ঢাকা, রবিবার, ১৭ অক্টোবর ২০২১, ২ কার্তিক ১৪২৮

ব্রেকিং নিউজ: আইসিসির কারনেই বাংলাদেশের এই অবস্থা

২০২১ সেপ্টেম্বর ১৯ ১২:২৪:৩৩
ব্রেকিং নিউজ: আইসিসির কারনেই বাংলাদেশের এই অবস্থা

বাংলাদেশ জার্সি নান সময় দেখা যায় নান আলোচনা সমলোচনা। বিশেষ জার্সিতে স্পন্সরের নামটি বড় থাকার কারন বা কোনো সময় জার্সিতে স্পন্সরের নাম থাকায়। কিন্তু আসল কারন ভিন্ন। জার্সিতে স্পন্সর প্রতিষ্ঠানের নাম ব্যবহার নিয়ে প্রায়শই অভিযোগ তোলেন বাংলাদেশের সমর্থকরা।

বিশেষত জার্সিতে একই প্রতিষ্ঠানের নাম বারবার ব্যবহার করায় তা দৃষ্টিকটু ঠেকে অনেকের কাছে। যদিও আইসিসির নিয়মের কারণেই বাংলাদেশের জার্সিতে একই প্রতিষ্ঠানের নাম একাধিকবার ব্যবহার করা হয়।

করোনাকালে ক্রিকেট বোর্ডগুলোকে ক্ষতি পুষিয়ে নেওয়ার সুযোগ করে দিতে জার্সিতে পাঁচটি স্পন্সরের নাম ব্যবহারের অনুমোদন দেয়। তবে বাংলাদেশের কিট স্পন্সর হিসেবে ব্যবহার করার মত স্পন্সর আছে মাত্র দুটি (দারাজ ও হাংরিনাকি)। এ কারণেই জার্সিতে স্পন্সরের জন্য নির্ধারিত স্থানে একই প্রতিষ্ঠানের নাম বারবার দেখা যাচ্ছে।

বাংলাদেশের জার্সি প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠান স্পোর্টস অ্যান্ড স্পোর্টসের প্রতিনিধি মেহতাব সেন্টু বিডিক্রিকটাইমকে বলেন, ‘দর্শকদের কাছ থেকে আমরা প্রায়ই জার্সিতে স্পন্সরের আধিক্য নিয়ে প্রশ্ন শুনি। বর্তমান জার্সিতে বেশ কয়েক জায়গায় দারাজের নাম আছে, মোট চারটি জায়গায়। করোনা পরিস্থিতির পর আইসিসি চাচ্ছিল প্রত্যেক বোর্ড যেন ক্ষতি পুষিয়ে নিতে বেশি স্পন্সর জার্সিতে থাকে।’

‘আমাদের তো একটাই স্পন্সর- দারাজ। সে কারণে আমাদের জার্সিতে চার জায়গায় দারাজের নামই যায়। আমাদের আরও স্পন্সর থাকলে দ্বিপাক্ষিক সিরিজে এই স্পন্সরগুলোর নাম আসত।’

তিনি জানান, বাংলাদেশ দলের স্পন্সরের সংখ্যা বাড়লে স্পন্সরের জায়গাগুলোতে সেসব প্রতিষ্ঠানের নাম ব্যবহারের সুযোগ রয়েছে। মূলত আইসিসির নিয়ম মেনেই জার্সি প্রস্তুতকারকরা বিষয়টি করে থাকেন।

তিনি বলেন, ‘কেন এক প্রতিষ্ঠানের নাম এতবার আসে এতে অনেকে বিরক্ত হন। আমাদের একটাই স্পন্সর আছে, হাতে প্রদর্শনের জন্য আছে হাংরিনাকি। এখানে বোর্ডেরও কিছু করার নেই, আমাদেরও কিছু করার নেই। এটা আইসিসির নিয়ম মেনেই হয়। অন্যান্য দলে দেখবেন ২-৩টি স্পন্সর থাকে। আমাদের থাকে না, তাই দারাজকে বিভিন্ন জায়গায় বসাতে হয়।’

পাঠকের মতামত:

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

খেলা এর সর্বশেষ খবর

খেলা - এর সব খবর



রে