ঢাকা, বুধবার, ১ ডিসেম্বর ২০২১, ১৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৮

ব্রেকিং নিউজ: ‘হালাল মাংস’ বিতর্কে তোলপাড় ভারতীয় ক্রিকেট

২০২১ নভেম্বর ২৪ ১৮:১৫:৪৯
ব্রেকিং নিউজ: ‘হালাল মাংস’ বিতর্কে তোলপাড় ভারতীয় ক্রিকেট

‘হালাল’ বিতর্কে এখন তোলপাড় পুরো ভারতীয় ক্রিকেট। নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজ শুরুর আগে ভারতীয় ক্রিকেটারদের খাবার মেন্যুতে ‘হালাল মাংস’ রাখার পরামর্শ দেয়া হয়েছে বিসিসিআইর পক্ষ থেকে। এরপরই তোলপাড় শুরু হয়। যার ঢেউ লেগেছে অবশেষে ভারতীয় ক্রিকেট সমর্থকদের মাঝেও। যদিও বোর্ড বলছে, তারা এ ধরনের কোনো পরামর্শই দেয়নি।

কানপুরে বৃহস্পতিবার শুরু হবে ভারত-নিউজিল্যান্ড প্রথম টেস্ট। সেই টেস্টের আগে ‘হালাল মাংস’ নিয়ে নজিরবিহীন বিতর্ক তৈরি হলো। সম্প্রতি একটি রিপোর্ট প্রকাশিত হয়েছে, যেখানে বলা হয়েছে, ‘নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে দুই টেস্টের আগে একটি নির্দিষ্ট ডায়েট চার্ট মানতে বলা হয়েছে ভারতীয় দলকে। সেই চার্টে শুধুমাত্র হালাল করা মাংস খাওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। শুয়োরের মাংস এবং গরুর মাংসের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে।’

এ রিপোর্ট প্রকাশিত হওয়ার পর ভারতীয়দের মধ্যে বিস্ময়ের সৃষ্টি হয়েছে। কারণ, ভারতীয় দলের খাদ্য তালিকার ওপর কোনোদিন বিধিনিষেধ চাপানো হয়নি। এই নির্দেশিকার কথা জানাজানি হওয়ার পর চাঞ্চল্য সৃষ্টি হয়। যদিও এই দাবি উড়িয়ে দেন ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের কোষাধ্যক্ষ অরুণ ধুমাল। তিনি দাবি করেছেন, ‘ক্রিকেটারদের খাদ্যাভ্যাসে কখনোই হস্তক্ষেপ করে না বোর্ড।’

‘হালাল মাংস’ বিতর্কে যখন আলোড়িত ভারতীয় ক্রিকেট, তখন নীরবতা ভাঙল বিসিসিআই। নীরবতা ভেঙে বোর্ডের পক্ষ থেকে বিবৃতিও দেওয়া হল। বিসিসিআই’র কোষাধ্যক্ষ অরুণ ধুমাল জানিয়ে দিলেন, বোর্ডের তরফ থেকে এমন ধরনের কোনও খাদ্যতালিকার কথা জানানো হয়নি ক্রিকেটারদের। সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন খবর।

তিনি বলেন, ‘এ ধরনের ডায়েট প্ল্যানের কথা কোনোদিনও বলা হয়নি। আর বলাও হবে না ক্রিকেটারদের। কী খেতে হবে আর কী খাওয়া যাবে না, তা নিয়ে বোর্ড কখনওই কোনও ক্রিকেটারকে কোনও পরামর্শ দেয়নি। ক্রিকেটাররা নিজেদের পছন্দের খাবার খেতেই পারে।’

টি টোয়েন্টি বিশ্বকাপের পরেই এদেশে টি-টোয়েন্টি ও টেস্ট সিরিজ খেলতে এসেছে নিউজিল্যান্ড। টি-টোয়েন্টি সিরিজে ভারত হোয়াইটওয়াশ করেছে কিউয়িদের। বৃহস্পতিবার থেকে শুরু হচ্ছে টেস্ট ম্যাচ। তার আগেই খবর ছড়িয়ে পড়ে, ভারতীয় ক্রিকেটাররা কখন কী খাওয়া-দাওয়া করবেন, সেই মেনুও ঠিক করে ফেলা হয়েছে। মিনি ব্রেকফাস্ট, লাঞ্চ, টি-টাইম স্ন্যাক এবং ডিনারের মেনুও ঠিক করা আছে। সেই মেনুতে রাখা হয়নি শুকরের মাংস বা পর্ক এবং গোমাংস বা বিফ।

তবে উল্লেখ রয়েছে ‘হালাল মাংসের। আর সেখান থেকেই যত বিতর্কের সূত্রপাত। অনেকেই প্রশ্ন তুলেছেন, যে দলে হিন্দু-মুসলিম নির্বিশেষে প্রত্যেকে খেলেন, সেখানে কেন হালাল মাংস রাখা হচ্ছে? ধর্মের নামে এভাবে বিভেদ সৃষ্টি করা উচিত নয় বলেও মত অনেকের।

পাঠকের মতামত:

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

খেলা এর সর্বশেষ খবর

খেলা - এর সব খবর



রে