ঢাকা, শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০২৪, ৭ বৈশাখ ১৪৩১

বাংলাদেশকে অল-আউট করে উল্টো বিপদে শ্রীলঙ্কা

খেলা ডেস্ক . ২৪আপডেট নিউজ
২০২৪ মার্চ ২৩ ১৮:৫৬:৪৭
বাংলাদেশকে অল-আউট করে উল্টো বিপদে শ্রীলঙ্কা

৯২ রানের লিড নিয়ে খেলতে নেমে শুরুটা ভালো হয়নি শ্রীলঙ্কার। চা বিরতির আগেই নিজেদের প্রথম উইকেট হারিয়েছে শ্রীলঙ্কা। নাহিদ রানার অফ স্টাম্পের বাইরের বলে ডিফেন্স করতে চেয়েছিলেন নিশান মাদুশকা। তবে বল ব্যাটের কানায় লেগে চলে যায় উইকেটরক্ষক লিটন দাসের হাতে। সহজ ক্যাচ হাতছাড়া করেননি তিনি।

ফলে ২০ বলে ১০ রান করেই ফিরতে হয় এই ওপেনারকে। দ্বিতীয় সেশন শেষে শ্রীলঙ্কার সংগ্রহ দাঁড়ায় ১ উইকেট হারিয়ে ১৯ রান। চা বিরতির পর আবারও লঙ্কান শিবিরে আঘাত হেনেছিলেন রানা। লেগ স্টাম্পের ওপর করা বাউন্সারে পুল করতে গিয়ে বিভ্রান্ত হয়ে উইকেটের পেছনে ক্যাচ দিয়েছেন ৩ রান করা কুশাল মেন্ডিস।

এরপর শ্রীলঙ্কার হয়ে প্রতিরোধ গড়ার চেষ্টা করেন দিমুথ করুনারত্নে ও অ্যাঞ্জেলো ম্যাথিউস। টানা ১৭ ওভার পেসারদের বোলিং করানোর পর স্পিনার নামিয়েই উইকেট তুলে নিয়েছে বাংলাদেশ। তাইজুল আউট করেন ম্যাথিউসকে। তাইজুলের অফ স্টাম্পের বাইরে টার্ন করে লাফিয়ে ওঠা বলে কট বিহাইন্ড হন ২২ রান করা ম্যাথিউস।

এর ফলে করুনারত্নের সঙ্গে তার ২৮ রানের জুটি ভাঙে। এরপর দীনেশ চান্দিমালকে থিতু হতে দেননি মেহেদী হাসান মিরাজ। নিজের প্রথম বলেই তিনি আউট করেছেন এই লঙ্কান ব্যাটারকে। মিরাজের অফ স্পিন ডেলিভারি অন সাইডে খেলতে চেয়েছিলেন চান্দিমাল। তবে ব্যাটে-বলে করতে পারেননি। বল আঘাত হানে প্যাডে। সঙ্গে সঙ্গেই জোরালো আবেদন করেন বাংলাদেশের ফিল্ডাররা।

যদিও সাড়া দেননি আম্পায়ার। রিভিউ নেবেন নাকি নেবেন না সন্দিহান ছিলেন বাংলাদেশ অধিনায়ক শান্ত। তবে শেষ মুহূর্তে রিভিউয়ের সিদ্ধান্ত নেয় বাংলাদেশ। রিপ্লেতে দেখা যায় বল লেগ স্টাম্পে আঘাত করত। ফলে থার্ড আম্পায়ার আউটের ঘোষণা দেন। এরপর লঙ্কানদের ইনিংস ধরে রেখেছিলেন করুনারত্নে ও ধনঞ্জয়া ডি সিলভা।

শেষ বিকেলে বাংলাদেশকে সাফল্য এনে দিয়েছেন পেসার শরিফুল ইসলাম। তার শর্ট অব লেংথ ডেলিভারিতে পুল করতে চেয়েছিলেন করুনারত্নে। তবে ব্যাটে-বলে ঠিক মতো করতে পারেননি। বল চলে যায় ফাইন লেগে। সেখানে ঝুঁকে সহজ ক্যাচ নিয়েছেন রানা। ফলে পঞ্চম উইকেটের পতন হয় লঙ্কানদের। এরপর নাইট ওয়াচম্যান বিশ্ব ফার্নান্দোকে নিয়ে দিনের খেলা শেষ করে এসেছেন ধনঞ্জয়া। তিনি অপরাজিত আছেন ২৩ রানে। আর বিশ্ব ব্যাট করছেন ২ রান নিয়ে।

