ঢাকা, রবিবার, ২৩ জুন ২০২৪, ৯ আষাঢ় ১৪৩১

লেগ বাইয়ের ৪ রান না দেওয়াতে অবিশ্বাস্য ভাবে যা বললেন তামিম

খেলা ডেস্ক . ২৪আপডেট নিউজ
২০২৪ জুন ১১ ১৪:৪৪:৪০
লেগ বাইয়ের ৪ রান না দেওয়াতে অবিশ্বাস্য ভাবে যা বললেন তামিম

ছোট টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে জয়ে খুব কাছে গিয়ে হেরেছে বাংলাদেশ। নিউইয়র্কের নাসাউয়ের কঠিন পিচে বাংলাদেশকে জয়ের স্বপ্ন দেখাছিল মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ ও তাওহীদ হৃদয়। তবে এক আম্পায়ার্স কলে তছনছ হয়ে যায় বাংলাদেশের ইতিহাস গড়ার স্বপ্ন। এদিন অবশ্য ভাগ্যও কিছুটা খারাপ ছিল শান্তদের।

বাউন্ডারি লাইনে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের ক্যাচ। তার আগে আম্পায়াদের দুটো বিতর্কিত সিদ্ধান্ত। সবমিলিয়ে নিউইয়র্কের নাসাউ কাউন্টি স্টেডিয়ামে বাংলাদেশের হারের চিত্রনাট্য যেন একটু বেশিই বৈচিত্রপূর্ণ ছিল। তবে, ফলাফল ছাপিয়ে আলোচনায় আম্পায়ারিং ইস্যু।

ম্যাচের সবচেয়ে আলোচিত মুহূর্ত বাংলাদেশের ইনিংসের ১৭তম ওভার। যেখানে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদকে এলবিডব্লিউর আউট দেন আম্পায়ার। রিয়াদের পায়ে লাগা বলটা হয়ে যায় চার। তবে আম্পায়ার আউট দেওয়ার ফলে বল সেখানেই ডেড হয়ে যায়। যে কারণে চার রান আর যোগ হয়নি বাংলাদেশের ইনিংসে। পরে বাংলাদেশ রিভিউ নিলে আউট থেকে নট আউট হন রিয়াদ। কিন্তু সেই যে বল ডেড, চার রান আর পায়নি বাংলাদেশ। ম্যাচটাও শেষমেশ হেরেছে সেই ৪ রানেই।

লেগ বাই থেকে বাংলাদেশের ৪ রান না পাওয়াটা নিয়মের মধ্যেই। তবে এখানে নিয়মে পরিবর্তন আনার জোর দাবি তুলেছেন অনেকে। এর মধ্যে আছেন বাংলাদেশের সাবেক অধিনায়ক তামিম ইকবালও।

ম্যাচের পর ইএসপিএন ক্রিকইনফোর অনুষ্ঠানে ভারতের জনপ্রিয় ধারাভাষ্যকার সঞ্জয় মাঞ্জরেকার বলেন, ‘আসলে যেহেতু ভক্তরাও এটি নিয়ে কথা বলছে সেক্ষেত্রে আমি ভাবলাম, আম্পায়াররা কি অপেক্ষা করতে পারেন অ্যাকশনটা সম্পন্ন হওয়া পর্যন্ত? বল বাউন্ডারি পর্যন্ত চলে যাওয়ার পর আউট অথবা নট আউট দিলেন, পরে রেকর্ড করলেন এবং রিভিউর পর তা প্রয়োগ করলেন।’সঞ্জয়ের সাথে একমত পোষণ করে তামিম বলেন, ‘হ্যাঁ আমি শক্তভাবে সঞ্জয় ভাইয়ের সাথে একমত। আমার কাছে মনে হয়, আপনার কাছে সময় আছে। আপনি চাইলে ২ সেকেন্ড অপেক্ষা করে দেখতে পারেন বল বাউন্ডারি হচ্ছে নাকি যাচ্ছে না এবং এরপর সিদ্ধান্ত দিতে পারেন। আমি মনে করি, ব্যাটার যদি আউট না হন এবং বল যদি তার থাই প্যাড বা প্যাডে লেগে বাউন্ডারি হয়ে যায় তাহলে রান দেওয়া উচিত, যদি সে নট আউট হয়। এই ৪ রান বাংলাদেশের ভাগ্য পরিবর্তন করে দিতে পারত। এটা হতে পারত। আমি হয়ত সমর্থকদের মত কথা বলছি। তবে যদি ভেবে দেখেন, এই ৪ রান খুবই খুবই গুরুত্বপূর্ণ হতে পারত। আমি ধারাভাষ্য শুনছিলাম নাসের হুসেইনসহ সবাই এটা নিয়ে কথা বলছিলেন। আমার মনে হয়, এটার দিকে আইসিসির নজর দিতে পারে। এটা আসলে চাইলে এড়ানো যায়। এটা এমন কিছু না যে এখানে অনেক বড়সড় কোনো পরিবর্তন আনতে হবে।’

যত আলোচনাই হোক ম্যাচ তো আর ফিরে আসবে না। দিনশেষে ৪ রানের হারই মেনে নিতে হয়েছে বাংলাদেশকে। তবে নিয়মে পরিবর্তন আনার বিষয়টির দিকে আইসিসির নজর দেওয়াটা খুব সম্ভবত বর্তমান সময়ের সবচেয়ে বড় দাবি। বিশ্বকাপের ফাইনাল ম্যাচে যদি এমন ঘটনা ঘটে তা নিশ্চিতভাবেই সৃষ্টি করবে আরও বড় বিতর্ক।

আপনার জন্য বাছাই করা কিছু নিউজ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



রে