ঢাকা, শনিবার, ১৩ এপ্রিল ২০২৪, ৩০ চৈত্র ১৪৩০

বরিশালের জয়ে না খেলেও অন্য দল প্লেঅফে চলে গেল

খেলা ডেস্ক . ২৪আপডেট নিউজ
২০২৪ ফেব্রুয়ারি ১৭ ২০:১২:৪৪
বরিশালের জয়ে না খেলেও অন্য দল প্লেঅফে চলে গেল

ফরচুনা বরিশালকে হারাতে পারলে আরও ভালো হতে পারত সিলেটের জন্য। এমন একটা সময় যা অসম্ভব মনে হচ্ছিল। যে দল টি ১০০ এর বেশি রান হারত পারে তারা এখন জিতার পর্যায়ে চলে গিছিলো। কিন্তু শেষ পর্যন্ত তা হয়নি, ফরচুন বরিশাল ১৮ রানে ম্যাচ জিতেছে এবং এই জয়ের ফলে অনেক কিছুই ঘটেছে।

বরিশালে জয় এখন তারা প্লে অফের দৌড়ে এগিয়ে এবং খুব সুবিধাজনক অবস্থানে রয়েছে। সিলেট হেরেছে এবং পরাজয় আনুষ্ঠানিকভাবে তাদের বিপিএল প্লে-অফ স্থান থেকে ছিটকে দিয়েছে এবং কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স আনুষ্ঠানিকভাবে একটি ম্যাচ না খেলেও প্লে-অফে এগিয়ে যায়।

এই ম্যাচে কত ঘটনা ঘটল ফরচুন বরিশাল কোথায় গেল সেটাকে টার্নিং পয়েন্ট বলছে। প্রথমে পয়েন্ট টেবিলের পরিস্থিতি বিশ্লেষণ করা যাক, যা আগের দিন নিশ্চিত হয়েছিল। রংপুর রাইডার্স প্লে-অফে খেলছে এবং তাদের ১৬ পয়েন্ট রয়েছে। কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স দলের ১৪ পয়েন্ট রয়েছে এবং যেহেতু বরিশাল আজকের ম্যাচটি ১৪ পয়েন্ট নিয়ে জিতেছে, তাই এটি ১৪ পয়েন্ট নিয়ে প্লে-অফের জন্য যোগ্যতা অর্জন করেছে।

কীভাবে ফরচুন বরিশালের পয়েন্ট ১০ ম্যাচে ১২ হলো তাঁদের তো ১৪ পয়েন্ট ১৬ পয়েন্টও হতে পারে ঠিক আছে কিন্তু চারটা দল তো প্লে অফ খেললো। এই ৪টি দলের ১৪ পয়েন্ট হতে পারে কোন কোন দলের। চার দল যদি আমরা বলি তাহলে হচ্ছে চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্স এবং খুলনা টাইগার্সের দুটি দলেরই ১০ ম্যাচে ১০ পয়েন্ট। তাঁদের হাতে ২টি করে ম্যাচ রয়েছে। ২ টি করে ম্যাচ যদি তারা দুটা দলই জিতে তাহলে তাদের ১৪ পয়েন্ট হতে পারে। সেক্ষেত্রে তো কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের প্রথম খেলা নিশ্চিত হয় না। কিন্তু প্রব্লেম যেটা সেটা হচ্ছে চট্টগ্রাম, খুলনা মুখোমুখি ১ ম্যাচ বাকি রয়েছে। ফলে ওখানে তো একটা দল হারবেই ১টা দল হারা মানে ওই দলটির পক্ষে ১২ পয়েন্টের বেশি পাওয়া সম্ভব না। সেই কারণে ১৪ পয়েন্ট পেয়েছে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স তাঁদেরও টপ ফোর এর বাইরে যাওয়ার কোনো সুযোগ নেই।

কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স তাই রংপুর এর পাশাপাশি প্লে অফ নিশ্চিত করে ফেলল। আর সিলেট স্ট্রাইকার্স কী ভাবে বাদ পড়ে গেল তাদের হচ্ছে ছয় পয়েন্টে থাকল ১০ ম্যাচ শেষে তো তাঁদের হাতে ২টি ম্যাচ বাকি রয়েছে। সেই ২টি ম্যাচ জিতলে তাদেরও ১০ পয়েন্ট হতে পারে। এখন এই মুহূর্তে খুলনা টাইগার্সের ১০ পয়েন্ট হয়েছে চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্সের ১০ পয়েন্ট রয়েছে ওই ২টি দল যদি নিজেদের ২টি করে ম্যাচ হারে এবং সিলেট যদি নিজের ২টি ম্যাচ জিতে তাহলেই ৩টি দলেরই ১০ পয়েন্ট হবে এবং সেক্ষেত্রে তো সিলেটের যাওয়ার সম্ভাবনা থাকার কথা। কিন্তু এখানেও প্রবলেম সেই খুলনা আর চট্টগ্রাম এর ম্যাচ এই দুই দলের মুখোমুখি ১ ম্যাচ হয়েছে ৷ ফলে ওই ম্যাচে একটি দল জিতবে। একটি দল জিতলেই তাদের ১২ পয়েন্ট হয়ে যাবে। ফলে সিলেট স্ট্রাইকার্সের আর ওই দফতরে থাকার সুযোগ নেই। প্লে অফ খেলার সম্ভাবনা শেষ হয়ে গেল।

আজকে ফরচুন বরিশালের এই জয়ে ফরচুন বরিশাল প্লে অফের রেসে দারুণ ভাবে টিকে রয়েছে। কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের প্লে অফ নিশ্চিত হয়েছে এবং সিলেট স্ট্রাইকার্সের প্লে অফ থেকে বাদ পড়াটা নিশ্চিত হয়ে গেছে। টার্নিং পয়েন্ট আসলে কোনটা তার আগে যদি বলি যে এই অবিশ্বাস্য ঘটনাটি ঘটে যাচ্ছিল সেটা কীভাবে হল। ধরেন ফরচুন বরিশাল প্রথমে ১৮৩ রান করেছে। এই রান জয়ের জন্য যথেষ্ট হওয়ার কথা। এবারের আসরে সিলেট স্ট্রাইকার কোনও ম্যাচে এত রান করতে পারেনি। ইনফ্যাক্ট দেড়শ ছাড়ানো স্কোর তাদের পুরো টোটাল ছিল মাত্র টি ম্যাচ। ফলে তাদের বিপক্ষে এখানে তাদের কমফর্টেবল থাকার কথা। আর সেটাতে ফরচুন বরিশাল আরও বেশি কমফর্টেবল জায়গায় চলে যায়।

আপনার জন্য বাছাই করা কিছু নিউজ



রে