল।

শেষ ওভারের প্রথম বলে ছক্কা হাঁকান রাব্বি, পরের বলে আসে ২ রান। পরের তিন বলের ঠিকানা আবারও সোজা দড়ির ওপারে। অর্থাৎ প্রথম ৫ বলেই চলে আসে ২৬ রান। শেষ বল থেকে পাঁচ রানের প্রয়োজনে ১ রানের বেশি নিতে পারেননি রাব্বি। ফলে ৩ রানের জয় পায় প্রাইম ব্যাংক।

রুবেলের শেষ ওভারের এমন বোলিং বাদে পুরো ইনিংসে নিয়ন্ত্রণ ছিল প্রাইম ব্যাংকের হাতেই। দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৩ উইকেট নিয়েছেন মোস্তাফিজ। এছাড়া ৪ ওভারে মাত্র ১৬ রানে ২ উইকেট শিকার শরিফুলের।

অলরাউন্ড পারফরম্যান্সে ২২ রানে ২ উইকেটের পর ১২ বলে ৩৮ রানের ইনিংস খেলেও ম্যাচসেরার পুরস্কার পাননি কামরুল রাব্বি। ম্যাচের প্রথম ইনিংসে ৫০ বলে ৫৫ রান করে ম্যাচসেরা নির্বাচিত হয়েছেন মোহাম্মদ মিঠুন।

বিকেএসপির তিন নম্বর মাঠে টস জিতে ব্যাট করতে নেমে প্রাইম ব্যাংকের শুরুটা খুব ভাল ছিল না। তামিম ইকবাল ৮ ও রনি তালুকদার ফেরেন ০ রানে। অধিনায়ক এনামুল বিজয়ের ব্যাট থেকে আসে ১৮ বলে ২৯ রান। একপ্রান্ত আগলে রেখে ৫৫ রান করেন মিঠুন।

তবে প্রাইম ব্যাংককে দেড়শ ছাড়ানো সংগ্রহ এনে দেয়ার কৃতিত্ব নিশ্চিতভাবেই অলক কাপালির। ইনিংসের শেষদিকে ১ চার ও ২ ছয়ের মারে ১৪ বলে ২৬ রানের ক্যামিও ইনিংস খেলেন তিনি। এছাড়া ২০ রান করেন নাহিদুল ইসলাম।

পাঠকের মতামত:

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

খেলা এর সর্বশেষ খবর

খেলা - এর সব খবর



রে