ঢাকা, বুধবার, ২৯ মে ২০২৪, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

ঈদের দিন রাস্তায় তরুণ-তরুণীর মারামারির আসল কারণ ফাঁস

জাতীয় ডেস্ক . ২৪আপডেট নিউজ
২০২৪ এপ্রিল ১৩ ১১:৫৮:১৪
ঈদের দিন রাস্তায় তরুণ-তরুণীর মারামারির আসল কারণ ফাঁস

ঈদের দিন এক তরুণীকে প্রকাশ্যে রাস্তায় নির্যাতনের ভিডিও ক্লিপ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে। তবে ভাইরাল হওয়া তরুণ দম্পতির মধ্যে স্বামী-স্ত্রীর সম্পর্ক বলে জানা গেছে। তাদের মধ্যে মারামারি হয় মূলত মান-অভিমানকে কেন্দ্র করে।

রেকর্ড করা ভিডিওটিতে দেখা যাচ্ছে সাদা ও কালো পাঞ্জাবি পায়জামা পরা ২৬-২৭বছর বয়সী এক যুবক এবং কালো ট্রাউজার ও কালো সালোয়ার কামিজ পরা এক তরুণী হাত ধরে পূর্ব দিক থেকে পশ্চিম দিকে হেঁটে যাচ্ছেন। তরুণের পেছনের দিকে কালো পাঞ্জাবি অর্ধেক ছেঁড়া। হাঁটার এক পর্যায়ে নির্মাণাধীন একটি ভবনের সামনে ওই তরুণীকে ঘুষি মারেন চুল টানা যুবকটি এগিয়ে যেতেই পেছন থেকে যুবকের হাত চেপে ধরেন ওই তরুণী। এরপর খানিকটা দুজনে হেঁটে সামনে এগিয়ে তরুণ ওই তরুণীকে আবার ধাক্কা দিয়ে মাটিতে ফেলে দেয়।

তরুণী উঠে পুনরায় ওই তরুণের হাত ধরে এবং সামনে হাঁটতে থাকে। এক পর্যায়ে জনৈক জামাল স্যারের বাসার সামনে ওই তরুণ তরুণীকে চুলের মুঠি ধরে কিলঘুষি মারতে থাকেন এবং ধাক্কা মেরে রাস্তার পাশে ফেলে দেন। এভাবে দফায় দফায় তরুণীকে মারধর করা হয়। ওই সময় রাস্তা দিয়ে যানবাহন ও পথচারীরা চলাচল করলেও কেউ এগিয়ে আসেননি। ঈদের দিন সন্ধ্যার দিকে ৪৬ সেকেন্ড ধারণ করা একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়লে মুহূর্তের মধ্যে তা ভাইরাল হয়ে যায়।

নেটিজেনরা ভিডিওর নিচে নানা ধরনের কমেন্ট করছেন। তবে পরিচয় মিলেছে সেই তরুণ-তরুণীর। তরুণীর নাম মিম। তার বাবার নাম মিলন। কালাইয়া লঞ্চ ঘাট এলাকায় তাদের বাসা। এক বছর আগে উপজেলার চন্দ্রদ্বীপ ইউনিয়নের কামরুল নামের এক তরুণের সঙ্গে তার বিয়ে হয়। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক নির্যাতিত ওই তরুণীর এক ঘনিষ্ঠ আত্মীয় জানান, ঈদের দিন ওই তরুণ তার শ্বশুরের বাসায় আসেন। এরপর স্ত্রীর সঙ্গে মান-অভিমান করে বাসা থেকে বেড় হয়ে যান। স্ত্রীও তার পিছু নেয়। একপর্যায়ে রাস্তায় বসে তাদের মাঝে মারামারি, ধস্তাধস্তি ও টানাটানির ঘটনা ঘটে।

কামরুল নামে এক পথচারী বলেন, তরুণ জোড় কদমে হেঁটে যাচ্ছিলেন। তরুণী তার পেছন দিক থেকে কালো পাঞ্জাবি ধরে থামানোর চেষ্টা করতেই পাঞ্জাবির পেছনের অংশ ছিঁড়ে যায়। তখন ওই তরুণ ক্ষুব্ধ হয়ে তরুণীকে কিলঘুষি মারতে থাকেন। এভাবে তরুণীকে কয়েক দফা মারধর করা হয়। এ ব্যাপারে বাউফল থানার ওসি শোনিত কুমার গায়েন বলেন, ভিডিওটি দেখেছি। নির্যাতিত তরুণীর পক্ষ থেকে থানায় কোনো অভিযোগ করা হয়নি। তবে পুলিশ ঘটনাটি খতিয়ে দেখছে।

আপনার জন্য বাছাই করা কিছু নিউজ



রে