ঢাকা, বুধবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২১, ৭ আশ্বিন ১৪২৮

আইস মোল্লা ও মামুনের ব্যাটিং ঝড়ে আফগানিস্তানকে বিশাল রানের টার্গেট দিলো বাংলাদেশ

২০২১ সেপ্টেম্বর ১৪ ১২:৫৪:৫২
আইস মোল্লা ও মামুনের ব্যাটিং ঝড়ে আফগানিস্তানকে বিশাল রানের টার্গেট দিলো বাংলাদেশ

আজ সিরিজ নির্ধারণী ম্যাচে আফগানিস্তানের বিপক্ষে মাঠে নেমেছে স্বাগতিক বাংলাদেশ। টস জিতে প্রথম ব্যাটিং করতে নেমেছে বাংলাদেশ। এর আগে প্রথম দুই ম্যাচ জিতে সিরিজে ২-০ ব্যাবধানে এগিয়ে আছে বাংলাদেশ। আজকের ম্যাচ জিতলেই সিরিজ জিতে নিবে বাংলাদেশ।

সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে বাংলাদেশ ও আফগানিস্তানের অনূর্ধ্ব-১৯ সিরিজে অবশেষে মিললো রানের দেখা। যার পুরো কৃতিত্ব বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ দলের টপঅর্ডার ব্যাটসম্যান আইচ মোল্লার। যুব ক্রিকেট ক্যারিয়ারে নিজের প্রথম সেঞ্চুরিতে দলকে সুবিধাজনক অবস্থানে নিয়ে গেছেন আইচ।

প্রথম দুই ম্যাচ জিতে সিরিজে আগেই শক্ত অবস্থান দখল করেছে বাংলাদেশের যুবারা। আজ জিতলে দুই ম্যাচ হাতে রেখেই নিশ্চিত হয়ে যাবে পাঁচ ম্যাচ সিরিজের শিরোপা। সে লক্ষ্যে আইচের ১০৮ রানের সুবাদে নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৬ উইকেট হারিয়ে ২২২ রানের সংগ্রহ দাঁড় করিয়েছে বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ দল।

সিরিজের আগের দুই ম্যাচে রান তুলতে বেশ সংগ্রাম করতে হয়েছে ব্যাটসম্যানদের। আজ তৃতীয় ম্যাচেও ছিলো একই দশা। তবে উজ্জ্বল ব্যতিক্রমই ছিলেন আইচ মোল্লা। অপরপ্রান্তের ব্যাটসম্যানরা যেখানে রানের জন্য হাপিত্যেশ করেছেন, সেখানে সাবলীল ব্যাটিং করতে পেরেছেন ১৯ বছর বয়সী এ যুবা।

টস জিতে ব্যাট করতে নেমে শুরুটা মোটেও ভালো ছিলো না স্বাগতিকদের। মাত্র ৬ রানেই সাজঘরে ফিরে যান ওপেনার প্রান্তিক নওরোজ নাবিল (১) ও তিন নম্বরে নামা খালিদ হাসান (০)। এরপর আরেক ওপেনার মফিজুল ইসলামকে নিয়ে প্রতিরোধ গড়েন আইচ মোল্লা। কিন্তু অত্যধিক ধীর ব্যাটিং করতে থাকেন মফিজুল।

তৃতীয় উইকেটের জুটিটিতে আসে ৬১ রান, ২৪ ওভার থেকে। ইনিংসের ২৯তম ওভারে সাজঘরে ফেরার আগে ৯৩ বল খেলে ২৭ রান করেন মফিজুল। তার বিদায়ের পর আক্রমণাত্মক ব্যাটিং শুরু করেন আইচ। অধিনায়ক এসএম মেহরব হাসানকে নিয়ে চতুর্থ উইকেটে যোগ করেন ৫৩ রান, মাত্র ৭.২ ওভারে। যেখানে মেহরবের অবদান মাত্র ৭ রান।

ইনিংসের ৩৬তম ওভারে সাজঘরে ফেরেন মেহরব। ততক্ষণে ব্যক্তিগত ফিফটিতে পৌঁছে যান আইচ। এরপর উইকেটরক্ষক তাহজিবুল ইসলাম কিছুক্ষণ সঙ্গ দেন আইচকে। এ জুটিতে আসে ৩৩ রান, তাহজিবুল ফেরেন ১৮ রান করে। তখন ৪৩ ওভার শেষে বাংলাদেশ দলের সংগ্রহ ছিলো ৫ উইকেটে ১৫৩ রান।

সেখান থেকে ঝড়ো ফিনিশিং দেন আইচ মোল্লা ও আব্দুল্লাহ আল মামুন। দুজনের ষষ্ঠ উইকেট জুটিতে ৫.১ ওভারে আসে ৪৯ রান। ইনিংসের ৪৭তম ওভারে ফাইন লেগ দিয়ে বাউন্ডারি হাঁকিয়ে সেঞ্চুরি পূরণ করেন আইচ। শতরানে পৌঁছতে খেলেন ১২৪ বল, হাঁকান ৭টি চার ও ৪টি বিশাল ছয়।

এরপর অবশ্য বেশিক্ষণ থাকতে পারেননি তিনি। ইনিংসের ৪৯তম ওভারের প্রথম বলে ছক্কা হাঁকানোর চেষ্টায় ধরা পড়েন লংঅফ বাউন্ডারিতে। ততক্ষণে তার নামের পাশে ১৩০ বলে ৮ চার ও ৪ ছয়ের মারে ১০৮ রানের ইনিংস লেখা হয়ে গেছে। আব্দুল্লাহ আল মামুন ঝড়ো ক্যামিওতে ২০ বলে এক চার ও তিন ছয়ের মারে ৩২ রান করে অপরাজিত থাকেন।

আফগান যুবাদের পক্ষে সর্বোচ্চ ৩ উইকেট নেন ফয়সাল খান আহমাদজাই। এছাড়া নাভিদ জাদরান, ইজহারুল হক ও ইজাজ আহমেদের শিকার ১টি করে উইকেট।

পাঠকের মতামত:

খেলা এর সর্বশেষ খবর

খেলা - এর সব খবর



রে