ঢাকা, বুধবার, ২৯ মে ২০২৪, ১৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

MD. Razib Ali

Senior Reporter

বিশ্বকাপের আগে ক্যাপ্টেন বদল! শান্তর সেরা একাদশে থাকাই প্রশ্নবিদ্ধ

খেলা ডেস্ক . ২৪আপডেট নিউজ
২০২৪ মে ০৮ ১৩:০৩:৪৪
বিশ্বকাপের আগে ক্যাপ্টেন বদল! শান্তর সেরা একাদশে থাকাই প্রশ্নবিদ্ধ

আর মাত্র ২৩ দিন পর শুরু হবে আইসিসির মোগা আসর টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ। এই বিশ্বকাপ ঘিরে সব দেশ তাদের দল ঘোষণা করছে। বাংলাদেশও তাদের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের দল আইসিসির কাছে পাঠিয়েছে। তবে এখনো আনুষ্টানিক ভাবে ঘোষণা করেনি। তবে আজকে বিশ্বকাপ দল নিয়ে নয় আজ আলোচনা করবে নাজমুল হোসেন শান্ত কি অধিনায়ক হওয়ার যোগ্য। বা বিশ্বকাপে বাংলাদেশ নতুন অধিনায়ক নিয়ে খেলবে। আর সেই অধিনায়ক হওয়ার দৌড়ে বা কে এগিয়ে।

চলমান টি-টোয়েন্টি সিরিজে নাজমুল হোসেন শান্ত’র যে পারফরমেন্স তাতে তার বিশ্বকাপ দলে সুযোগ পাওয়াটাই একটা অবিশ্বাস্য ব্যাপার। সেখানে সে অধিনায়কের দায়িত্বে ভাবতে গেলে অনেক কিছু মনের মধ্যে শঙ্কা দেখা দিচ্ছে। কেননা চলমান টি-টোয়েন্টি সিরিজে নিজে তো রান করতে পারেননি আবার দলের বোলারদের সঠিক ভাবে ব্যবহার করতে পারেননি।

যেখানে শুরুতেই জিম্বাবুয়ের ৫-৬টা উইকেট পড়ে যাওয়ার পরও ৬০-৭০ রানের পার্টনারশীপ গড়ে ফেলে। সিরিজের শেষ হওয়া তিনটিই ম্যাচেই এমন ঘটনা ঘটেছে। দলের মেইন বোলারদের আগেই ব্যবহার করে ফেলছেন তিনি। যার ফলে শেষের দিকে জিম্বাবুয়ের ব্যাটাররা রান তুলছেন ঝড়ের গতিতে। শেষ ম্যাচে যদি সাইফউদ্দিন ও তাসকিনের ওভার গুলোর যে কোনো একটা খারাপ করতো তাহলে ম্যাচ হারতে বাংলাদেশ।

বিশ্বকাপেই এই রকম হলে হারতে হবে বাংলাদেশকে। কেননা সেখানে জিম্বাবুয়ে থাকবে না। তার থেকেই আরও শক্তিশালী দল থাকবে। যা এই রকম সুযোগ হাতছাড়া করবেন না। তাছাড়াও নেন পারফরমার একজন অধিনায়ক কিভাবে দলকে মোটিভেট করবেন। সেটাও একটা বিষয়।

জিম্বাবুয়ে সিরিজের তিন ম্যাচে খেলে সর্বমোট করেছেন ৪৩ বল খেলে ৪৩ রান। সট্রাইক রেট ১০০। এই হলো বাংলাদেশ অধিনায়ক টি-টোয়েন্টিতে স্ট্রাইক রেট। এই ভাবে ব্যাটিং করে তিনি কিভাবে অরেকজন লিড করবেন। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে প্রথম টি-টোয়েন্টি ম্যাচে করেছেন ২৪ বলে ২১ রান, তৃতীয় টি-টোয়েন্টি ম্যাচে ১৫ বলে ১৬ রান ও আজ তৃতীয় টি-টোয়েন্টি ম্যাচে করেছেন ৪ বলে ৬ রান।

তবে এখন প্রশ্ন উঠতেই পারে কাকে দেয়া হতে পারে অধিনায়কের দায়িত্ব। এখানে অপশন বেশি নাই। একমাত্র মাহমুদউল্লাহ হলেই কোনো রকম বিতর্ক হবে না। কেননা মাহমুদউল্লাহ’র সাথে কোনো ক্রিকেটারের কোনো রকম সমস্যা নাই। যেমনটা সাকিবকে নিয়ে বিতর্ক হয়। আবার দারুন ছন্দে আছেন তিনি। ২০২৩ ওয়ানডে বিশ্বকাপ ও তার পর থেকে তার ব্যাট যেন ধারালো তলোয়ার।

মাহমুদউল্লাহ যদি অধিনায়ক হয় তাহলো কোনো বিতর্ক হবে না। কেননা তিনি এক দিকে পারফরমার অন্যদিকে সবাই তাকে সম্মান করে। তাছাড়া আর যারা আছে তারা কেউ অধিনায়ক হওয়ার মত যোগ্য হয়ে উঠতে পারেনি।

আপনার জন্য বাছাই করা কিছু নিউজ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



রে