ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৫ জানুয়ারি ২০২২, ১২ মাঘ ১৪২৮

অবশেষে বাংলাদেশের ঘরোয়া ক্রিকেট নিয়ে মুখ খুললেন ডমিঙ্গো

২০২১ নভেম্বর ২৯ ২১:০৯:৩৩
অবশেষে বাংলাদেশের ঘরোয়া ক্রিকেট নিয়ে মুখ খুললেন ডমিঙ্গো

আরেকটি টেস্টে আরও একটি হতাশাজনক হারের মুখোমুখি বাংলাদেশ। রাসেল ডমিঙ্গোর অধীনেও টেস্টে বাংলাদেশের দুর্ভোগ শেষ হবে বলে মনে হচ্ছে না। সাদা পোশাকের ক্রিকেটে বারবার ব্যর্থতার পরিপ্রেক্ষিতে বাংলাদেশের ঘরোয়া ক্রিকেটের অগ্রগতি নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন ডমিঙ্গো। বাংলাদেশের প্রধান কোচ মনে করেন ঘরোয়া ক্রিকেটে উন্নতি হলে তা ক্ষণিকের জন্যই।

টেস্ট, হতাশা এবং হার। সর্বশেষ ২০ বছরে বাংলাদেশের ক্রিকেটের অবিচ্ছেদ্য অংশ। গত কয়েক বছরে সীমিত ওভারের ক্রিকেটে বাংলাদেশ যতটা উন্নতি করেছে টেস্টে যেন ঠিক ততটাই পিছিয়েছে টাইগাররা। যার উৎকৃষ্ট উদাহরণ চলতি বছরের জানুয়ারিতে ওয়েস্ট ইন্ডিজের দ্বিতীয় সারির দলের বিপক্ষেও টেস্ট সিরিজ হার।

সাদা পোশাকের ক্রিকেটে ভালো করতে ঘরোয়া ক্রিকেটে উন্নতি করার বিকল্প নেই। সেখানেই যেন অন্যান্য দেশের তুলনায় যোজন-যোজন পিছিয়ে বাংলাদেশ। টেস্ট সিরিজ শুরু কিংবা শেষ, সবখানেই প্রশ্নের মুখে থাকে বাংলাদেশের ঘরোয়া ক্রিকেটে। উইকেট নিয়ে সমালোচনার অন্ত নেই। নতুন অভিযোগ আম্পায়ারিং কিংবা একপাক্ষিক টুর্নামেন্টের।

বেশিরভাগ মৌসুম শুরুর আগে গুটি কয়েক দল দেশের সেরা তারকাদের নিয়ে দল সাজায়। তাতে করে বিপাকে পড়তে হয় ছোট সারির দলগুলো। সেই দলের দুই একজন পারফর্ম করলেও দল হিসেবে সেই ধরনের প্রতিযোগিতা গড়ে তুলতে পারেনা।

তাতে করে ক্রিকেটাররা ঘরোয়া ক্রিকেট থেকে বড় কোনো চ্যালেঞ্জ কিংবা প্রতিযোগিতার মুখোমুখি হয় না। যে কারণে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে এসে ভুগতে হয়। কখনও ক্যাচ মিস আবার কখনও আলগা শট খেলে বিপাকে ফেলেন দলকে।

পাকিস্তানের বিপক্ষে সিরিজের প্রথম টেস্টে হারের দ্বারপ্রান্তে বাংলাদেশ। ২০২ রানের লক্ষ্য নিয়ে খেলতে নেমে চতুর্থদিন শেষে বিনা উইকেটে ১০৯ রান সংগ্রহ করেছে পাকিস্তান। তাতে শেষ দিনে সফরকারীদের প্রয়োজন মোটে ৯৩ রান। হাতে রয়েছে ১০ উইকেট।

বাংলাদেশ যখন আরও একটি হারের প্রহর গুনছে তখন দেশের ঘরোয়া ক্রিকেটের উন্নতি নিয়ে প্রশ্ন তুলেন ডমিঙ্গো। বাংলাদেশের ঘরোয়া ক্রিকেটে তেমন কোনো প্রতিযোগিতা নেই বলেও দাবি করেছেন বাংলাদেশের এই প্রধান কোচ। তা নিয়ে হতাশাও প্রকাশ করেছেন তিনি।

এ প্রসঙ্গে ডমিঙ্গো বলেন, ‘আমি ব্যাপক উন্নতি দেখতে পাচ্ছি কিন্তু আমরা সেটা লম্বা সময়ের জন্য ধরে রাখতে পারছি না। ঘরোয়া ক্রিকেটে সম্ভবত লম্বা সময় ধরে প্রতিযোগিতা নেই। চাপ সামলানোর ক্ষেত্রে অবশ্যই আমাদের ঘাটতি রয়েছে। আমরা আমাদেরকে দারুণ একটি পর্যায়ে পেয়েছি কিন্তু তা সম্পূর্ণ করতে পারিনি।’

তিনি আরও বলেন, ‘আমি নিশ্চিত খেলোয়াড়েরাও খুবই হতাশ। আমরা এই ফরম্যাটে উন্নতি করেছি বলে মনে হচ্ছে কিন্তু গুরুত্বপূর্ণ সময়ে গিয়ে আমরা ছোট ভুল করছি। কখনও ক্যাচ পড়ে যাচ্ছে, ব্যাটাররা আলগা শট খেলছে অথবা খারাপ বোলিং স্পেল হচ্ছে। আমরা মনে হয় লম্বা সময় ধরে রাখতে (উন্নতি) পারি না। এটা খুবই হতাশাজনক।’

পাঠকের মতামত:

খেলা এর সর্বশেষ খবর

খেলা - এর সব খবর



রে