ঢাকা, রবিবার, ১৭ অক্টোবর ২০২১, ২ কার্তিক ১৪২৮

আরসিবিকে উড়িয়ে দিলো কলকাতা

২০২১ সেপ্টেম্বর ২০ ২৩:১৪:৩৭
আরসিবিকে উড়িয়ে দিলো কলকাতা

লিগ টেবিলের তৃতীয় স্থানে থাকা রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালোরের বিরুদ্ধে লড়াই দিয়ে আইপিএল ২০২১-এর দ্বিতীয়ার্ধের যাত্রা শুরু করে কলকাতা নাইট রাইডার্সের। পয়েন্ট টেবিলের সাত নম্বরে থেকে প্রথমার্ধে খেলা শেষ করেছিল কেকেআর। যদিও দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেই কোহলিদের বিরুদ্ধে দাপুটে জয় ছিনিয়ে নেয় নাইট রাইডার্স।

দশম ওভারে চাহালের বলে ৩টি বাউন্ডারি মেরে কেকেআরকে জেতালেন অভিষেককারী বেঙ্কটেশ আইয়ার। আরসিবির ৯২ রানের জবাবে ব্যাট করতে নেমে কলকাতা ১০ ওভারে ১ উইকেটের বিনিময়ে ৯৪ রান তুলে ম্যাচ জিতে যায়। বেঙ্কটেশ ৭টি চার ও ১টি ছক্কার সাহায্যে ২৭ বলে ৪১ রানের ঝোড়ো ইনিংস খেলে অপরাজিত থাকেন। রাসেল ব্যাট করতে নামলেও কোনও বল খেলার সুযোগ হয়নি তাঁর। কলকাতা ১০ ওভার বাকি থাকতেই ৯ উইকেটের বিশাল জয় তুলে নেয় আরসিবির বিরুদ্ধে। আরসিবির জার্সিতে এটিই ছিল কোহলির ২০০তম আইপিএল ম্যাচ। সেদিক থেকে বিরাটের মাইলস্টোন ম্যাচে লজ্জার হার রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালোরের।

দশম ওভারের প্রথম বলে গিলকে ফেরালেন যুজবেন্দ্র চাহাল। নিশ্চিত হাফ-সেঞ্চুরি হাতছাড়া করেন গিল। ৬টি চার ও ১টি ছক্কার সাহায্যে ৩৪ বলে ৪৮ রান করে মহম্মদ সিরাজের হাতে ধরা পড়েন তিনি। কেকেআর দলগত ৮২ রানে প্রথম উইকেট হারায়। যদিও কেকেআরের জয় কেবল সময়ের অপেক্ষা।

জয়ের জন্য শেষ ১১ ওভারে কলকাতা নাইট রাইডার্সের দরকার ১১ রান। ৯ ওভার শেষে কেকেআর বিনা উইকেটে ৮২ রান তুলেছে। গিল ৪৮ ও বেঙ্কটেশ ২৯ রানে ব্যাট করছেন।

৮ ওভারের শেষে কেকেআর বিনা উইকেটে ৭৫ রান তুলেছে। জয়ের জন্য ১২ ওভারে দরকার ১৮ রান। শুভমন গিল ৪২ ও বেঙ্কটেশ আইয়ার ২৮ রানে ব্যাট করছেন।

পাওয়ার প্লে'র ৬ ওভারে কেকেআর কোনও উইকেট না হারিয়ে ৫৬ রান তুলেছে। শুভমন গিল ৩০ ও বেঙ্কটেশ আইয়ার ব্যক্তিগত ২২ রানে অপরাজিত রয়েছেন।

দাপুটে শুরু কলকাতা নাইট রাইডার্সের। ৫ ওভার শেষে তারা কোনও উইকেট না হারিয়ে ৪৫ রান তুলেছে। বেঙ্কটেশ আইয়ার ৩টি চার ও ১টি ছক্কার সাহায্যে ২২ রানে ব্যাট করছেন। গিল অপরাজিত ব্যক্তিগত ১৯ রানে।

