ঢাকা, রবিবার, ১৪ এপ্রিল ২০২৪, ১ বৈশাখ ১৪৩১

পরাজয়ের দোষ যে কারনে বাবরকে দিলেন হাফিজ

খেলা ডেস্ক . ২৪আপডেট নিউজ
২০২৪ ফেব্রুয়ারি ২২ ১০:৪১:০৫
পরাজয়ের দোষ যে কারনে বাবরকে দিলেন হাফিজ

ভারতে বিশ্বকাপের পরপরই পাকিস্তানি ক্রিকেটারদের ফিটনেস নিয়ে দুঃখ প্রকাশ করেন ওয়াসিম আকরাম। দলের ক্রিকেটাররা কোনো ফিটনেস পরীক্ষা ছাড়াই দলে খেলছেন বলে দাবি করেন সাবেক এই ক্রিকেটার। এবারও একই অভিযোগ তুলেছেন মোহাম্মদ হাফেজ।

দলে থাকার জন্য খেলোয়াড়দের ফিট রাখা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। তাই ক্রিকেট বোর্ড ক্রিকেটারদের কিছু শারীরিক ফিটনেস মানদণ্ড যেমন হুইসেল টেস্ট এবং ইয়ো-ইয়ো টেস্টের বিরুদ্ধে ধরে রাখে। সেখানে পাকিস্তানি ক্রিকেটাররা কোনো ফিটনেস পরীক্ষা ছাড়াই দলে খেলেন। এমনটাই জানিয়েছেন পাকিস্তান জাতীয় দলের সাবেক কোচ হাফিজ।

ফিটনেস টেস্টিং কালচার বন্ধ করে দিলেন দলের সাবেক অধিনায়ক বাবর আজম ও পরিচালক মিকি আর্থার। তাদের পরিকল্পনা ছিল খেলোয়াড়দের যেভাবে ইচ্ছা খেলতে দেওয়া। দায়িত্ব নেওয়ার পর অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে টেস্ট সিরিজ চলাকালীন এই তথ্য দেন দলের কোচ। দ্য প্যাভিলিয়ন শোতে এসব অভিযোগ করেন হাফিজ।

সাবেক এই ডিরেক্টর বলেন আমরা যখন অস্ট্রেলিয়া গিয়েছিলাম তখন খেলোয়াড়দের ফিটনেসের যত্ন নিতে বলেছিলাম। সে সময় আমি ট্রেইনারকে খেলোয়াড়দের ফিটনেস সম্পর্কে জিজ্ঞাসা করলে তিনি আমাকে চমকে যাওয়ার মত কথা বলেন। ছয় মাস আগে অধিনায়ক (বাবর) ও ডিরেক্টর (আর্থার) বলেছিলেন খেলোয়াড়দের ফিটনেস পরীক্ষা বন্ধ করতে এবং খেলোয়াড়রা যেভাবে চান সেভাবে খেলতে দিতে।

দলের ক্রিকেটারদের ফিটনেস নিয়ে হাফিজ জানান যখন খেলোয়াড়দের চর্বির মাত্রা পরীক্ষা করা হয় তখন তাদের সবার ত্বকের ভাঁজ বেশি ছিল। তারা অযোগ্য ছিল এবং তাদের মধ্যে কেউ কেউ ২ কিলো মিটার ট্রায়াল সম্পূর্ণ করতে পারেনি। ৬ মাস আগে নেয়া সিদ্ধান্তটি ফিটনেসের জন্য নির্ধারিত মানদণ্ডকে বাতিল করেছিল। ফিটনেস যদি এমন হয় তবে আপনি পরাজয়ের মুখোমুখি হবেনই।

আপনার জন্য বাছাই করা কিছু নিউজ



রে