ঢাকা, শনিবার, ২৮ মে ২০২২, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯

বিপিএল ইতিহাসে কেউ যা পারেনি তাই করে দেখালেন নাহিদুল

২০২২ জানুয়ারি ২৫ ২৩:৪০:১৭
বিপিএল ইতিহাসে কেউ যা পারেনি তাই করে দেখালেন নাহিদুল

ঘরোয়া ক্রিকেটে গত কয়েক বছর ধরেই কার্যকর অলরাউন্ডার হিসেবে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করে ফেলেছেন ডানহাতি অফস্পিনার নাহিদুল ইসলাম। এবারের বিপিএলেও ধারাবাহিকতা দেখাচ্ছেন ২৮ বছর বয়সী এ অলরাউন্ডার। যিনি এবার গড়লেন বিপিএলে এক ম্যাচে সবচেয়ে কম রান দেওয়ার রেকর্ড।

সিলেট সানরাইজার্সের বিপক্ষে প্রথম ম্যাচে ২০ রানে ২ উইকেট নেওয়ার পাশাপাশি ব্যাটিংয়ে ১৬ রান করেছিলেন নাহিদুল, দলের জয়ে নির্বাচিত হয়েছিলের ম্যাচের সেরা খেলোয়াড়। আজ ফরচুন বরিশালের বিপক্ষে নিজেকে ছাড়িয়ে অনন্য উচ্চতায় উঠে গেলেন নাহিদুল।

সাকিব আল হাসান, ক্রিস গেইল, নাজমুল শান্তদের নিয়ে গড়া বরিশালের বিপক্ষে ৪ ওভারের স্পেলে মাত্র ৫ রান খরচ করেছেন নাহিদুল। বিপরীতে সাজঘরে পাঠিয়েছেন সাকিব, গেইল ও সৈকত আলিকে। তার ওভারের একটি ছিল মেইডেন, সবমিলিয়ে ডট বল করেছেন ১৯টি।

বিপিএলের ইতিহাসে এর আগে পুরো ৪ ওভার বোলিং করে সবচেয়ে কম রান দেওয়ার রেকর্ডটি ছিল শহিদ আফ্রিদির ধখলে। তিনি ২০১৫ সালের বিপিএলে সিলেট সুপারস্টারসের জার্সিতে ৪ ওভারে ঠিক ৫ রানই খরচ করেছিলেন, নিয়েছিলেন ২টি উইকেট।

প্রায় সাত বছর পর রান দেওয়ার বিচারে আফ্রিদির পাশে বসার ম্যাচে উইকেট নেওয়ার দিক থেকে আফ্রিদিকেও ছাড়িয়ে গেলেন নাহিদুল। এখন বিপিএলের ইতিহাসে পুরো চার ওভারে সবচেয়ে কম রান দিয়ে বেশি উইকেট নেওয়ার রেকর্ডটি কুমিল্লার এ অফস্পিনারেরই।

বিপিএলে পূর্ণ স্পেলে কম রান খরচের রেকর্ড: ১/ নাহিদুল ইসলাম (কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ানস): ৪-১-৫-৩ (বনাম ফরচুন বরিশাল, ২০২২), ২/ শহিদ আফ্রিদি (সিলেট সুপারস্টারস): ৪-১-৫-২ (বনাম বরিশাল বুলস, ২০১৫), ৩/ জ্যাকব ওরাম (চিটাগং কিংস): ৪-০-৭-২ (বনাম ঢাকা গ্ল্যাডিয়েটরস, ২০১৩),

৪/ রশিদ খান (কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ানস): ৪-০-৭-১ (বনাম রাজশাহী কিংস, ২০১৭), ৫/ সাকিব আল হাসান (ঢাকা ডায়নামাইটস): ৪-১-৮-৪ (বনাম রাজশাহী কিংস, ২০১৭) এছাড়া ৪ ওভারে মাত্র ৮ রান দেওয়ার কৃতিত্ব রয়েছে রবি বোপারা, নাজমুল ইসলাম অপু ও আরাফাত সানির।

উল্লেখ্য, স্বীকৃত টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে পুরো ৪ ওভার বোলিং করে কোনো রান না দেওয়ার রেকর্ডও রয়েছে দুজন বোলারের। ২০২১ সালের ৮ নভেম্বর ভারতের সৈয়দ মুশতাক আলি ট্রফিতে ৪ ওভার বোলিং করে কোনো রান দিয়ে ২ উইকেট নিয়েছিলেন অক্ষয় কারনেওয়ার। তার ছয়দিন পর ১৪ নভেম্বর আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টিতে একই কীর্তি গড়েন কানাডার সাদ বিন জাফর। তিনি পানামার বিপক্ষে ম্যাচে ৪ ওভারে কোনো রান দিয়ে শিকার করেন ২ উইকেট।

পাঠকের মতামত:

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

খেলা এর সর্বশেষ খবর

খেলা - এর সব খবর



রে