বাংলাদেশ যে ব্যাটিং বিপর্যয়ে পড়বে সেইটা বোঝা গিয়েছিল আগের দিনই। দিনের শেষ ভাগে ব্যাট করতে নেমে ৩ উইকেট হারায় বাংলাদেশ। যেমন ভাবা তেমন কাজ। দ্বিতীয় শুরুতেই উইকেটের পতন বাংলাদেশের। দলীয় সেঞ্চুরি হওয়ার আগেই ৫ উইকেট নেই বাংলাদেশের। দিনের প্রথম সেশনে মাহমুদুল হাসান জয় এবং শাহাদাত হোসেনকে হারিয়েছে বাংলাদেশ।

প্রথম দিন বাংলাদেশ শেষ করে ৩ উইকেটে ৩২ রান নিয়ে। নাইটওয়াচম্যান হিসিবে নামা তাইজুল ইসলামকে নিয়ে ব্যাটিং করতে নামেন জয়। কিন্তু খুব একটা সুবিধা করতে পারেনি এই ওপেনার। ১২ রান করে প্যাভিলিয়নে ফিরতে হলো তাকে। এরপর ব্যাটিংয়ে আসেন শাহাদাত হোসেন দীপু। জুটি গড়ার চেষ্টা করনে তাইজুলের সাথে। আশা জাগাচ্ছিল বাংলাদেশকে তখনই আক্রমণে আসেন লাহিরু কুমারা। আর তাতেই সাফল্য পায় লঙ্কানরা।

বলে বাড়তি বাউন্স ছিল বুঝতে পারেননি দীপু। ব্যাটের কানায় লেগে চলে যায় স্লিপে। ধনাঞ্জয়া ডি সিলভা নেন দিনের দ্বিতীয় ক্যাচ। ৮৩ রানে বাংলাদেশ হারায় ৫ম উইকেট। ব্যক্তিগত ১৮ রানে সাজঘরে ফেরেন দীপু।

তাইজুলকে সঙ্গ দিতে এরপর ক্রিজে এসেছেন অভিজ্ঞ লিটন কুমার দাস। দুজনে মিলে পার করেছেন বাংলাদেশের দলীয় শতরান। লিটন খেলছেন একেবারেই টেস্ট মেজাজে। আর টেলএন্ডার হয়েও উইকেট আগলে রেখেছেন তাইজুল ইসলাম। কিন্তু টাইগারদের এই জুটিও বেশিক্ষণ টেকেনি। লাহিরু কুমারার দুর্দান্ত ইনসুইং ভেঙে দেয় লিটনের প্রতিরোধ। দলীয় ১২৪ এবং ব্যক্তিগত ২৫ রানে ফেরেন লিটন। লাঞ্চ বিরতি থেকে ফিরে ৪৭ রানে ফিরলেন তাইজুল। নিজেদের প্রথম ইনিংসে ১৮৮ রানে অল-আউট বাংলাদেশ। ৯২ রানের লিড পেল শ্রীলঙ্কা।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

শ্রীলঙ্কা (প্রথম ইনিংস) - ২৮০/১০ (৬৮ ওভার) (ধনাঞ্জয়া ডি সিলভা ১০২, কামিন্দু মেন্ডিস ১০২; খালেদ ৩/৭২, নাহিদ রানা ৩/৮৭)

বাংলাদেশ (প্রথম ইনিংস) - ১৮৮/১০ (৫১.৩ ওভার) (তাইজুল ৪৭, লিটন ২৫, শাহাদাত দিপু ১৮, খালেদ ২২, শরিফুল ১৫; লাহিরু ৩/৩১, ফার্নান্দো ৪/৪৮, রাজিথা ৩/৫৬)

শ্রীলঙ্কা (দ্বিতীয় ইনিংস) - ১১৯/৫ (৩৬.০ ওভার) (করুনারত্নে ৫২, ম্যাথিউস ২২, ধনঞ্জয়া ২৩*; রানা ২/৪২, তাইজুল ১/১২)

আপনার জন্য বাছাই করা কিছু নিউজ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



রে