ঢাকা, রবিবার, ১৭ অক্টোবর ২০২১, ২ কার্তিক ১৪২৮

নেইমার বা রোনালদো নয় মেসির নিশ্চিত পাওয়া ব্যালন ডি’অর কেড়ে নিতে চায় অন্য ফুটবলার

২০২১ সেপ্টেম্বর ২১ ১৬:৪৮:২০
নেইমার বা রোনালদো নয় মেসির নিশ্চিত পাওয়া ব্যালন ডি’অর কেড়ে নিতে চায় অন্য ফুটবলার

প্রায় দীর্ঘ২৮ বছর পর লিওনেল মেসির হাতদিয়ে আর্জেন্টিনা জিতেছে কোনো মোজরট্রফি। সর্বশেষ কোপা আমেরিকা জিতে আলবিসেলেস্তে আছে মহা খুশিতে। এটি ছিল তাদের ১৪ তম কোপা আমেরিকার শিরোপা জয়।

সাবেক বার্সা তারকা মেসি সেরা খেলোয়াড় এবং সেই টুর্নামেন্টে গোল্ডেন বুট জিতেছেন। সাবেক ক্লাব বার্সেলোনার হয়ে দুর্দান্ত ফর্মে ছিল। আর সে কারণেই এই বার ব্যালন ডি’অর প্রার্থীদের তালিকার শীর্ষে এই পিএসজি তারকা।

আগামী ডিসেম্বরে ঘোষণা হবে ফুটবলারের জন্য সর্বোচ্চ সম্মানজনক পুরস্কার ব্যালন ডি’অর। হাতে সময় আছে এখনও প্রায় ৩ মাস। এর মধ্যে শুরু হয়ে গেছে ইউরোপের প্রতিটি লীগ৷ চ্যাম্পিয়ন্স লীগের ১ম রাউন্ডও চলছ। এতে জমে উঠেছে প্রতিযোগীদের প্রতিদ্বন্দ্বিতা।

‘ব্যালন ডি’অরের দৌড়ে কে এগিয়ে’, শিরোনামে একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে ফুটবল বিষয়ক ওয়েবসাইট গোল ডট কম। ব্যালন ডি’অরের দৌড়ে প্রত্যাশিতভাবেই এবার শীর্ষে আছেন আর্জেন্টাইন মহাতারকা লিওনেল মেসি।

২০২১ মৌসুমে ৩৬ গোল, ১৪ এসিস্ট, আর্জেন্টিনার হয়ে কোপা আমেরিকা এবং বার্সেলোনার হয়ে কোপা দেল রে জয়। দারুণ সময় কেটেছে এই ফুটবল জাদুকরের। সপ্তমবারের মতো ফুটবলের ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ এ পুরস্কার উঠছে মেসির হাতেই উঠেতে যাচ্ছে, এমনটাই বলেছেন অনেকে।

যদিও বার্সেলোনা ছেড়ে পিএসজিতে যোগদানের পর ছন্দ হারিয়েছেন। লীগ ওয়ানে পিএসজির হয়ে ৩ ম্যাচ খেলে এখনো কোন গোলের দেখা পাননি এই আর্জেন্টাইন তারকা। এই সুযোগে প্রতিদ্বন্দ্বিতায় লেভানডফস্কি-জর্জিনহোসহ অন্যদের সুযোগ আরও জোরালো হয়েছে।

মেসির পর দ্বিতীয় অবস্থানে আছেন বায়ার্ন মিউনিখের পোলিশ তারকা ফুটবলার রবার্ট লেভানডস্কি। ২০২১ সালে ৪৮ বার জালের দেখা পেয়েছেন এই ফুটবলার। এছাড়া বুন্দেসলিগা, ক্লাব ওয়ার্ল্ড কাপ এব ডিপিএল সুপারকাপ জয়ের রেকর্ডও রয়েছে। আগামী কয়েক মাসে মেসির সঙ্গে জোরালো লড়াই হবে বয়ার্ন তারকার, এ কথা নিশ্চিত করেই বলা যায়।

চেলসির ইতালিয়ান মিডফিল্ডার জর্জিনহো আছেন তৃতীয় অবস্থানে। জাতীয় দলের হয়ে ইউরো চ্যাম্পিয়নশিপ ও চেলসির হয়ে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের শিরোপা জিতেছেন তিনি। চলতি মৌসুমে ৫ গোল এবং ২ এসিস্ট রয়েছে এই চেলসি তারকার।

চতুর্থ স্থানে থাকা চেলসির এন’গোলো কান্তে কান্তের ঝুলিতে আছে ১ গোল, ১ এসিস্ট। এছাড়া রয়েছে চ্যাম্পিয়ন্স লীগ ও উয়েফা সুপার কাপ জয়ের রেকর্ড।

অন্যদিকে পঞ্চম স্থানে আছেন চেলসির নতুন সাইনিং তারকা লুকাকু। ২৯ গোল, ৮ এসিস্টের পাশাপাশি জিতেছেন সিরি’আ শিরোপাও।

৬ষ্ঠ স্থানে থাকা আর্লিং হল্যান্ডের আছে ৪১ গোল এবং ১৩ এসিস্ট। ব্রুশিয়া ডর্টমুন্ডের এই ইয়াং স্টার অনেকটা এগিয়ে থাকবেন।

সপ্তম ও অষ্টম অবস্থানে আছেন যথাক্রমে পিএসজির ফরাসি ফরোয়ার্ড কিলিয়ান এমবাপ্পে এবং ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের পর্তুগিজ তারকা ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো। এমবাপ্পে ৩৩ গোল, ১১ এসিস্ট, কাপ দে ফ্রান্স এবং ট্রপি দে চ্যাম্পিয়ন্স জিতেছেন এই মৌসুমে। সাবেক রিয়াল তারকা রোনালদা ৩৩ গোল ও ৪ এসিস্টে অবস্থান করছেন তালিকার সবার শেষে। মৌসুমটা যে ট্রফি শূন্যই কাটিয়েছেন তিনি।

পাঠকের মতামত:

খেলা এর সর্বশেষ খবর

খেলা - এর সব খবর



রে