কেকেআরের হয়ে ওপেন করতে নামেন বেঙ্কটেশ আইয়ার ও শুভমন গিল। আরসিবির হয়ে বোলিং শুরু করেন মহম্মদ সিরাজ। জোড়া বাউন্ডারি মেরে আইপিএলে যাত্রা শুরু করেন আইয়ার। প্রথম ওভারে ১০ রান ওঠে।

বরুণ ১৩ রানে ৩টি উইকেট নেন। রাসেল ৯ রানে ৩টি উইকেট দখল করেন। ২৪ রানে ২ উইকেট নেন ফার্গুসন। প্রসিধ ২৪ রানে ১ উইকেট পকেটে পোরেন।

কোহলি ৫, পাডিক্কাল ২২, ভরত ১৬, ম্যাক্সওয়েল ১০, এবিডি ০, সচিন বাবি ৭, হাসারাঙ্গা ০, জেমিসন ৪, হার্ষাল ১২, সিরাজ ৮, চাহাল অপরাজিত ২ রান করেন।

১৯তম ওভারের শেষ বলে মহম্মদ সিরাজের উইকেট তুলে নিলেন রাসেল। ১টি বাউন্ডারির সাহায্যে ১০ বলে ৮ রান করে ক্রিজ ছাড়েন সিরাজ। আরসিবি ১৯ ওভারে ৯২ রানে অল-আউট হয়ে যায়। জয়ের জন্য কলকাতার দরকার ৯৩ রান।

১৭তম ওভারের তৃতীয় বলে হার্ষাল প্যাটেলের উইকেট তুলে নিলেন লকি ফার্গুসন। ২টি বাউন্ডারির সাহায্যে ১০ বলে ১২ রান করে বোল্ড হন হার্ষাল। আরসিবি ৮৩ রানে ৯ উইকেট হারায়। ক্রিজে শেষ ব্যাটসম্যান যুজবেন্দ্র চাহাল।

১৬তম ওভরের তৃতীয় বলে রান-আউট হলেন কাইল জেমিসন। ১২ বলে ৪ রান করে ক্রিজ ছাড়েন কিউয়ি অল-রাউন্ডার। আরসিবি ৭৬ রানের মাথায় ৮ উইকেট হারায়। ক্রিজে নতুন ব্যাটসম্যান মহম্মদ সিরাজ। ১৬ ওভারে আরসিবি ৭৯/৮য

ম্যাচে তৃতীয় শিকার বরুণ চক্রবর্তীর। ১৪তম ওভারের চতুর্থ বলে বরুণ ফিরিয়ে দিলেন সচিন বাবিকে। ১৭ বলে ৭ রান করে নীতিশ রানার হাতে ধরে পড়েন সচিন। আরসিবি ৬৬ রানে ৭ উইকেট হারায়। ক্রিজে নতুন ব্যাটসম্যান হার্ষাল প্যাটেল।

১৩ ওভার শেষে রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালোর ৬ উইকেটের বিনিময়ে ৬৬ রান তুলেছে। সচিন বাবি ৭ ও কাইল জেমিসন ২ রান করে ব্যাট করছেন।

আইপিএলে অভিষেক ম্যাচে প্রথম বলেই এলবিডব্লিউ হয়ে সাজঘরে ফিরলেন হাসারাঙ্গা। পরপর ২ বলে বরুণ তুলে নিলেন ২টি উইকেট। আরসিবি দলগত ৬৩ রানে ৬ উইকেট হারায়। ক্রিজে নতুন ব্যাটসম্যান কাইল জেমিসন।

১২তম ওভারের চতুর্থ বলে গ্লেন ম্যাক্সওয়েলকে বোল্ড করেন বরুণ চক্রবর্তী। ১৭ বলে ১০ রান করে ক্রিজ ছাড়েন অজি অল-রাউন্ডার। কোনও চার-ছয় মারতে পারেননি তিনি। আরসিবি দলগত ৬৩ রানে ৫ উইকেট হারায়। ক্রিজে নতুন ব্যাটসম্যান অভিষেককারী হাসারাঙ্গা।

