ঢাকা, রবিবার, ২৭ নভেম্বর ২০২২, ১৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৯

অবিশ্বাস্য কারনে বন্ধ অস্ট্রেলিয়া বনাম ইংল্যান্ডের মধ্যকার ২য় টেস্ট ম্যাচ

২০২১ ডিসেম্বর ১৭ ১৮:১৩:২৭
অবিশ্বাস্য কারনে বন্ধ অস্ট্রেলিয়া বনাম ইংল্যান্ডের মধ্যকার ২য় টেস্ট ম্যাচ

ইনিংসের নবম ওভারের চতুর্থ বল নিয়ে এগুচ্ছিলেন অস্ট্রেলিয়ার অভিষিক্ত পেসার মাইকেল নেসার। তিনি বল ছাড়ার সময় স্টেডিয়ামের ঠিক পেছনেই হলো বড়সড় এক বজ্রপাত। কোনোমতে সেই ডেলিভারি ছেড়ে দিতে সক্ষম হন ইংল্যান্ডের ব্যাটার ডেভিড মালান।

তবে এরপর আর এক মুহূর্তও মাঠে থাকেননি দুই দলের খেলোয়াড়রা। সঙ্গে সঙ্গে মাঠ ছেড়ে চলে যান তারা। পরে আর মাঠে ফেরানো হয়নি তাদের। এই বজ্রপাতের ফলে ৭ ওভার আগেই শেষ করে দেওয়া হয়েছে দ্বিতীয় দিনের খেলা। যেখানে বেশ চাপেই রয়েছে সফরকারী ইংল্যান্ড ক্রিকেট দল।

দ্বিতীয় দিনের খেলা শেষে ইংল্যান্ডের সংগ্রহ ২ উইকেটে ১৭ রান। স্বাগতিকদের চেয়ে এখনও ৪৫৬ রানের পিছিয়ে রয়েছে তারা। ম্যাচের প্রথম ইনিংসে ৯ উইকেটে ৪৭৩ রানের বড় সংগ্রহে পৌঁছে ইনিংস ঘোষণা করে দিয়েছে অস্ট্রেলিয়া। সেঞ্চুরি হাঁকিয়েছেন মার্নাস লাবুশেন।

দিনের শেষভাগে ব্যাট করতে নেমে সাজঘরে ফিরে গেছেন ইংল্যান্ডের দুই ওপেনার ররি বার্নস ও হাসিব হামিদ। ইনিংসের তৃতীয় ওভারে ৪ রান করা বার্নসকে ফেরান মিচেল স্টার্ক। অভিষিক্ত নেসারের প্রথম উইকেটে পরিণত হওয়ার আগে হাসিব করেন ৬ রান। উইকেটে রয়েছেন জো রুট ও ডেভিড মালান।

আগেরদিন ২ উইকেট হারিয়ে ২২১ রান করেছিল অস্ট্রেলিয়া। আজ দিনের শুরুতেই সেঞ্চুরি তুলে নেন আগেরদিন ৯৫ রানে থাকা লাবুশেন। তিন অঙ্কে পৌঁছতে তিনি খেলেন ২৮৭ বল। এরপর বেশিক্ষণ উইকেটে থাকতে পারেননি। ব্যক্তিগত ১০৩ রানে অলি রবিনসনের বলে লেগ বিফোরের ফাঁদে পড়েন এ টপঅর্ডার ব্যাটার।

এই ইনিংসের পর ২০ ম্যাচের ক্যারিয়ারে ৩৪ ইনিংস খেলে লাবুশেনের সংগ্রহ ৬২.৪৮ গড়ে ২০৬২ রান। টেস্ট ক্রিকেটে ন্যুনতম ২ হাজার রান করা ব্যাটারদের মধ্যে তার গড় এখন দ্বিতীয় সর্বোচ্চ। সবার ওপরে থাকা কিংবদন্তি স্যার ডন ব্র্যাডম্যান ৯৯.৯৪ গড়ে করেছিলেন ৬৯৯৬ রান।

গড়ের হিসেবে ডনকে ছোঁয়ার কথা হয়তো কল্পনাও করা যাবে না। তবে অন্য আরেকটি হিসেবে ঠিকই ডনকে ছাড়িয়ে গেছেন লাবুশেন। ক্যারিয়ারের প্রথম ২০ টেস্টে ব্র্যাডম্যানের পঞ্চাশ ছাড়ানো ইনিংস ছিল ১৫টি। আর লাবুশেন এরই মধ্যে খেলে ফেলেছেন ১৭টি পঞ্চাশ ছাড়ানো ইনিংস। যেখানে ছয় সেঞ্চুরির সঙ্গে রয়েছে ১১টি ফিফটি।

শুধু তাই নয়, দিবারাত্রির টেস্টে বিশ্বের প্রথম ব্যাটার হিসেবে তিন সেঞ্চুরি হাঁকালেন লাবুশেন। পাকিস্তানের বিপক্ষে ২০১৯ সালের নভেম্বরে ১৬২, একই বছর ডিসেম্বরে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ১৪৩ রানের পর এবার ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ১০৩ রান করলেন তিনি।

দিবারাত্রির টেস্ট শুরু হওয়ার পর থেকে এখন পর্যন্ত সেঞ্চুরির দেখা পেয়েছেন ১৯ জন ব্যাটার। এর মধ্যে ১৭ জনই করেছেন একটি করে সেঞ্চুরি। পাকিস্তানের মিডল অর্ডার ব্যাটার আসাদ শফিকের রয়েছে দুইটি দিবারাত্রির টেস্ট সেঞ্চুরি। আর লাবুশেন করলেন তিনটি।

লাবুশেনের বিদায়ের পর হতাশ করেন ট্রাভিস হেড (১৮) ও ক্যামেরন গ্রিন (২)। ফলে দলীয় ৩০০ হওয়ার আগেই ৫ উইকেট হারিয়ে ফেলে অস্ট্রেলিয়া। ষষ্ঠ উইকেটে অ্যালেক্স ক্যারের সঙ্গে ৯১ রানের জুটি গড়েন স্টিভেন স্মিথ। কিন্তু করতে পারেননি নিজের সেঞ্চুরি।

ব্যক্তিগত ৯৫ রানে স্মিথকে লেগ বিফোরের ফাঁদে ফেলেন জিমি অ্যান্ডারসন। এর আগে ৯৬ রানে আউট হয়েছিলেন ডেভিড ওয়ার্নার। ২০০৬ সালের ব্রিসবেন টেস্টের পর এবারই প্রথম অ্যাশেজ সিরিজে এক ইনিংসে দুজন আউট হলেন নব্বইয়ের ঘরে।

এরপর ক্যারিয়ারের প্রথম ফিফটি তুলে নেন উইকেটরক্ষক ব্যাটার অ্যালেক্স ক্যারে। তবে তিনিও সাজঘরে ফিরে যান ৩৯০ রানের মাথায়। পরে অস্ট্রেলিয়াকে পৌনে ৫০০ রান এনে দেওয়ার কৃতিত্ব দুই বোলার মিচেল স্টার্ক ও মাইকেল নেসারের।

অভিষিক্ত নেসার মাত্র ২৪ বলে করেন ৩৫ রান, স্টার্ক অপরাজিত থাকেন ৩৯ বলে ৩৯ রান করে। ইংল্যান্ডের পক্ষে সর্বোচ্চ ৩ উইকেট নেন বেন স্টোকস। অ্যান্ডারসনের শিকার দুইটি।

পাঠকের মতামত:

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

খেলা এর সর্বশেষ খবর

খেলা - এর সব খবর



রে