ঢাকা, রবিবার, ২৮ নভেম্বর ২০২১, ১৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৮

চাহালকে নিয়ে মন্তব্যে করে গ্রেফতার যুবরাজ অবশেষে মিললো মুক্তি

২০২১ অক্টোবর ১৮ ১১:৪৮:০০
চাহালকে নিয়ে মন্তব্যে করে গ্রেফতার যুবরাজ অবশেষে মিললো মুক্তি

ভারতীয় প্রাক্তন অলরাউন্ডার যুবরাজ সিং যুবেন্দ্র চাহাল এবং কুলদীপ যাদব সম্পর্কে বর্ণবাদী মন্তব্য করার জন্য রোহিত শর্মার সঙ্গে নিছকই মজার ছলে জাতিবিদ্বেষী মন্তব্য করে ফেঁসে গেলেন ভারতের সাবেক অলরাউন্ডার যুবরাজ সিং। ভারতে দলিত সম্প্রদায়ের পক্ষে কাজ করা আইনজীবী রজত কলসানের অভিযোগের প্রেক্ষিতে প্রাক্তন ভারতীয় অধিনায়ককে গতকাল গ্রেপ্তার করা হয়েছিল। যদিও পরে তিনি অন্তর্বর্তীকালীন জামিনে মুক্তি পান।

এক বছর আগে লকডাউনে ভিডিও প্লাটফর্ম টিকটকে একটি নাচের ভিডিও পোস্ট করেছিলেন ভারতীয় ক্রিকেট দলের স্পিনার যুজবেন্দ্র চাহাল। যা নিয়ে সতীর্থ রোহিত শর্মার সঙ্গে এক সাক্ষাৎকারে চরম বৈষম্যমূলক মন্তব্য করেন যুবরাজ।

প্রচন্ড সমালোচনার মুখে পড়ে ঘটনায় সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে দুঃখ প্রকাশ করে ক্ষমা চেয়েছিলেন বিশ্বকাপজয়ী এই অলরাউন্ডার। নিজের টুইটার পাতায় অনুশোচনামূলক বার্তা দিয়ে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের ইতিহাসে একমাত্র ক্রিকেটার হিসেবে ছয় বলে ছয়টি ছক্কা হাঁকানো যুবরাজ লিখেছিলেন,

“আমি কখনও কোনও জাতি, বর্ণ, ধর্ম অথবা লিঙ্গের বৈষম্যে বিশ্বাস করিনি। সারা জীবন মানুষের জন্য কাজ করেছি। আমি মানুষকে মর্যাদা দেওয়ায় বিশ্বাস করি। মানুষ একে অপরকে নিঃস্বার্থ ভাবে সম্মান করুক, এটাই চেয়ে এসেছি। বন্ধুদের কথা বলার সময় আমার একটি কথার অন্য অর্থ করা হয়েছে, যেটা অনভীপ্রেত। ভারতের একজন দায়িত্বশীল নাগরিক হিসেবে আমি যদি কারও ভাবাবেগে আঘাত করে থাকি, তার জন্য ক্ষমা চাইছি। আমি ভারতকে ভালবাসি আর ভারতবাসী সব সময় আমার অন্তরে থাকে।”

তবে যুবরাজ প্রকাশ্যে ক্ষমা চাইলেও, তখনও ঝামেলা পুরোপুরি মিটেনি। সেই ঘটনায় ঝাঁসি শহরে যুবরাজের সিং নামে থানায় অভিযোগ দায়ের করেছিলেন আইনজীবি রজত কালসান। গতকাল তাঁর করা সেই অভিযোগের ভিত্তিতেই হানসি পুলিশ যুবরাজ সিংকে গ্রেফতার করে। যদিও পরে জামিনে মুক্তি পান তিনি।

ইন্ডিয়া টুডের প্রতিবেদনে জানা যায় যে, হরিয়ানা পুলিশ যুবরাজকে হিসার পুলিশ বিভাগের গেজেটেড অফিসার মেসে বসিয়ে প্রায় এক ঘন্টা সময় ধরে টানা জিজ্ঞাসাবাদ করে। পরে হাইকোর্টের নির্দেশ অনুসারে তাঁকে জামিনে মুক্তি দেওয়া হয়। ডিএসপি বিনোদ শঙ্কর যুবরাজকে জিজ্ঞাসাবাদ করেন। এমনকি তাঁর বয়ানও রেকর্ড করা হয়!

এপ্রিলের শেষ দিকে ইনস্টাগ্রামে লাইভ সেশনে আড্ডা দিচ্ছিলেন যুবরাজ সিং ও রোহিত শর্মা। সেখানেই এই ঘটনার উৎপত্তি। চাহাল প্রসঙ্গে বলতে যেয়ে যুবরাজ বলেন, “ইয়ে b***gi লোগ কো কইয়ি কাম নেহি হ্যয় ইয়ে ইউজি (যুজবেন্দ্র) অউর ইসকো (কুলদীপ)! (যুজবেন্দ্র ও কুলদ্বীপের মত মানুষের কোন কাজ নেই)!”

পাঠকের মতামত:

খেলা এর সর্বশেষ খবর

খেলা - এর সব খবর



রে