ক্রিসে এসে প্রথম বলেই বোল্ড হলেন এবি ডি'ভিলিয়র্স। একই ওভারে ভরত ও এবিডির উইকেট তুলে নিলেন দ্রে রাস। ১ বলে কোনও রান না করেই সাজঘরে ফেরেন ডি'ভিলিয়র্স। আরসিবি দলগত ৫২ রানে ৪ উইকেট হারায়। ক্রিজে নতুন ব্যাটসম্যান সচিন বাবি। ৯ ওভার শেষে আরসিবি ৫২/৪।

বল হাতে দলকে সাফল্য এনে দিলেন আন্দ্রে রাসেল। ইনিংসের নবম ওভারের প্রথম বলে তিনি তুলে নেন নবাগত কেএস ভরতের উইকেট। ১টি বাউন্ডারির সাহায্যে ১৯ বলে ১৬ রান করে শুভমন গিলের হাতে ধরা পড়েন ভরত। আরসিবি দলগত ৫১ রানে ৩ উইকেট হারায়। ক্রিজে নতুন ব্যাটসম্যান এবি ডি'ভিলিয়র্স।

বিরাট কোহলিকে ইনিংসের দ্বিতীয় ওভারেই ফেরত পাঠিয়েছে কলকাতা। পাওয়ার প্লে'র শেষ বলে এবং লকি ফার্গুসন তুলে নেন দেবদূত পাডিক্কালের উইকেট। ৩টি বাউন্ডারির সাহায্যে ২০ বলে ২২ রান করে দীনেশ কার্তিকের দস্তানায় ধরা পড়েন দেবদূত। আরসিবি দলগত ৪১ রানে ২ উইকেট হারায়। ক্রিজে নতুন ব্যাটসম্যান গ্লেন ম্যাক্সওয়েল। ১১ রানে ব্যাট করছেন ভরত।

দ্বিতীয় ওভারে প্রসিধ কৃষ্ণার চতুর্থ বলে এলবিডব্লিউ হয়ে সাজঘরে ফেরেন বিরাট কোহলি। রিভিউ নিয়েও নিজের উইকেট বাঁচাতে পারেননি আরসিবি অধিনায়ক। ১টি বাউন্ডারির সাহায্যে ৪ বলে ৫ রান করে ক্রিজ ছাড়েন কোহলি। আরসিবি দলগত ১০ রানে প্রথম উইকেট হারায়। ক্রিজে নতুন ব্যাটসম্যান কেএস ভরত। সুতরাং, শুরুতেই বিরাট সাফল্য পেল কলকাতা। আরসিবি ২ ওভারে ১২/১।

আরসিবির হয়ে ইনিংসের গোড়াপত্তন করতে নামেন বিরাট কোহলি ও দেবদূত পাডিক্কাল। কলকাতার হয়ে বোলিং শুরু করেন বরুণ চক্রবর্তী। সুতরাং, স্পিনারকে দিয়ে বোলিং আক্রমণ শুরু করে কলকাতা। প্রথম ওভারে ব্যাঙ্গালোর কোনও উইকেট না হারিয়ে ৪ রান তুলেছে।

আইপিএলে বরাবর লাল জার্সি পরে মাঠে নামে রয়্যাস চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালোর। তবে মরশুমে একটি করে ম্যাচে তারা সুবজায়নের প্রচারে সবুজ জার্সিতে খেলতে নামে। এবার কলকাতা নাইট রাইডার্সের বিরুদ্ধে আরসিবি নীল জার্সিতে মাঠে নামে। করোনার বিরুদ্ধে লড়াই চালানো প্রথমসারির যোদ্ধাদের সম্মান জানাতেই ব্যাঙ্গালোরের এই অভিনব প্রয়াস।

চার বিদেশির কোটায় ব্যাঙ্গালোর মাঠে নামায় ম্যাক্সওয়ে, ডি'ভিলিয়র্স, হাসারাঙ্গা ও জেমিসনকে।

প্রথম একাদশ: বিরাট কোহলি (ক্যাপ্টেন), দেবদূত পাডিক্কাল, কেএস ভরত, গ্লেন ম্যাক্সওয়েল, এবি ডি'ভিলিয়র্স (উইকেটকিপার), ওয়ানিন্দু হাসারাঙ্গা, সচিন বাবি, কাইল জেমিসন, হার্ষাল প্যাটেল, মহম্মদ সিরাজ ও যুজবেন্দ্র চাহাল।

