ঢাকা, বুধবার, ২ ডিসেম্বর ২০২০, ১৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৭

করোনা ভাইরাসঃ পুরোপুরি সুস্থ হতে যত দিন সময় লাগতে পারে জানালেন বিশেষজ্ঞরা

২০২০ মে ০৭ ১৪:০০:৫০
করোনা ভাইরাসঃ পুরোপুরি সুস্থ হতে যত দিন সময় লাগতে পারে জানালেন বিশেষজ্ঞরা

সারা বিশ্ব এখন করোনায় ভুগছে। বিশ্বের ২১০ টি দেশে চলছে করোনার হানা। করোনা যে শুধু মানুষ মরছে তা নয় অনেক মানুষ সুস্থও হচ্ছে। তবে আমারা সাধারনত জানি ১৪ -৩০ দিনে করোনা ভাল হতে পারে। কিন্তু এই করোনা নিয়ে গবেষণায় বেরিয়ে আসল নতুন এক তথ্য। এই ভাইরাস থেকে পুরোপুরি সুস্থ হতে ১৮ মাশ সময়ও লাগতে পারে।

বেশির ভাগ রোগী করোনা থেকে সাধারণ ঠাণ্ডা জ্বরের মতো কয়েকদিনের মধ্যেই সেরে ওঠেন। জরিপে আভাস পাওয়া যায়, গড়ে দু'সপ্তাহের মধ্যেই তারা ভালো হয়ে যান। কিন্তু কিছু লোক আছেন - যাদের দেহে এই রোগের লক্ষণ দীর্ঘকাল রয়ে যায়। এবং সেটা হতে পারে দেড় বছরও।

যুক্তরাজ্যের ব্রিস্টল শহরের ডেভিড হ্যারিস একজন স্থপতি - বয়স ৪২। তার দেহে প্রথম কোভিড-১৯ এর লক্ষণ দেখা দিয়েছিল সাত সপ্তাহ আগে। তিনি বাড়িতে আইসোলেশনে থাকতে শুরু করলেন - তার স্ত্রী ও শিশু কন্যা থেকে দূরত্ব বজায় রেখে। সপ্তাহ খানেক পরই তিনি ভালো বোধ করতে লাগলেন। কিন্তু আরও দু'সপ্তাহ পর তাকে বিস্মিত করে করোনাভাইরাসের লক্ষণগুলো আবার দেখা দিলো এবং তখন উপসর্গগুলো ছিল গুরুতর।

সেই একই রকম জ্বর, কিন্তু তার সাথে যোগ হলো শ্বাসকষ্ট। তিনি নিশ্চিত হলেন যে এটা করোনাভাইরাসেরই লক্ষণ।‍ এরপর সেরে আবারও সেরে ওঠার পর সপ্তম সপ্তাহে তৃতীয়বারের মতো উপসর্গ দেখা দিলো তার। এ ধরনের অনেকর রোগী পাওয়া যাচ্ছে যারা বার বার বা দীর্ঘ দিন আক্রান্ত অবস্থায় থাকছেন।

লন্ডনের উষ্ণমন্ডলীয় রোগ সংক্রান্ত হাসপাতালের কনসালট্যান্ট ডা. ফিলিপ গোথার্ড বলছেন, বেশির ভাগ রোগীই দ্রুত এবং পূর্ণাঙ্গভাবে সেরে ওঠেন, কিন্তু কিছু লোকের ক্ষেত্রে কাশিটা বেশ কিছু দিন থাকতে পারে।

তা ছাড়া এমন কিছু রোগী আমরা পাচ্ছি যাদের গুরুতর ক্লান্তি এবং অবসন্নতা দেখা দেয় - আর সেটা তিন থেকে ছয় সপ্তাহ পর্যন্ত চলতে থাকে। জ্বর সেরে যাবার অর্থ তার সংক্রমণ আর নেই। তার পরও কাশি থাকলে তাই ভয়ের কিছু নেই, এমনটাই মত বিশেষজ্ঞদের। তবে কোভিড-১৯ সংক্রমণে দীর্ঘদিন ভুগেছেন - এমন রোগীর সংখ্যা কম নয়।

লন্ডনের কিংস কলেজের অধ্যাপক টিম স্পেক্টার বলছেন, কোভিডের উপসর্গগুলো নিয়ে যে জরিপ হচ্ছে তাতে দেখা যায় - 'রোগীদের সেরে উঠতে গড়ে ১২ দিন লাগে। কিন্তু আমরা একটা উল্লেখযোগ্য সংখ্যক রোগী দেখতে পাচ্ছি যাদের উপসর্গগুলো ৩০ দিন বা তারও বেশি সময় ধরে রয়ে যাচ্ছে। এ ব্যাপারে আরো উপাত্ত সংগ্রহ করার পরই আমরা চিহ্নিত করতে পাবো কেন কেউ কেউ সেরে উঠতে দীর্ঘদিন সময় নেন।'

বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকরা বলছেন, যাদের সেরে উঠতে দীর্ঘদিন লাগে, তাদের দরকার প্রচুর বিশ্রাম, স্বাস্থ্যকর খাদ্য গ্রহণ এবং প্রচুর পানি পান করা।

রোগীকে যদি ইনটেনসিভ বা ক্রিটিকাল কেয়ারে থাকতে হয়, তাহলে তার সেরে উঠতেও সময় বেশি লাগবে। বিশেষজ্ঞদের মতে, কোনো রোগীকে সংকটাপন্ন অবস্থায় ক্রিটিকাল কেয়ারে থাকতে হলে, তার পুরোপুরি সুস্থ হতে ১২ থেকে ১৮ মাস পর্যন্ত লাগতে পারে।

পাঠকের মতামত:

লাইফ স্টাইল এর সর্বশেষ খবর

লাইফ স্টাইল - এর সব খবর



রে