প্লেয়িং ইলেভেন জায়গা হল না শাকিব আল হাসানের। চার বিদেশির কোটায় কলকাতা মাঠে নামায়, মর্গ্যান, রাসেল, নারিন ও ফার্গুসনকে।

প্রথম একাদশ: বেঙ্কটেশ আইয়ার, শুভমন গিল, নীতিশ রানা, রাহুল ত্রিপাঠী, ইয়ন মর্গ্যান (ক্যাপ্টেন), আন্দ্রে রাসেল, দীনেশ কার্তিক (উইকেটকিপার), সুনীল নারিন, লকি ফার্গুসন, বরুণ চক্রবর্তী ও প্রসিধ কৃষ্ণা।

কলকাতা নাইট রাইডার্সের হয়ে অভিষেক হয় বেঙ্কটেশ আইয়ারের। অন্যদিকে, আরসিবির হয়ে প্রথমবার মাঠে নামেন কেএস ভরত ও ওয়ানিন্দু হাসারাঙ্গা। সুতরাং, একই ম্যাচে দু'দলের মোট তিনজন ক্রিকেটারের অভিষেক হয়।

রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালোরের হয়ে ২০০ নম্বর ম্যাচে মাঠে নামেন বিরাট কোহলি। মাইলস্টোন ম্যাচে টস-ভাগ্য সঙ্গ দেয় আরসিবি অধিনাককে। টস জিতে বিরাট কোহলি প্রথমে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নেন। সুতরং, টস হেরে শুরুতে বোলিং করবে কলকাতা নাইট রাইডার্স।

প্যাট কামিন্স আগেই জানিয়ে দিয়েছিলেন যে, তিনি আইপিএলের দ্বিতীয়ার্ধে অংশ নেবেন না। তাঁর বদলে কেকেআর দলে নেয় নিউজিল্যান্ডের টিম সাউদিকে।

অন্যদিকে আরসিবি দলে পাচ্ছে না অ্যাডাম জাম্পা, ফিন অ্যালেন, ড্যানিয়েল স্যামস, কেন রিচার্ডসন ও ওয়াশিংটন সুন্দরকে। কোহলিরা বদলি হিসেবে দলে নিয়েছেন ওয়ানিন্দু হাসারাঙ্গা, টিম ডেভিড, দুষ্মন্ত চামিরা, জর্জ গার্টন ও বাংলার আকাশ দীপকে।

আমিরশাহি লেগের খেলা শুরুর আগে বিরাট কোহলির রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালোর ৭ ম্যাচে ১০ পয়েন্ট নিয়ে লিগ টেবিলের তিন নম্বরে রয়েছে। অন্যদিকে, কলকাতা নাইট রাইডার্স অবস্থান করছে পয়েন্ট টেবিলের সাত নম্বরে। তাঁদের সংগ্রহে রয়েছে ৭ ম্যাচে ৪ পয়েন্ট।

আইপিএল ২০২১-এর প্রথম লেগে কলকাতা নাইট রাইডার্সকে ৩৮ রানে পরাজিত করে রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালোর। প্রথমে ব্যাট করে আরসিবি নির্ধারিত ২০ ওভারে ৪ উইকেটের বিনিময়ে ২০৪ রান তোলে। গ্লেন ম্যাক্সওয়েল ৭৮ ও এবি ডি'ভিলিয়র্স অপরাজিত ৭৬ রান করেন। ২টি উইকেট নেন বরুণ চক্রবর্তী।

জাবাবে ব্যাট করতে নেমে কলকাতা ২০ ওভারে ৮ উইকেটে ১৬৬ রানে আটকে যায়। আন্দ্রে রাসেল ৩১, ইয়ন মর্গ্যান ২৯, শাকিব আল হাসান ২৬, রাহুল ত্রিপাঠী ২৫, শুভমন গিল ২১ ও নীতিশ রানা ১৮ রান করেন। ৩টি উইকেট নেন কাইল জেমিসন। ২টি উইকেট দখল করেন হার্ষাল প্যাটেল।

পাঠকের মতামত:

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

খেলা এর সর্বশেষ খবর

খেলা - এর সব খবর



রে